| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   জাতীয় -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
আল-আকসা মসজিদে হামলার ঘটনায় বাংলাদেশের তীব্র নিন্দা

জেরুজালেমে আল-আকসা মসজিদ এলাকায় নিরপরাধ মুসল্লি ও সাধারণ জনগণের উপর ইসরায়েলি পুলিশের হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। আল-আকসা মসজিদ ঘিরে কয়েকদিন ধরে সংঘাত চলার মধ্যে সোমবার (১০ মে) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এই নিন্দা জানানো হয়।বিবৃতিতে বলা হয়, আল-আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণে মুসল্লি ও সাধারণ জনতার উপর সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা ও সংঘাত এবং ইসরায়েল কর্তৃক পূর্ব জেরুজালেমের শেখ জাররাহ এলাকা থেকে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে বাংলাদেশ। এ ধরনের হামলা মানবিকতার রীতি, মানবাধিকার এবং আন্তর্জাতিক আইন ও চুক্তির লঙ্ঘন। এ ঘটনা সারা পৃথিবীর নিপীড়িত জনগণের মর্মবেদনা-ই প্রকাশ করছে।

মুসলিমদের তৃতীয় পবিত্র স্থান আল আকসা পুরো রমজানজুড়ে জেরুজালেমের সহিংসতার কেন্দ্রস্থল হয়ে আছে। দুই পক্ষের এই সংঘর্ষের ঘটনা আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও উদ্বেগ ছড়িয়েছে।

ইসরায়েলের ‘জেরুজালেম দিবস’ পালনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা চরমে পৌঁছে। রোববার সন্ধ্যা থেকে সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত আল আকসা মসজিদের সামনে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে ইসরায়েলি পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে।

ফিলিস্তিন রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি জানিয়েছে, এ সহিংতায় ১৮০ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন, তাদের মধ্যে ৮০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে একজনের অবস্থা সঙ্কটজনক।

বড় ধরনের এই সংঘাতের পর দেওয়া বিবৃতিতে ফিলিস্তিন সঙ্কটে দুই-রাষ্ট্রীয় সমাধান চাওয়ার অতীত অবস্থানই পুনর্ব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ।

জেরুজালেমে ‘সন্ত্রাসী কায়দায় আক্রমণ এবং দখলকৃত এলাকার ব্যক্তিগত সম্পত্তি জবরদখল’ বন্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, এই ধরনের বর্ণবাদী নীতি ও ভীতিকর পদক্ষেপ দখলকৃত এলাকায় যুদ্ধাপরাধের সামিল হতে পারে।

জেরুজালেমের দখল করা পূর্ব অংশ ইসরায়েল নিজেদের ভূখণ্ডের অংশ করে নিলেও তাতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের সায় মেলেনি, তারপরও পুরো জেরুজালেমকে নিজেদের রাজধানী হিসেবে দেখে ইসরায়েল।

অন্যদিকে ফিলিস্তিনিরা ইসরায়েলের অধিকৃত পশ্চিম তীর ও গাজা ভূখণ্ড নিয়ে যে রাষ্ট্র গড়ার স্বপ্ন দেখে, তার রাজধানী করতে চায় পূর্ব জেরুজালেমকে।

১৯৬৭ সালের যুদ্ধ পূর্ববর্তী সীমানার আলোকে দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের আলোকে ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করার অবস্থানও বিবৃতিতে পুনর্ব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ। যার রাজধানী হবে পূর্ব জেরুজালেম।

বিবৃতিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরও বলেছে, টেকসই ফিলিস্তিন রাষ্ট্রে জনগণের সার্বভৌম ও স্বাধীন স্বদেশ নিশ্চিতের অলঙ্ঘনীয় অধিকারের প্রতি দৃঢ় সমর্থন জানাচ্ছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের বিভিন্ন প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে যে রাষ্ট্রের ভৌগোলিক অখণ্ডতা প্রতিষ্ঠিত হবে।

দীর্ঘস্থায়ী সমাধানের জন্য সংঘাত ছেড়ে সংলাপের মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের দুই পক্ষকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বানও জানানো হয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে।

আল-আকসা মসজিদে হামলার ঘটনায় বাংলাদেশের তীব্র নিন্দা
                                  

জেরুজালেমে আল-আকসা মসজিদ এলাকায় নিরপরাধ মুসল্লি ও সাধারণ জনগণের উপর ইসরায়েলি পুলিশের হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। আল-আকসা মসজিদ ঘিরে কয়েকদিন ধরে সংঘাত চলার মধ্যে সোমবার (১০ মে) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এই নিন্দা জানানো হয়।বিবৃতিতে বলা হয়, আল-আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণে মুসল্লি ও সাধারণ জনতার উপর সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা ও সংঘাত এবং ইসরায়েল কর্তৃক পূর্ব জেরুজালেমের শেখ জাররাহ এলাকা থেকে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে বাংলাদেশ। এ ধরনের হামলা মানবিকতার রীতি, মানবাধিকার এবং আন্তর্জাতিক আইন ও চুক্তির লঙ্ঘন। এ ঘটনা সারা পৃথিবীর নিপীড়িত জনগণের মর্মবেদনা-ই প্রকাশ করছে।

মুসলিমদের তৃতীয় পবিত্র স্থান আল আকসা পুরো রমজানজুড়ে জেরুজালেমের সহিংসতার কেন্দ্রস্থল হয়ে আছে। দুই পক্ষের এই সংঘর্ষের ঘটনা আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও উদ্বেগ ছড়িয়েছে।

ইসরায়েলের ‘জেরুজালেম দিবস’ পালনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা চরমে পৌঁছে। রোববার সন্ধ্যা থেকে সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত আল আকসা মসজিদের সামনে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে ইসরায়েলি পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে।

ফিলিস্তিন রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি জানিয়েছে, এ সহিংতায় ১৮০ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন, তাদের মধ্যে ৮০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে একজনের অবস্থা সঙ্কটজনক।

বড় ধরনের এই সংঘাতের পর দেওয়া বিবৃতিতে ফিলিস্তিন সঙ্কটে দুই-রাষ্ট্রীয় সমাধান চাওয়ার অতীত অবস্থানই পুনর্ব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ।

জেরুজালেমে ‘সন্ত্রাসী কায়দায় আক্রমণ এবং দখলকৃত এলাকার ব্যক্তিগত সম্পত্তি জবরদখল’ বন্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, এই ধরনের বর্ণবাদী নীতি ও ভীতিকর পদক্ষেপ দখলকৃত এলাকায় যুদ্ধাপরাধের সামিল হতে পারে।

জেরুজালেমের দখল করা পূর্ব অংশ ইসরায়েল নিজেদের ভূখণ্ডের অংশ করে নিলেও তাতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের সায় মেলেনি, তারপরও পুরো জেরুজালেমকে নিজেদের রাজধানী হিসেবে দেখে ইসরায়েল।

অন্যদিকে ফিলিস্তিনিরা ইসরায়েলের অধিকৃত পশ্চিম তীর ও গাজা ভূখণ্ড নিয়ে যে রাষ্ট্র গড়ার স্বপ্ন দেখে, তার রাজধানী করতে চায় পূর্ব জেরুজালেমকে।

১৯৬৭ সালের যুদ্ধ পূর্ববর্তী সীমানার আলোকে দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের আলোকে ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করার অবস্থানও বিবৃতিতে পুনর্ব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ। যার রাজধানী হবে পূর্ব জেরুজালেম।

বিবৃতিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরও বলেছে, টেকসই ফিলিস্তিন রাষ্ট্রে জনগণের সার্বভৌম ও স্বাধীন স্বদেশ নিশ্চিতের অলঙ্ঘনীয় অধিকারের প্রতি দৃঢ় সমর্থন জানাচ্ছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের বিভিন্ন প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে যে রাষ্ট্রের ভৌগোলিক অখণ্ডতা প্রতিষ্ঠিত হবে।

দীর্ঘস্থায়ী সমাধানের জন্য সংঘাত ছেড়ে সংলাপের মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের দুই পক্ষকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বানও জানানো হয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকেও টিকা আনার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
                                  

টিকা নিয়ে দুশ্চিন্তার কারণ নেই উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমরা চীন এবং রাশিয়া থেকে টিকা আনছি। তাছাড়া যুক্তরাষ্ট্র থেকেও টিকা আনার যথেষ্ট সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। শনিবার (৮ মে) রাতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে এক ভিডিও বার্তায় এ সব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমার সঙ্গে মার্কিন সরকারের আলাপ হয়েছে, তারাও আন্তরিকতার সঙ্গে আমাদের টিকা দেওয়ার জন্য প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আমার বিশ্বাস আমরা খুব শিগগিরই যথেষ্ট টিকা আনব। কারও এ ব্যাপারে দুশ্চিন্তার কারণ নেই। যথাসময়ে টিকা আসবে এবং সবাই তা পাবে।

আগামী ১২ মে চীনের উপহারের ৫ লাখ টিকা দেশে আসছে বলেও জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ভারত ছাড়া অন্যান্য দেশের টিকা বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র বা ইউরোপীয় ইউনিয়নের কোন দেশ থেকে টিকা আনতে কত খরচ হয় তাও ভিডিও বার্তায় জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি জানান, ভারত থেকে চার ডলারে টিকা এনেছে সরকার, সঙ্গে এক ডলার ট্রান্সপোর্ট খরচ। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে টিকা নিতে গেলে লাগবে ৮০ ডলার। আর ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলো থেকে আনতে গেলে লাগবে ২০ থেকে ২৫ ডলার। 

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেনের সঙ্গে তার দফতরে সাক্ষাৎ করেন। রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে মোমেন সাংবাদিকদের জানান, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২০ মি‌লিয়ন ডোজ ক‌রোনার টিকা চে‌য়ে‌ছে বাংলা‌দেশ। 

তিনি বলেন, জরুরি ভিত্তিতে চাওয়া হয়েছে ৪ মিলিয়ন টিকা। আর স্বাভাবিক অবস্থায় ১০ থেকে ২০ মি‌লিয়ন টিকা চাওয়া হয়েছে বলে জানান মোমেন। বৈঠকে রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশকে টিকা পাইয়ে দিতে আন্তরিক চেষ্টা করছেন বলেও জানান তিনি। 


শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে মমতার চিঠি
                                  

টানা তৃতীয়বারের মতো ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করায় অভিনন্দন জানিয়ে লেখা পত্রের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়।বৃহস্পতিবার (৬ মে) প্রধানমন্ত্রীকে লেখা এক পত্রে এ ধন্যবাদ জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে শুক্রবার (৭ মে) গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

পত্রে মমতা বন্দোপাধ্যায় উল্লেখ করেন, গত ১০ বছরে অনেক কাজ আমরা করেছি। আগামীদিনেও আরও অনেক কাজ আমরা করব। বাংলার মানুষ যে ভরসা আজ আমাদের ওপর রাখলেন, আমরা তার যোগ্য সম্মান দেব। বাংলাকে সাফল্যের নতুন শিখরে পৌঁছে দেব।

দুই বাংলার ভৌগলিক সীমারেখার কথা উল্লেখ করে মমতা বলেন, দুই বাংলার মধ্যে ভৌগলিক সীমারেখা থাকলেও চিন্তা-চেতনা-মননে আমরা একে অপরের অত্যন্ত আপন। এই ভালোবাসার বন্ধন আগামীতেও আরও সুদৃঢ় হবে এই বিষয়ে আমি নিশ্চিত।

তিনি আরও বলেন, আপনাকে (শেখ হাসিনা) ও রেহানাকে এবং সমগ্র বাংলাদেশবাসীকে আমরা হৃদয়ের অন্তঃস্থল থেকে শুভেচ্ছা জানালাম। আপনাদের শুভকামনাই হবে আমাদের চলার পথের পাথেয়।

পশ্চিমবঙ্গকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করে মমতা বলেন, আপনাদের শুভ কামনা এ যাত্রায় সহায়ক হবে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল কংগ্রেস এ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে ঐতিহাসিক বিজয় লাভ করায় গত ৬ মে এক পত্রে তাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ জুমাতুল বিদা
                                  

আজ রমজান মাসের শেষ জুমা। পবিত্র জুমাতুল বিদা। এ দিনকে ইবাদতের মর্যাদাপূর্ণ দিন হিসেবে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়। এদিন জুমা আদায়ের জন্য এলাকার মসজিদে আগেভাগে গিয়ে উপস্থিত হন মুসল্লিরা। নামাজ আদায়ের পর আল্লাহর দরবারে মাগফিরাত কামনা করে কান্নায় ভেঙে পড়েন তারা।ইসলামি শরিয়তে আলাদাভাবে কোনো ফজিলত না থাকলেও ইসলামের সূচনাকাল থেকেই রমজানের শেষ জুমাটি বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে পালিত হয়ে আসছে। তবে সপ্তাহের অন্যান্য দিনের তুলনায় জুমার দিনের গুরুত্ব, ফজিলত ও মর্যাদা অনেক বেশি। আর রমজানের কারণে জুমার দিনের মর্যাদা আরও বেড়ে যায়। 

তবে রমজান মাসের শেষ জুমা হিসেবে এদিন ‘আল-কুদস দিবস’ পালিত হওয়ায় এর গুরুত্ব, তাৎপর্য ও মাহাত্ম্য অপরিসীম। মানুষ দলে দলে জুমা আদায় করতে মসজিদের দিকে ধাবিত হবে। মহামারি করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে মুসলিম উম্মাহ আজ জুমার নামাজ শেষে মহান আল্লাহর কাছে বিশেষ দোয়া করবেন।

১৪৪২ হিজরির রমজান মাসে মুসলিম উম্মাহ ইতিমধ্যে তিনটি জুমা অতিবাহিত করেছেন। আজ রমজানের বিদায়ী জুমা। তাই কোরআন নাজিলের মাসের মর্যাদা ও বরকতের সঙ্গে জুমার মর্যাদা ও ফজিলতে মুমিন রোজাদারদের আমল ও হৃদয় হোক আলোকিত।

খালেদাকে বিদেশ নিতে তালিকায় আরও দুই দেশ
                                  

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশ নেয়া সংক্রান্ত জটিলতা কাটতে পারে আজ। অনুমতি মিললে বিদেশে নেয়ার সব প্রক্রিয়া শেষ করতে আরও দুই থেকে তিনদিন সময় লাগতে পারে বলে আভাস দিয়েছেন বিএনপি নেতারা। তারা বলছেন-লন্ডনকে অগ্রাধিকার দিয়ে আরও দুটি দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন তারা। সরকারের অনুমোদনের পরই এই প্রক্রিয়া শুরু হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিতে চেয়ে বুধবার (৫ মে) রাত আটটায় আবেদন করে তার পরিবার। এরপর কেটে গেছে ৪২ ঘণ্টা। এখনো সরকারের গ্রিন সিগন্যাল মেলেনি।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) বিকেল সাড়ে তিনটায় আবেদনের কপি হাতে পাওয়ার পর আইনমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, খুব শিগগিরই এ বিষয়ে তিনি মতামত দিবেন। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, জরুরি বিবেচনায় শুক্রবারই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হতে পারে আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত।

বিএনপিও তাকিয়ে সরকারের দিকে। আবেদনে লন্ডনে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি উল্লেখ না করলেও সে দেশকেই অগ্রাধিকার দিচ্ছে তার পরিবার। এছাড়া সৌদি আরব, দুবাইয়ের কথাও শোনা যাচ্ছে। সেইসব দেশের দূতাবাস, হাইকমিশনের সঙ্গেও যোগাযোগ করছেন তারা। বেগম জিয়ার নবায়নকৃত পাসপোর্ট ও সরকারের অনুমোদন পেলেই এ বিষয়ে আরও তৎপর হবে দল। যদিও অনুমোদনের পরও বিএনপি নেত্রীকে বিদেশ নিতে আরও দুদিন সময় লাগতে পারে।

এদিকে চিকিৎসাধীন বেগম জিয়ার অবস্থা এখনও স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন এভারকেয়ার হাসপাতালের একজন দায়িত্বশীল চিকিৎসক। তিনি জানান, অক্সিজেন, এন্টিবায়োটিক ও ইনসুলিন দেয়া হচ্ছে বিএনপি নেত্রীকে।

প্রসঙ্গত, গত ১০ এপ্রিল বেগম জিয়া করোনায় আক্রান্ত হলেও, কোভিড-১৯-এর কোনো উপসর্গ ছিল না বলে জানিয়েছিল তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা। এরপর ১৫ এপ্রিল তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নেয়া হলেও বেশ কয়েকটি পরীক্ষা শেষে বেগম জিয়াকে আবারও তার গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় নেয়া হয়। 

ওই রিপোর্টে তার ফুসফুসে সংক্রমণ ধরা পড়ে। প্রথমবার পজিটিভ হওয়ার ১৪ দিনের মাথায় ২৪ এপ্রিল আবারও করোনা টেস্ট করানো হলে কোভিড পজিটিভই থাকে বেগম জিয়ার। এর তিন দিন পর অর্থাৎ ২৭ এপ্রিল আবারও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে নেয়া হয় একই হাসপাতাল এভারকেয়ারে। 

চিকিৎসকদের পরামর্শে সেখানেই নন-কোভিড ইউনিটে ভর্তি করা হয় সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে। এরপর গত ৩ মে তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে করোনারি কেয়ার ইউনিট-সিসিইউতে নেয়া হয় তাকে। সেদিন থেকেই তিনি পঞ্চম দিনের মতো সিসিইউতেই আছেন বিএনপির এই নেত্রী।   

মমতাকে অভিনন্দন জানিয়ে শেখ হাসিনার চিঠি
                                  

টানা তিনবারের মতো ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।বৃহস্পতিবার (৬ মে) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রেস উইং থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। গত বুধবার প্রধানমন্ত্রী এক চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

মমতা নিজের আসনে পরাজিত হলেও তার দল তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপিকে বড় ব্যবধানে পরাজিত করে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে। বুধবার দুপুরে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের দাপ্তরিক ভবন রাজভবনে তাকে শপথবাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।

চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লেখেন, ‘প্রিয় মমতাজি, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে টানা তৃতীয়বারের মতো শপথ গ্রহণ উপলক্ষে আপনাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের বিপুল বিজয় আপনার ওপর পশ্চিমবঙ্গের জনগণের সুগভীর আস্থার প্রতিফলন। ভারত বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু। বিশেষভাবে, পশ্চিমবঙ্গের জনগণের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক অত্যন্ত নিবিড়, হৃদয়ের এবং আবহমান কালের।’

চিঠিতে শেখ হাসিনা বলেন, ‘২০২১-এর এই বিশেষ সময়ে যখন আমরা মুজিববর্ষ, বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং ভারত-বাংলাদেশ কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর উদযাপন করছি, সেই মাহেন্দ্রক্ষণে আমি কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করছি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে পশ্চিমবঙ্গের জনগণ ও রাজনৈতিক নেতৃত্বের অবদান এবং সেইসঙ্গে আমাদের অভিন্ন সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও জীবনচর্চা। বৈশ্বিক করোনাভাইরাস মহামারির এই ক্রান্তিকালে বন্ধুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক সহযোগিতার ভিত্তিতে সংকট উত্তরণের লক্ষ্যে একযোগে কাজ করে যেতে আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আপনার সুযোগ্য নেতৃত্বে পশ্চিমবঙ্গের জনগণের সর্বাঙ্গীণ উন্নতি ও উত্তরোত্তর মঙ্গল কামনা করছি। দুই বাংলার জনগণের অধিকতর সমৃদ্ধ ভবিষ্যৎ বিনির্মাণের লক্ষ্যে আগামী দিনগুলোতে পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ থেকে ঘনিষ্ঠতর হবে- এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করছি। আপনার সুস্বাস্থ্য, দীর্ঘায়ু ও অব্যাহত সাফল্য প্রত্যাশা করছি। আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা রইল।’

ধান-চালের যৌক্তিক দাম নির্ধারণ করা হয়েছে: কৃষিমন্ত্রী
                                  

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেছেন, সরকারিভাবে ধান-চাল সংগ্রহ কর্মসূচি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। গত বছর নানা কারণে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ধান-চাল সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। তবে গত বছরের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে এ বছর ধান-চালের অত্যন্ত যৌক্তিক দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। যা বাজারের সঙ্গে খুবই সঙ্গতিপূর্ণ। ফলে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী এ বছর ধান-চাল সংগ্রহ করা সম্ভব হবে।বুধবার (৫ মে) সচিবালয়ের অফিস কক্ষ থেকে ভার্চুয়ালি খুলনা জেলায় ‘কৃষকের অ্যাপ` এ সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে লটারির মাধ্যমে ধান ক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। খুলনা জেলা প্রশাসন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কৃষি ও কৃষকবান্ধব। কৃষকের মুখে হাসি ফোটানোই তার লক্ষ্য। তাই তিনি কৃষিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে কৃষির উন্নয়ন ও কৃষকের কল্যাণে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। তার নেতৃত্ব, দূরদর্শিতা ও প্রজ্ঞার ফলেই অতি অল্প সময়ে বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। খাদ্য উৎপাদন ও খাদ্য নিরাপত্তায় এই অভূতপূর্ব সাফল্য সারা পৃথিবীর কাছে আজ এক বিস্ময়ে পরিণত হয়েছে।

খুলনার কৃষিতে বিপ্লব আনা হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী আরও বলেন, খুলনাসহ দক্ষিণাঞ্চলের লবণাক্ত জমিতে কৃষির আমূল পরিবর্তনে সরকার কাজ করছে। লবণাক্ত জমিতে চাষের উপযোগী ফসলের বিভিন্ন জাত ও প্রযুক্তি ইতোমধ্যে উদ্ভাবিত হয়েছে। এগুলো চাষের মাধ্যমে লবণাক্ত জমিতে অনেক সাফল্য এসেছে। আরও নতুন জাত ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন অব্যাহত থাকবে যাতে করে দক্ষিণাঞ্চলের লবণাক্ত জমিতে কৃষি বিপ্লব ঘটানো যায়।

খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্থানীয় সংসদ সদস্য নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, খাদ্যসচিব ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম, খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মো. ইসমাইল হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেন, গত বছর খুলনা জেলাতে ডিজিটালি লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী শতভাগ ধান-চাল সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছিল। চলতি বছরেও লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব হবে। এ সময় তিনি কৃষিমন্ত্রীর পক্ষে কৃষকের হাতে ধান ক্রয়ের প্রতিকী মূল্য তুলে দেন।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব জেলা শহরে গণপরিবহন চলবে: মালিক সমিতি
                                  

ঢাকা মহানগরসহ সব জেলা শহরে বৃহস্পতিবার (৬ মে) সকাল থেকে গণপরিবহন চলবে বলে জানিয়েছে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি। বুধবার (৫ মে) সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানান।

মালিক সমিতির ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামীকাল (৬ মে) থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকা মহানগরসহ সব জেলা শহরের মধ্যে গণপরিবহন চলাচল করবে। তবে মালিক সমিতি বা পরিবহন কোম্পানির নেতাদের কিছু নির্দেশনা মেনে চলতে হবে।’

নির্দেশনার মধ্যে রয়েছে, মাস্ক ছাড়া কোনো যাত্রী গাড়িতে উঠতে পারবেন না এবং গাড়ির স্টাফদের জন্য মালিককে মাস্ক সরবরাহ করতে হবে। গাড়িতে সিটের অর্ধেক যাত্রী বহন করতে হবে। অর্থাৎ ২ সিটে এক জন যাত্রী বসবে। 

এ ছাড়া লকডাউনে মালিক-শ্রমিকরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এক্ষেত্রে রুট মালিক সমিতি বা পরিবহন কোম্পানির জিপির নামে গাড়ি থেকে কোনো প্রকার অর্থ আদায় করতে পারবে না।

১২ মে আসছে চীনের উপহার ৫ লাখ টিকা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
                                  

চীনের উপহারের ৫ লাখ কোভিড টিকা আগামী বুধবারের মধ্যে (১২ মে) দেশে আসছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। বুধবার (০৫ মে) দুপুরে রাজধানীতে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।এ সময় যুক্তরাষ্ট্র থেকে টিকা আনতে চেষ্টা চলছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে শুক্রবার ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে কথা বলা হবে।

সম্প্রতি দেশে চীনের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা সিনোভ্যাকের জরুরি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ফলে চীন থেকে স্বল্পতম সময়ের মধ্যে এ টিকা আসার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন স্বাস্থ্য সচিব লোকমান হোসেন মিয়া। সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান তিনি।

এর আগে ২৯ এপ্রিল রাশিয়ার পর দেশে চীনের টিকা সিনোভ্যাকের জরুরি অনুমোদন দেন ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর। ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান জানান আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে চীনের দেওয়া উপহারের ৫ লাখ ডোজ টিকা আসবে। পরবর্তীতে দুই সপ্তাহের মধ্যে এই টিকার প্রয়োগ শুরু হবে।

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার সরবরাহ সংকটে টিকাদান কার্যক্রম নিয়ে জটিলতার মধ্যে দ্রুত রাশিয়া ও চীনের টিকার অনুমোদন দেওয়া হয় দেশে।
 

শোকে বাবার জ্বলন্ত চিতায় ঝাঁপ দিলেন মেয়ে
                                  

শোক সামলাতে না পেরে বাবার চিতার আগুনে ঝাঁপ দিয়েছেন ৩৪ বছর বয়সী মেয়ে। ভারতের রাজস্থানের বার্মার জেলায় এই ঘটনা ঘটেছে। প্রায় ৭০ শতাংশ পুড়ে গেছে তার শরীর। প্রথমে স্থানীয় একটি সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। এরপর যোধপুরে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার (৪ মে) ৭৩ বছর বয়সী দামোদরদাস সারদার মৃত্যু হয়। তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। রোববার থেকেই তিনি স্থানীয় একটি সরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তার মৃত্যুর পর করোনা প্রটোকল মেনে শেষকৃত্যের জন্য ওই দেহ পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। 

দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা প্রেম প্রকাশ বলেন, দামোদরদাসের তিন কন্যা। তার মধ্যে ছোট মেয়ে চন্দ্রকলা বাবার শেষকৃত্যের সময় উপস্থিত থাকার জন্য বারবার অনুরোধ করেছিলেন। ওই পরিবারে কোনো পুরুষ সদস্য নেই। এ কারণে তাকে শেষকৃত্যের সময় উপস্থিত থাকার অনুমোতি দেওয়া হয়। সেখানেই শোক সামলাতে না পেরে বাবার চিতায় ঝাঁপ দেন তিনি।

তবে এ এক অন্য সহমরণের চেষ্টার ছবি কাঁদিয়েছে অনেককেই।


বেঁচে থাকলে অনেক উৎসব করা যাবে: কাদের
                                  

ঈদে ঘরমুখো মানুষদের উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঝুঁকি নিলে উৎসবের আগেই এই ধরনের (পদ্মায় নৌ দুর্ঘটনায় ২৬ জনের মুত্যু) ট্র্যাজেডি অনিবার্য হয়ে পড়ে। তাই উৎসব-আনন্দের কী দাম আছে যদি জীবন থেকেই দূরে সরে যেতে হয়। বেঁচে থাকলে ভবিষ্যতে অনেক উৎসব-আনন্দ করা যাবে। সবাইকে মনে রাখতে হবে, আগে জীবন পরে জীবিকা।বুধবার (৫ মে) সকালে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি আয়োজিত দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ ও অসহায়-দরিদ্র মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। এ সময় ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবন থেকে অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হন।

ঈদযাত্রা যেন অন্তিম যাত্রায় পরিণত না হয়, সে বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান তিনি।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিপন্ন মানবতার পাশে দাঁড়িয়ে দুর্যোগ-দুর্বিপাকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করছেন ৭৫ পরবর্তীকালে কোনো সরকার প্রধান বা রাজনৈতিক নেতা এমন নজির স্থাপন করতে পারেনি।

এ সময় বিএনপিকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘একটা দল সরকারের বিরুদ্ধে গলাবাজি করছে, তাদের আর কোনো কাজ নেই। করোনার এই দুঃসময়ে তারা মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে- এমন একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পারেনি, কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তা করে দেখিয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সারাদেশে দলীয় নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিরা অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু একটা দল ঢাকায় বসে শুধু লিপ সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা একেক সময় এক এক আন্দোলনের ওপর ভর করে ষড়যন্ত্রমূলক তৎপরতায় লিপ্ত। তারা করোনার এই সংকটের সময়েও সহিংসতার উসকানি দিচ্ছে।

তিনি বলেন, যারা ভাসমান, ঘর বাড়ি নেই তাদের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করার উদ্যোগ নিতে হবে এবং বিতরণের সময় সবাইকে একটি করে মাস্ক বাধ্যতামূলক  দিতে হবে। সারাদেশে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে ক্যাম্পেইন করার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন ওবায়দুল কাদের।

লকডাউনে অনেকেই চোরাইপথে আসা যাওয়ার সুযোগ নিচ্ছেন, সম্প্রতি পদ্মায় স্পীড বোট ডুবিতে ২৬ জন প্রাণ হারিয়েছেন, এ বিষয়ে সবাইকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারকে ফাঁকি দেওয়া যায় কিন্তু মৃত্যুকে ফাঁকি দেওয়া যায় না। কাজেই এধরনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল না করার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানান তিনি।

গৃহকর্মী ধর্ষণ: সেই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী গ্রেফতার
                                  

অবশেষে পুলিশের কাছে ধরা পড়ল গৃহকর্মী তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র আমজাদ মাহমুদ নিলয়। মঙ্গলবার (৪মে) চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ ভোলার জেলার বোরহানউদ্দিন এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে।সদর মডেল থানার ওসি আব্দুল রশিদ জানান, তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক কবির হোসেন আত্মগোপনে থাকা নিলয়কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। এর আগে গত ৩০ এপ্রিল এই মামলার অপর আসামি নিলয়ের মা শাহনাজ বেগমকে গ্রেফতার করে। তবে এখনো পলাতক রয়েছেন আরেক আসামি নিলয়ের বাবা আব্দুল মাজেদ।

পুলিশ জানিয়েছে, চাঁদপুর শহরের ওয়ারলেস এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ বরকন্দাজের বাড়িতে ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন আব্দুল মাজেদ-শাহনাজ বেগম দম্পতি। তারা দুইজনই চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এ কর্মরত। তাদের সন্তান আমজাদ মাহমুদ নিলয় রাজধানী ঢাকায় একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতেন। কিন্তু করোনার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় চাঁদপুরের বাসায় অবস্থান শুরু করেন নিলয়।

তার বাবা এবং মা যখন কর্মস্থলে যান, তখনই সুযোগ বুঝে গৃহকর্মী তরুণীকে একা পেয়ে ধর্ষণ করতেন তিনি। ঘটনার শিকার অসহায় ওই তরুণী নিলয়ের বাবা-মাকে এমন অনৈতিক কাজের অভিযোগ দিয়ে কখনো প্রতিকার পাননি। উল্টো তার ভাগ্যে জুটেছে অপবাদ আর মারধর। সবশেষ গত ৩০ এপ্রিল এসব থেকে পরিত্রাণ পেতে বাসা থেকে পালিয়ে সড়কে এসে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ওই তরুণী।

তবে স্থানীয়দের কারণে তা ব্যর্থ হয়। একপর্যায়ে ঘটনাটি জেলা পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদের নজরে পড়ে। পরে জেলা পুলিশ সুপারে নির্দেশে সদর মডেল থানায় ঘটনার শিকার অসহায় ওই তরুণী নিলয় ও তার বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

এরপরই পুলিশ প্রথমে অভিযান চালিয়ে ওয়ারলেসের বাসা থেকে নিলয়ের মা শাহনাজ বেগমকে গ্রেফতার করে। তবে ওই সময় বাবা এবং ছেলে পালিয়ে যায়।

গ্রেফতার হওয়া অভিযুক্ত নিলয়কে বুধবার (৫ মে) চাঁদপুরের আদালতে হাজির করার কথা রয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঘটনার শিকার অসহায় ওই তরুণী তার প্রতিবন্ধী বাবার হেফাজতে আছেন। ইতোমধ্যে তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।


আসতে পারে তৃতীয় ঢেউ, লকডাউনেও কাজ হবে না
                                  

সঙ্কটের মেঘ কাটার কোনও ইঙ্গিত নেই এখনও। উল্টো নতুন আশঙ্কার কথা শোনালেন ‘অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস’ (এমস) এর ডিরেক্টর রণদীপ গুলেরিয়া। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের বিপর্যস্ত ভারতবাসীকে জানালেন, অদূর ভবিষ্যতেই তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে ভারতে। খবর আনন্দবাজারের।অতিমারির মোকাবেলায় সপ্তাহান্তিক লকডাউন, আংশিক লকডাউন বা রাত্রীকালীন কারফিউয়ের মতো ব্যবস্থায়ও কোন কাজ হবে না বলেও স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। তার মতে, কোভিড-১৯ সংক্রমণের শৃঙ্খল ভাঙতে দীর্ঘকালীন লকডাউনের পথে হাঁটতে হতে পারে।

গুলেরিয়া মঙ্গলবার বলেন, ‘৩ টি বিষয়ে আমাদের নজর দেওয়া উচিত। প্রথমত, হাসপাতালগুলোর পরিকাঠামো উন্নয়নের দিকে জোর দিতে হবে। দ্বিতীয়ত, সংক্রমণ ঠেকাতে অতিসক্রিয়তা দেখাতে হবে। তৃতীয়ত, টিকাকরণ কর্মসূচি চালিয়ে যেতে হবে।’ অক্সিজেন সরবরাহের মতো আপদকালীন বিষয়গুলোতে আরও গুরুত্ব দেওয়ার কথাও বলেছেন তিনি।

দীর্ঘমেয়াদী পূর্ণ লকডাউন জারি করার আগে সংশ্লিষ্ট ভারতের রাজ্য ও কেন্দ্রের মধ্যে সমন্বয়ের বিষয়টিতে গুরুত্ব দিয়েছেন এমস প্রধান। পাশাপাশি, মানুষের জীবিকা এবং অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও পরিষেবার বিষয়টি নিশ্চিত করা প্রয়োজন বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

সুন্দরবনে বাচ্চা ফুটেছে মহাবিপন্ন বাটাগুর বাসকার
                                  

বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে মহাবিপন্ন প্রজাতির কচ্ছপ বাটাগুর বাসকার ৩৭টি বাচ্চা ফুটেছে। শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) দুইটি বাটাগুর বাসকার ডিম ফুটে ৩৭টি বাচ্চা বের হয়।করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাওলাদার আজাদ কবির জানান, প্রতিবছর একটা বা দুইটা কচ্ছপে ডিম পাড়লেও ২০২১ সালে চারটি কচ্ছপ ২৮ ফেব্রুয়ারি, ৩ মার্চ, ৫ মার্চ ও ২০ মার্চ যথাক্রমে ২৭, ২৩, ২৩, ২৩টি ডিম পেড়েছিল।

তিনি বলেন, ডিমগুলো থেকে বাচ্চা পাওয়ার কথা ৬৫ থেকে ৬৭ দিন পরে। কিন্তু চলতি বছরে অত্যাধিক দাবদাহের ফলে যথাক্রমে ৬২ ও ৫৯ দিনে ডিম থেকে বাচ্চা পাওয়া গেছে। বাকি ২টি কচ্ছপের বাচ্চাও দ্রুত পাওয়া যাবে বলে আশা করছি। 

বাটাগুর বাসকা সম্পর্কে বাংলাদেশ বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা বলেন, বাটাগুর বাসকা বিলুপ্ত প্রজাতির কচ্ছপ। ২০০০ সালের দিকেও বন্যপ্রাণী গবেষকরা মনে করতেন কচ্ছপের এই প্রজাতি পৃথিবী থেকে চিরতরে হারিয়ে গেছে। কিন্তু ২০০৮ সালে বাংলাদেশে বরিশাল-নোয়াখালী অঞ্চলের নদীতে ৮টি বাটাগুর বাসকা পাওয়া যায়। তারপর থেকেই প্রাণীটির বিলুপ্তি ঠেকাতে ভাওয়াল জাতীয় উদ্যান এবং সুন্দরবনের করমজল পর্যটন ও বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে ক্যাপটিভ ব্রিডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বন বিভাগ।

তিনি বলেন, এই কচ্ছপ মাংসাশী। এটি ছোট উদ্ভিদ, শামুক, ক্রাস্টেশিয়ান, ছোট মাছ ও কেওড়া গাছের ফল খেয়ে থাকে। পৃথিবীতে প্রায় ৩০০ প্রজাতির কচ্ছপ পাওয়া যায়। তাদের আয়ু গড় ২০০ থেকে ৩০০ বছর। কিন্তু বাটাগুর বাসকার গড় আয়ু মাত্র ৪০ বছরের মতো। এ কারণেই এরা আরও বেশি হুমকির সম্মুখীন।

জোহরা মিলা জানান, প্রতিটি বাটাগুরের ওজন ১৮ থেকে ২০ কেজি হয়ে থাকে। পৃথিবীতে শুধু বাংলাদেশেই ২০০টির মতো বাটাগুর বাসকা কচ্ছপ রয়েছে।

সাত খুন: রায় কার্যকর নিয়ে ‘হতাশায়’ নিহতের স্বজনরা
                                  

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি,

আলোচিত এই ঘটনার সাত খুনের সাত বছর পূর্ণ হয়েছে মঙ্গলবার। ২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল এই হত্যাকাণ্ড হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এই হত্যা মামলার রায়ের পর উচ্চ আদালতে ২০১৮ সালে ২২ অগাস্ট ১৫ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখে; অন্য আসামিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়।

বর্তমানে মামলাটি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে।

নিহতদের পরিবারসহ নারায়ণগঞ্জবাসী এই মামলার রায় দ্রুত কার্যকর করার দাবি জানান।

এদিকে, নিহতদের স্মরণে নিহতের স্বজনরা মিলাদ মাহফিল ও দোয়ার আয়োজন করেছেন।এই মামলায় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর নূর হোসেন, র‌্যাব-১১-এর চাকরিচ্যুত সাবেক অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, মেজর আরিফ হোসেন ও লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এম মাসুদ রানাসহ ২৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড এবং নয় জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজার রায় হয়।

পরবর্তীতে উচ্চ আদালত ১৫ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখে; অন্য আসামিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়।

নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী ও একটি মামলার বাদী সেলিনা ইসলাম বিউটি সাত খুন মামলার রায় দ্রুত কার্যকর করার দাবি জানিয়েছেন।

এই হত্যাকাণ্ডে সাত পরিবারের মধ্যে পাঁচটি পরিবার এখন চরম অর্থকষ্টে দিনাদিপাত করছে বলে জানান তিনি।

তিনি জানান, করোনাভাইরাস সংকটের কারণে অন্য কোনো আয়োজন বাদ দিয়ে গত দুই বছর ধরে তারা নিহতদের স্মরণে মসজিদ ও মাদ্রাসায় দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছেন। এবারও দোয়া মাহফিল আয়োজন করেছেন।

নিহত মনিরুজ্জামান স্বপনের গাড়ির চালক জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী শামসুন নাহার নুপুর বলেন, তার স্বামী হত্যাকাণ্ডের দুই মাস ১০ দিন পর তাদের মেয়ে রওজার জন্ম হয়। মেয়েটি তার বাবাকে দেখতে পারল না।

তিনি বলেন, তাদের পরিবারের একমাত্র উপাজর্নক্ষম ব্যক্তি ছিলেন তার স্বামী। কিন্তু গত সাত বছরে কোনো সরকারি সহায়তা তিনি পাননি।

তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে সরকারি সহায়তার দাবি জানান।

নিহত যুবলীগ নেতা মনিরুজ্জামান স্বপনের ভাই মিজানুর রহমান রিপন বলেন, সাত খুন মামলাটি উচ্চ আদালতে ১৫ জনের মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে অন্য আসামিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়।

“হাই কোর্টে রায় ঘোষণার পর আসামিপক্ষ আপিল করার পর আমরা আশা করেছিলাম দ্রুত আপিল নিষ্পত্তি হবে। কিন্তু এটি বিলম্বের কারণে সাত খুনের নিহত সাত জনের পরিবারই হতাশ হয়ে পড়েছে।”

 

আপিল বিভাগে মামলাটি দ্রুত শেষ হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করছেন।  

নিহত তাজুল ইসলামের বাবা আবুল খায়ের বলেন, “আমরা অপেক্ষায় আছি কবে সাত খুন মামলাটির রায় কার্যকর হবে। আমরা এ মামলার রায় কার্যকর দেখে যেতে পারব কিনা জানি না। নিহত সিরাজুল ইসলাম লিটনের বাবা রায় দেখে যেতে পারেননি; তিনি গত বছর মারা গেছেন।”

তিনি বলেন, এই ঘটনায় পাঁচটি পরিবারের সদস্যরা এখন খুবই অসহায় অবস্থায় রয়েছেন। এই পাঁচটি পরিবার এখন চরম অর্থকষ্টে দিনাতিপাত করছে।

প্রধানমন্ত্রী যদি এই পাঁচটি পরিবারকে যদি দিতেন তবে আমরা একটু উপকৃত হতাম। রায় কার্যকর না হওয়ায় আমরা এখন হতাশ হয়ে পড়েছি।”

২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলায় হাজিরা দিয়ে ফেরার পথে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ফতুল্লার লামাপাড়া থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র ও ২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম ও আইনজীবী চন্দন সরকারসহ সাতজন অপহৃত হন।

অপহরণের তিন দিন পর ৩০ এপ্রিল নজরুল ইসলামসহ ছয় জনের এবং ১ মে সিরাজুল ইসলাম লিটনের লাশ শীতলক্ষ্যা নদীর বন্দরের শান্তির চর থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এই ঘটনায় নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি ও নিহত আইনজীবী চন্দন সরকারের জামাতা বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে ফতুল্লা থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন।

বৈশাখেই পদ্মার ভাঙনের মুখে মুন্সীগঞ্জের নদীঘেঁষা গ্রামগুলো
                                  

শুষ্ক মৌসুমে পানি উন্নয়ন বোর্ড ব্যবস্থা না নেয়ায় বৈশাখেই পদ্মার ভাঙনের মুখে পড়েছে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং ও টঙ্গীবাড়ির নদীঘেঁষা গ্রামগুলো। এতে আতংকে আছেন প্রায় ১৫টি গ্রামের বাসিন্দারা।বৈশাখী বাতাসের সঙ্গে সঙ্গে পদ্মার ঢেউ আছড়ে পড়ছে তীরের জনপদে। ঠিকানা হারানোর শঙ্কায় দিন কাটে নদী তীরের মানুষের। জেলার লৌহজংয়ের খড়িয়া, দক্ষিণ হলদিয়া, কনকসার, সন্ধিসার, বেজগাঁও, গাঁওদিয়া, ডহরী, কলমা এবং টঙ্গীবাড়ির মূলচর, হাইয়ারপাড়, শরিষাবন, সাতপচর, ধানকোড়া ও কান্দারবাড়ি গ্রামে এখন ভাঙন আতঙ্ক।

পদ্মার ভাঙনে গত বর্ষায় লৌহজংয়ের ৯টি গ্রাম নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়। তাই শুস্ক মৌসুমে ভাঙনরোধে পানি উন্নয়ন বোর্ড কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় ক্ষোভ জানান ওইসব গ্রামবাসী।

ভাঙনরোধে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নসহ আগাম ব্যবস্থার কথা জানান মুন্সীগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মো. রকিবুল ইসলাম ও মুন্সীগঞ্জ-২ সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি।

পদ্মার ভাঙন থেকে উত্তর দিঘলী-বড় নওপাড়া-ভোজগাঁও চরের যেটুকু এখনো আছে, তার অস্তিত্বও যে কোনো সময় বিলীন হয়ে যেতে পারে।


   Page 1 of 83
     জাতীয়
আল-আকসা মসজিদে হামলার ঘটনায় বাংলাদেশের তীব্র নিন্দা
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্র থেকেও টিকা আনার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে মমতার চিঠি
.............................................................................................
আজ জুমাতুল বিদা
.............................................................................................
খালেদাকে বিদেশ নিতে তালিকায় আরও দুই দেশ
.............................................................................................
মমতাকে অভিনন্দন জানিয়ে শেখ হাসিনার চিঠি
.............................................................................................
ধান-চালের যৌক্তিক দাম নির্ধারণ করা হয়েছে: কৃষিমন্ত্রী
.............................................................................................
স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব জেলা শহরে গণপরিবহন চলবে: মালিক সমিতি
.............................................................................................
১২ মে আসছে চীনের উপহার ৫ লাখ টিকা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
শোকে বাবার জ্বলন্ত চিতায় ঝাঁপ দিলেন মেয়ে
.............................................................................................
বেঁচে থাকলে অনেক উৎসব করা যাবে: কাদের
.............................................................................................
গৃহকর্মী ধর্ষণ: সেই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী গ্রেফতার
.............................................................................................
আসতে পারে তৃতীয় ঢেউ, লকডাউনেও কাজ হবে না
.............................................................................................
সুন্দরবনে বাচ্চা ফুটেছে মহাবিপন্ন বাটাগুর বাসকার
.............................................................................................
সাত খুন: রায় কার্যকর নিয়ে ‘হতাশায়’ নিহতের স্বজনরা
.............................................................................................
বৈশাখেই পদ্মার ভাঙনের মুখে মুন্সীগঞ্জের নদীঘেঁষা গ্রামগুলো
.............................................................................................
সেমির লড়াইয়ে পিএসজি-ম্যানসিটি
.............................................................................................
প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের দেওয়া হবে জামা-জুতা-ব্যাগ কেনার টাকা
.............................................................................................
গুলশানের ফ্ল্যাট থেকে তরুণীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
ভালুকায় আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর পেল ১৯জন গৃহহীন পরিবার
.............................................................................................
রাজধানীতে পল্লবীতে আ.লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে হত্যা
.............................................................................................
রোববার থেকে দোকান-শপিংমল খোলা
.............................................................................................
লকডাউন শেষে যা যা বন্ধ রাখার পরামর্শ
.............................................................................................
শুধু ভবন পুড়েনি, পুড়ে গেছে একটি সাজানো পরিবার
.............................................................................................
উগ্র সাম্প্রদায়িক দানবের পৃষ্ঠপোষক বিএনপি’
.............................................................................................
ভাইয়ের নিথর দেহ নিয়ে বাড়ি ফিরল লিমন
.............................................................................................
রফিকুল মাদানী ফের ৭ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
আলেমরা নন, গ্রেপ্তার হচ্ছে দুষ্কৃতকারীরা: তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
পদ্মা–যমুনার মোহনায় ধরা পড়ল ৫১ হাজার টাকার কাতল
.............................................................................................
মামুনুল হক ৭ দিনের রিমান্ডে মঞ্জুর
.............................................................................................
আদালতে মামুনুল
.............................................................................................
গাজীপুরে শ্রমিক আনা-নেয়ায় পরিবহন ব্যবস্থা এখনো উপেক্ষিত
.............................................................................................
কবরীর জানাজা ও দাফনের স্থান নির্ধারণ
.............................................................................................
কোম্পানীগঞ্জে ফের উত্তেজনা, তিনটি বাস ভাঙচুর
.............................................................................................
হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছেন খালেদা জিয়া
.............................................................................................
শুক্রবার গ্যাস থাকবে না বেশ কিছু এলাকায়,
.............................................................................................
পুলিশের ‘মুভমেন্ট পাস’: ৩৩ ঘণ্টায় ওয়েবসাইটে হিট আট কোটি
.............................................................................................
লকডাউনের মধ্যেও চলবে টিসিবির পণ্য বিক্রি
.............................................................................................
বাংলাদেশের মানুষ খেতে পায় না, তাই ভারতে আসে’, বক্তব্যের কড়া জবাব
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার করোনা শনাক্ত
.............................................................................................
মামুনুলের কথিত স্ত্রী জান্নাতের নিরাপত্তা চেয়ে ছেলের জিডি
.............................................................................................
বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দিতে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
১৪ এপ্রিল থেকে দেশব্যাপী এক সপ্তাহের লকডাউন
.............................................................................................
করোনা মোকাবেলায় ‘সর্বদলীয় কমিটি‘ গঠনের প্রস্তাব
.............................................................................................
লকডাউন’ আরও বাড়বে কিনা, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
.............................................................................................
করোনায় আক্রান্ত গাজীপুরের জেলা প্রশাসক
.............................................................................................
শীতলক্ষ্যায় ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার, মৃতের সংখ‌্যা বেড়ে ২৭
.............................................................................................
মামুনুল হকের বিরুদ্ধে মামলা
.............................................................................................
লকডাউনে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার দাবি
.............................................................................................
মমতাকে খালেদা জিয়ার সাথে তুলনা শুভেন্দুর!
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এম.এ মান্নান
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ হাজী মোবারক হোসেন।। সহ-সম্পাদক : কাউসার আহম্মেদ।
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ খন্দকার আজমল হোসেন বাবু। র্বাতা সম্পাদক আবু ইউসুফ আলী মন্ডল, ফোন ০১৬১৮৮৬৮৬৮২

ঠিকানাঃ বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়- নারায়ণগঞ্জ, সম্পাদকীয় কার্যালয়- জাকের ভিলা, হাজী মিয়াজ উদ্দিন স্কয়ার মামুদপুর, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ। শাখা অফিস : নিজস্ব ভবন, সুলপান্দী, পোঃ বালিয়াপাড়া, আড়াইহাজার, নারায়ণগঞ্জ-১৪৬০, মোবাইল : 01731190131, 01930226862, E-mail : mannannews0@gmail.com, web: notunbazar71.com, facebook- notunbazar / সম্পাদক dhaka club
    2015 @ All Right Reserved By notunbazar71.com

Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop