| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   তথ্য -প্রযুক্তি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ফেসবুকে ফেরানো যাবে ডিলিট হওয়া পোস্ট

পোস্ট ডিলিট বা ডিলিট হওয়া পোস্ট ফেরানোর ক্ষেত্রে এবার যে কেউ ফেসবুকের স্বাধীন কমিটি ‘ওভারসাইট বোর্ডে’র কাছে আবেদন করতে পারবেন। মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) ফেসবুকের পক্ষ থেকে এ কথা জানানো হয়। এর আগে আপত্তিকর কোনো পোস্ট নিয়ে কেবল রিপোর্ট করা যেত, তার পরেও সেই পোস্ট থেকে গেলেও কার্যত কিছু করা যেত না। আর একবার পোস্ট ডিলিট হয়ে গেলে তা আর ফেরানোর উপায় ছিল না ব্যবহারকারীদের হাতে। বুধবার (১৪ এপ্রিল) থেকেই ব্যবহারকারীদের হাতে নতুন অপশন আছে।

কোনো পোস্ট বা কমেন্ট নিয়ে কারো আপত্তি থাকলে সেই পোস্ট সরানোর জন্য ওভারসাইট বোর্ডের কাছে আবেদন করলে বোর্ড তা বিবেচনা করে পদক্ষেপ নেবে। আবার কোনো পোস্ট যদি ফেসবুক সরিয়ে দেয়, কিন্তু ব্যবহারকারী মনে করছে ওই পোস্ট সরানো উচিত হয়নি ফেসবুকের; সে ক্ষেত্রে ওই পোস্টটি ফেরানোর জন্য ওভারসাইট বোর্ডের কাছেও আবেদন করা যাবে। সেক্ষেত্রে আবেদনকারীকে একটি আইডি দেওয়া হবে। যার মাধ্যমে পোস্ট ফেরানোর জন্য কী সিদ্ধান্ত নিচ্ছে ওভারসাইট বোর্ড, তা জানিয়ে দেওয়া হবে।

গত বছর ফেসবুক এই স্বশাসিত কমিটি তৈরি করে। ওভারসাইট বোর্ডে ২০ জন সদস্য রয়েছেন। এই বছর জানুয়ারিতেই ওভারসাইট বোর্ড ১৭ দফা প্রস্তাব রাখে ফেসবুকের কাছে। তার পরই পোস্ট ডিলিটের আবেদন বা তা ফেরানোর ক্ষেত্রে এই সিদ্ধান্তের কথা জানাল ফেসুবক।

ফেসবুকে ফেরানো যাবে ডিলিট হওয়া পোস্ট
                                  

পোস্ট ডিলিট বা ডিলিট হওয়া পোস্ট ফেরানোর ক্ষেত্রে এবার যে কেউ ফেসবুকের স্বাধীন কমিটি ‘ওভারসাইট বোর্ডে’র কাছে আবেদন করতে পারবেন। মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) ফেসবুকের পক্ষ থেকে এ কথা জানানো হয়। এর আগে আপত্তিকর কোনো পোস্ট নিয়ে কেবল রিপোর্ট করা যেত, তার পরেও সেই পোস্ট থেকে গেলেও কার্যত কিছু করা যেত না। আর একবার পোস্ট ডিলিট হয়ে গেলে তা আর ফেরানোর উপায় ছিল না ব্যবহারকারীদের হাতে। বুধবার (১৪ এপ্রিল) থেকেই ব্যবহারকারীদের হাতে নতুন অপশন আছে।

কোনো পোস্ট বা কমেন্ট নিয়ে কারো আপত্তি থাকলে সেই পোস্ট সরানোর জন্য ওভারসাইট বোর্ডের কাছে আবেদন করলে বোর্ড তা বিবেচনা করে পদক্ষেপ নেবে। আবার কোনো পোস্ট যদি ফেসবুক সরিয়ে দেয়, কিন্তু ব্যবহারকারী মনে করছে ওই পোস্ট সরানো উচিত হয়নি ফেসবুকের; সে ক্ষেত্রে ওই পোস্টটি ফেরানোর জন্য ওভারসাইট বোর্ডের কাছেও আবেদন করা যাবে। সেক্ষেত্রে আবেদনকারীকে একটি আইডি দেওয়া হবে। যার মাধ্যমে পোস্ট ফেরানোর জন্য কী সিদ্ধান্ত নিচ্ছে ওভারসাইট বোর্ড, তা জানিয়ে দেওয়া হবে।

গত বছর ফেসবুক এই স্বশাসিত কমিটি তৈরি করে। ওভারসাইট বোর্ডে ২০ জন সদস্য রয়েছেন। এই বছর জানুয়ারিতেই ওভারসাইট বোর্ড ১৭ দফা প্রস্তাব রাখে ফেসবুকের কাছে। তার পরই পোস্ট ডিলিটের আবেদন বা তা ফেরানোর ক্ষেত্রে এই সিদ্ধান্তের কথা জানাল ফেসুবক।

ছাগল চুরির ঘটনায় জড়িত নন, দাবী সাবেক ছাত্রলীগ নেতার
                                  

মাদারীপুরে প্রাইভেটকারে ছাগল চুরির ঘটনায় জড়িত নন দাবী করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি তুহিন দর্জি। সোমবার (০৮ মার্চ) সন্ধ্যায় শহরের ইটেরপুল এলাকায় নিজ বাসভবন প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এই বিষয়টি তুলে ধরেন। সংবাদ সম্মেলনে ছাগল চুরির ঘটনার মামলার বাদী ও অন্য আসামিরাও উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে তুহিন দর্জি দাবী করেন, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ছাগল চুরির ঘটনায় তাকে ফাঁসিয়ে মামলায় আসামি করতে বাদীকে চাপ প্রয়োগ করেছেন। আসামির তালিকায় তার নাম না দিতে চাইলেও অন্য একটি মহলের কারণে তাকে আসামি করা হয়েছে। 

তবে তুহিন দর্জি জানান, অন্য কয়েকজন দুষ্টুমি করে একটি ছাগল নিয়ে যাবার চেষ্টা করে। বিষয়টি বুঝতে পেরে সেই চুরি করা ছাগল মালিকের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার সময় পুলিশ তাকে আটক করে। পরে বিষয়টি নিয়ে নানা দিক থেকে আপত্তিকর কথাবার্তা ছড়িয়ে পড়ে।

নিজেকে নির্দোষ দাবী করে তুহিন দর্জি বলেন, মূলত সম্মানহানি করার জন্যই ষড়যন্ত্র করে এ কাজ করা হয়েছে। যে হাস্যকর মামলায় ফাঁসানো হয়েছে তা সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিত। এ ঘটনার সঠিক তদন্তের মাধ্যমে ছাত্রলীগের হারানো পদ ফিরে পাবার দাবী জানিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ০৪ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকেলে সদর উপজেলার পখিরা এলাকায় ছাগল চুরির ঘটনা ঘটে। এ সময় একটি প্রাইভেটকার থেকে চুরি হওয়া ছাগল উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে তুহিন দর্জি ও তার চার সহযোগী জুবায়ের হাওলাদার, রানা বেপারী, রবিউল ইসলাম ও মাহবুব তালুকদারকেও আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় সদর মডেল থানায় ছাগল চুরির অভিযোগ এনে ৫ জনের নামে লোকমান মালোত নামে এক কৃষক মামলা দায়ের করেন। 

পরদিন শুক্রবার বিকেলে জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে আসামিদের হাজির করা হলে বিচারক সাইদুর রহমান ৫ জনকেই কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন। 

এদিকে এ ঘটনায় তুহিন দর্জিকে জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। তুহিন দর্জি শহরের ইটেরপুল এলাকার ও জেলা ইমারত শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ও সদর ঘটমাঝি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জাকির দর্জির ছেলে।

ফোন থেকে দ্রুত সরিয়ে নিন ভয়ংকর এই অ্যাপগুলো
                                  

প্রতারক অ্যাপের পাল্লায় পড়েছেন কখনও? উত্তরটা হয়তো আপনার জানা নেই। তার থেকেও বড় কথা হল, প্রতারক অ্যাপের খপ্পড়ে পড়লে আপনাকে তারা মালুমই চলতে দেবে না। ঠিক তখনই জানতে পারবেন, যখন আর কিছুই করার থাকবে না। এমনই বহু অ্যাপস রয়েছে, যেগুলি আপনার মোবাইলে ঘাপটি মেরে লুকিয়ে থেকে প্রতিনিয়ত ক্ষতিসাধন করেই চলেছে। এমনই ৩৭টি অ্যাপ সরিয়ে দিয়েছে গুগোল। ইউজারদেরও অ্যাপগুলি সরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করছে এই টেক জায়ান্ট। কিছু দিন আগেই এক নাগাড়ে ১৬৪টি অ্যাপস প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে দিয়েছিল গুগোল। প্রায় ১০ কোটিরও বেশি ডাউনলোড হয়েছিল সেই সব অ্যাপের। এগুলিকে বলা হয় CopyCatz অ্যাপ।গ্যাজেটস নাউয়ের খবরে বলা হয়েছে, এই অ্যাপগুলির কাজ হল ইউজারদের স্মার্টফোনের খুব প্রয়োজনীয় কিছু অ্যাপসের প্রতিলিপি তৈরি করা। ইউজারেরা জরুরি অ্যাপগুলি যখন খোলেন, তখন সেই প্রতারক বা ভুয়ো অ্যাপগুলি ইউজারদের অপ্রত্যাশিত কিছু বিজ্ঞাপন দেখাতে শুরু করে। এই অ্যাপস যে বিজ্ঞাপনগুলি দেখায়, সেগুলি আসলে ম্যালওয়্যার দ্বারা প্রভাবিত এবং বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গেই গ্রাহকদের ফোনে ঢুকে যেতে পারে ম্যালওয়্যার। আর একবার আপনার ফোনে ম্যালওয়্যার ঢোকার পরিণতি যে কী হতে পারে, তা বোধহয় আর বলার প্রয়োজন নেই। সর্বস্বান্ত অবধি হতে পারেন!

এই অ্যাপগুলির আগে প্লে-স্টোর থেকে মোট ১০০টি ইনস্ট্যান্ট লোন অ্যাপ রিমুভ করেছিল গুগোল। এই অ্যাপগুলি ইউজারদের জরুরি তথ্য চুরি করে এবং তার অপব্যবহার করে সেই ইউজারকেই ভয় দেখায়। এমনকী ডার্ক ওয়েবে গ্রাহকেদর তথ্য শেয়ারের নামে ব্ল্যাকমেলও করা হয়। বেশ কিছু ইউজারদের কাছ থেকে এমনতর তথ্য পাওয়ার পরই ইনস্ট্যান্ট লোনের ফেক অ্যাপগুলি সম্পর্কে রিপোর্ট তৈরি করেছিল কেন্দ্র। তারপর সেগুলি সরিয়ে দিতেও খুব একটা দেরি করা হয়নি।

কোনও ইউজারের ফোনে যদি আগে থেকেই অ্যাপগুলি ডাউনলোড করা থাকে তাহলে দ্রুত অ্যাপগুলো ডিলিট করে দিন। আসুন জেনে নিই সেই ৩৭টি অ্যাপের নাম-

1) Wifi Key - Free Master Wifi
2) Super Phone Cleaner 2020
3) Repair System For Android & Speed Booster
4) Secure Gallery Vault: Photos, Videos Privacy Safe
5) Ringtone maker - Mp3 cutter
6) Name Art Photo Editor
7) Smart Cleaner-Battery Saver
8) Super Booster
9) Rain Photo Maker - Rain Effect Editor
10) Chronometer
11) Loudest alarm clock ever
12) Ringtone Maker Ultimate New Mp3 Cutter
13) Video Music Cutter & Merge Studio
14) Wifi File Transfer 2019
15) Wifi Speed Test
16) WPS WPA Wifi Test
17) Lock app with Password - Applock All App Protector
18) Photo Editor Awesome Frame Effects 3D
19) Lovedays Memory 2020 - Love Counter Together
20) Magnifier Zoom + Flashlight
21) Max Cleaner - Speed Booster Pro 2021
22) Motocross Racing 2018
23) Nox Cool Master - Cool Down 2020
24) OS 13 Launcher - Phone 11 Pro Launcher
25) OS Launcher 12 for iPhone X
26) Battery Saver Pro 2020 - New Power Saver
27) Block Puzzle 102 New Tentris Mania
28) DJ Mixer Studio 2018
29) GPS Speedometer
30) Graffiti Photo Editor - Graffiti Creator
31) iSwipe Phone X
32) 3D Photo Editor
33) 3D Tattoo Photo Editor & Ideas
34) Applock 2020 - App Locker & privacy guard
35) AppLock New 2019 – Privacy Zone & Lock your apps
36) Assistive Touch 2020
37) Audio Video Editor এবং Audio Video Mixe

মৃত্যুর পর কী হবে আপনার গুগল অ্যাকাউন্টের?
                                  

মৃত্যু এমন এক বিষয় কখন কিভাবে আসতে পারে তা কেউ বলতে পারে না। মানুষের নিজের হাতে থাকে না এই বিষয়টি। তবে যেটি মানুষের হাতে থাকে তার কি হতে পারে! এই যেমন আপনার Google অ্যাকাউন্ট। যেখানে জীবনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সেভ করা থাকে। হঠাৎ যদি কোনও কারণে আপনার মৃত্যু হয়, তাহলে কী হবে সেই অ্যাকাউন্টের? আপনার গোপনীয় তথ্য, ছবি, ইমেল ছাড়াও Google অ্যাকাউন্টে এমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সেভ করা থাকে, যেগুলি একান্তই ব্যক্তিগত। কিন্তু মৃত্যুর পর সেগুলির কী হবে? অন্য কারও হাতে পৌঁছে যাবে? এমন কাণ্ড যাতে না ঘটে, তা নিশ্চিত করতে সম্প্রতি নতুন এক ফিচার নিয়ে হাজির হয়েছে Google। সেই ফিচারটির নাম Inactive Account Manager। নতুন এই ইনঅ্যাকটিভ অ্যাকাউন্ট ম্যানেজার ফিচারের সাহায্যে মৃত্যুর পর আপনার Google অ্যাকাউন্টের কী হবে তা এখন থেকেই ঠিক করে রাখতে পারেন।কাউন্ট ব্যবহার বন্ধ করলে Google-এর সেভ থাকা তথ্যের কী হবে, তা-ও এখন থেকেই ঠিক করতে পারবেন আপনি। নির্দিষ্ট দিনের জন্য অ্যাকাউন্ট ব্যবহার না করলে, আপনি যে কোনও প্রিয়জনকে সেই বিষয়ে নোটিফাই করতে পারবেন। এছাড়াও আপনার সব তথ্য Google-কে ডিলিট করে দেওয়ার অনুরোধও জানানো যাবে। এর ফলে নির্দিষ্ট সময় আপনি অ্যাকাউন্ট ব্যবহার না করলেও, আপনার অ্যাকাউন্টের সব ডাটা ডিলিট করে দেবে Google।

Inactive Account Manager কীভাবে সেটআপ করবেন ?

* ব্রাউজার খুলুন এবং তারপরে https://myaccount.google.com/ -এ ক্লিক করুন।

* বাঁ দিকে Data & Personalization অপশনে ক্লিক করুন।
Google account settings

* স্ক্রল ডাউন করে `Download, delete, or make a plan for your data` অপশনে ক্লিক করুন।
Google account

* এবার Make a plan for your account অপশনে ক্লিক করে Start বাটনে ট্যাপ করুন।
Inactive account manager

* এর পর কতদিন অ্যাকাউন্ট ব্যবহার না করলে তা ইনঅ্যাকটিভ হবে, সিলেক্ট করুন।

* তার জন্য পেনসিল আইকনে ক্লিক করে ৩ মাস থেকে শুরু করে ৬ মাস, ১২ মাস বা ১৮ মাস পর্যন্ত সময় সিলেক্ট করা যাবে।

Google account inactive

* এবার একটি ফোন নম্বর অ্যাড করুন। অ্যাকাউন্টের তথ্য ডিলিট করার আগে এই নম্বরে মেসেজ করে পাঠাবে Google।

* ১০ জন মানুষকেও সিলেক্ট করতে পারবেন। এই মানুষদের আপনি নিজের ব্যক্তিগত তথ্যর কিছু অংশ শেয়ার করতে পারবেন।

* তার জন্য আপনাকে Add Person সিলেক্ট করে তাঁদের ইমেল অ্যাড্রেস দিতে হবে। এছাড়াও আর কী কী তথ্য শেয়ার করতে চান তা-ও সিলেক্ট করুন।

* এবার তাঁদের ফোন নম্বর এন্টার করে সেভ করুন। এছাড়াও চাইলে আপনি ব্যক্তিগত মেসেজ যোগ করতে পারবেন। অ্যাকাউন্ট সেট আপের সময় কন্টাক্টের কাছে কোনও মেসেজ যাবে না।

* তার ঠিক পরেই সাবজেক্ট অ্যাড করে সেভ করুন।

* Next সিলেক্ট করে `Yes, delete my inactive Google Account` টগল এনাবল্ করুন। এর পর নির্দিষ্ট সময়ে আপনার অ্যাকাউন্ট ডিলিট হয়ে যাবে।
Review plan

* চাইলে আপনি অ্যাকাউন্ট ডিলিট না করার সিদ্ধান্তও নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে টগলটি ডিসেবল্ রাখতে হবে।

Confirm plan

* এবার সব কাজ ঠিকঠাক করলে কী না, তা যাচাই করতে প্রথমে Review Plan-এ ক্লিক করুন। তার পরে সেভ করতে Confirm Plan-এ ক্লিক করুন।

* নির্দিষ্ট সময়ের পরে আপনি চাইলে আপনার অ্যাকাউন্টের সব তথ্য ডিলিট করে দেবে Google।

চলতি বছরেই দেশে আসছে ফাইভ জি
                                  

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ ৫জি চালু করতে যাচ্ছে। আর এ বছরেই সারা দেশ ৪জি নেটওয়ার্কের কাভারেজে যাচ্ছে।শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) চতুর্থ শিল্প বিপ্লব: বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট শীর্ষক সেমিনারে অনলাইনে যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশের (আইইবি) উদ্যোগে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের উপাচার্য অধ্যাপক প্রকৌশলী ড. মুহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম। সভাপতিত্ব করেন আইইবির প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো. নূরুল হুদা।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ২৩ সালে আসছে তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল। ২১ সালেই হাওড়-বিল-চর পার্বত্য অঞ্চল ক্যাবল/স্যাটেলাইট সংযোগের আওতায় চলে আসবে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লব অথবা তার পরের সময়ের জন্য ডিজিটাল সংযুক্তির জন্য যতটুকু প্রস্তুতির দরকার আমরা তা শেষ করেছি, এক্ষেত্রে যে সব ত্রুটি আছে তা চলতি বছরের মধ্যে দূর হয়ে যাবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি কেবল চতুর্থ শিল্প বিপ্লবেই সীমিত নয় মন্তব্য করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ৭৩ সালে আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন্স ইউনিয়ন ও ইউপিইউর সদস্যপদ অর্জন এবং ৭৫ এর ১৪ জুন বেতবুনিয়ায় উপগ্রহ ভূ-কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার মধ্যদিয়ে জাতির পিতা ডিজিটালাইজেশনের বীজ বপণ করে গেছেন।

শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তরের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন মোস্তাফা জব্বার বলেন, প্রাথমিক স্তর থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত প্রযুক্তিশিক্ষা বাধ্যতামূলক করতে হবে। আমাদের তরুণ প্রজন্ম খুবই মেধাবী তাদের আগামী দিনের সম্পদে পরিণত করতে হবে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য নিরবচ্ছিন্ন বিদুৎ সরবরাহের গুরুত্ব অনেক। আমরা ইতোমধ্যে সেই প্রস্তুতি শেষ করতে পেরেছি।

তথ্য ও যোগোযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য দক্ষ জনসম্পদ জরুরি। এ লক্ষ্যে ৩৯টি হাইটেক পার্ক নির্মাণসহ যুগান্তকারী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও আইইবি`র সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী আবদুস সবুর, আইইবি`র সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী শাহাদাৎ হোসেন (শীবলু), পিইঞ্জ, আইইবি`র ভাইস প্রেসিডেন্ট (এইচআরডি) প্রকৌশলী মো. নূরুজ্জামান।

মহামারিতেও দমেনি নারী উদ্যোক্তারা
                                  

মহামারির মধ্যেও নারী উদ্যোক্তারা ই কমার্সের মাধ্যমে ভালো ব্যবসা করেছেন যা দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। রাজধানীর পূর্বাচল ক্লাবে ২ দিনব্যাপী উইমেন অ্যান্ড ই- কমার্সের উদ্যোগে ` উই কালারফুল ফেষ্ট` আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

তিনি আরও বলেন, নারী উদ্যোক্তাদের জন্য সহায়ক ব্যবসার পরিবেশ তৈরিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সরকার। 

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী ও  আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।হাইকমিশনার বলেন, নারী উদ্যোক্তাদের জন্য একটি উপযুক্ত আর্থিক লেনদেন ব্যবস্থা চালু করতে হবে। নারীরা যেভাবে কাজ করছেন এতে করে বাংলাদেশ অনেক বেশি এগিয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, ভারত সরকারের পক্ষ থেকে তারা একটা অনুদানের ব্যবস্থা করবে উই এর নারীদের জন্য। 

আর আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, 4G নেটওয়ার্ক ব্যবহারের মাধ্যমে নারীরা শুধুমাত্র উদ্যোক্তা নন তাদের ক্রিয়েটিভিটিকে  তুলে ধরছে। ৫ লাখ নারীদের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি নারীদের জন্য অনুদান, অফিস এবং আরও নতুন নতুন সুযোগ নিয়ে আসবে সরকার। তার জন্য সব থেকে বেশি অগ্রাধিকার পাবে উই এর নারীরা।

২০০০ নারী উদ্যোক্তাকে উইমেন ই- কর্মাসের মাধ্যমে ১০ কোটি টাকা সহায়তা দেবে সরকার।বক্তারা বলেন বাংলাদেশ বিনির্মাণে নারীদের শতভাগ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। এবং  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে নারীরা স্বাধীনভাবে কাজ করে যেতে পারছে।

নতুন আইফোনে থাকছে নচ
                                  

তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক : প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপল ২০১৭ সালে প্রথম তাদের আইফোনে নচ ডিজাইনের সূচনা করে। আইফোন ১০ থেকে শুরু, এখনই নচ বাদ দেয়নি অ্যাপল। জানা গেছে, আইফোনের নতুন সংস্করণেও নচ থাকবে।

আইফোন থেকে নচ বাদ দেয়া হবে বলে ২০১৯ সালে দক্ষিণ কোরিয়ায় এক রিপোর্টে জানানো হয়েছিল। তখন ডিসপ্লেতে কাটা অংশকে ডিজাইনের মধ্যে নয়, বরং প্রযুক্তিগত সীমাবদ্ধতা মনে করেছিল অ্যাপল। তবে ৩ বছর আগের সেই ডিজাইন এবারও আনবে অ্যাপল।

আগামী বছর আইফোন ১৩ মডেলেও এই নচ দেখা যাবে। তবে নচের আকার সরু হয়ে আসবে বলে জানিয়েছে টুইটার অ্যাকাউন্ট আইস ইউনিভার্স। নচ ডিজাইনকে মডিফাই করে অন্যান্য ফোন কোম্পানি বের করেছে ওয়াটার ড্রপ, ওভাল শেপ ও পাঞ্চহোল নচ।

কিছু কোম্পানি ডিসপ্লেকে সুন্দর রাখতে পপ আপ ক্যামেরাও এনেছে। আগামীতে প্রচলন ঘটবে আন্ডার ক্যামেরা ডিসপ্লের। সে ক্ষেত্রে নচ ব্যবহারের কোনো প্রয়োজন থাকবে না।

৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ রমসহ ৬৪ মেগাপিক্সেলের রিয়েলমি ৭ আই
                                  

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি 

দুনিয়াটাকে হাতের মুঠোয় নিয়ে এসেছে স্মার্টফোন। ল্যাপটপে সিনেমা দেখা কিংবা ঘুরতে বেরোলে ভারী ক্যামেরা নিয়ে যাওয়ার দিন অনেকটাই শেষ হয়ে এসেছে।

স্মার্টফোনের ক্রিস্টাল ক্লিয়ার ডিসপ্লে আর অনন্য ক্যামেরায় সব কিছুই এখন পকেটে। আর নান্দনিক ডিজাইনে, অত্যাধুনিক সব ফিচারে, আকর্ষণীয় দামে ফোন এনে তরুণদের মন জয় করে নিচ্ছে রিয়েলমি।

সম্প্রতি টেক-ট্রেন্ডসেটার ব্র্যান্ডটি ৯০ হার্টজের আল্ট্রা-স্মুথ ডিসপ্লে, এই প্রাইস রেঞ্জের সর্বপ্রথম ৬৪ মেগাপিক্সেলের কোয়াড ক্যামেরায় মাত্র ১৮,৯৯০ টাকায় বাজারে এনেছে রিয়েলমি ৭ আই।

চলুন দেখে নেয়া যাক, মিড লেভেলের এই স্মার্টফোনে আর কী কী সুবিধা আছে।

হাতের মুঠোয় প্রফেশনাল ক্যামেরা

প্রফেশনাল ক্যামেরা পকেটে নিয়েই ঘোরার সুযোগ করে দিয়েছে রিয়েলমি। রিয়েলমি ৭ আই-তে আছে এই প্রাইস রেঞ্জের সর্বপ্রথম ৬৪ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা-ক্লিয়ার কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ।

৬৪ মেগাপিক্সেলের মূল ক্যামেরার সঙ্গে আছে ৮ মেগাপিক্সেলের ১১৯ ডিগ্রির আল্ট্রা-ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা, ২ মেগাপিক্সেলের একটি ম্যাক্রো লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেলের একটি সাদা-কালো পোর্ট্রেট লেন্সের সমন্বয়ে এই সেটআপে প্রতিটি মুহূর্তের চমৎকার ছবি তোলা যাবে।

মূল ক্যামেরার সেন্সর সাইজ ১/২-ইঞ্চি ও এফ/১.৮-এর বড় অ্যাপারচার থাকায় অল্প আলোতেও পরিষ্কার, উজ্জ্বল ছবি তোলা যাবে।

ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্সে প্রাকৃতিক দৃশ্য, স্থাপত্য এবং গ্রুপ ছবি তোলা হবে আরও সহজ। আল্ট্রা-ম্যাক্রো লেন্সের সঙ্গে মাত্র ৪ সেন্টিমিটার দূর থেকে ছবি তুলতে পারায় সহজেই হারিয়ে যেতে পারবেন ম্যাক্রো জগতে। চমকপ্রদ কিছু নতুন কালার ফিল্টারে প্রতিটি পোর্ট্রেটে পাওয়া যাবে চমৎকার ডিটেইলস আর অসাধারণ টেক্সচার।

নাইটস্কেপ মোডে আছে ৩টি দুর্দান্ত ফিল্টার– সাইবারপাঙ্ক, ফ্লেমিঙ্গো ও মডার্ন গোল্ড। ভিন্নধর্মী এ ইফেক্টগুলোতে রাতের ছবিতে দেবে নতুন এক নান্দনিকতা। পাশাপাশি দিনের আলোতে এ ইফেক্টগুলো ব্যবহারে মিলবে নতুনত্ব।

এর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেলের সনি ইন-ডিসপ্লে আইএমএক্স ৪৭১ সেন্সর। এর এফ/২.১ বড় অ্যাপারচার, এআই বিউটিফিকেশন, বোকেহ ইফেক্টে যে কোনো সময়েই চমৎকার সেলফি তোলা যাবে। আছে এইচডিআর এবং ইআইএস স্টেবিলাইজেশনও। ক্যামেরায় থাকা সিনেমা মোডে প্রো-লেভেলে ভিডিও করার সুবিধা থাকায় সিনেমাটিক ভ্লগিংকে আরও অনুপ্রাণিত করবে।

এ ছাড়া ক্যামেরায় আরও আছে– এইচডিআর, ফ্রন্ট প্যানোরামা, ইউআইএস স্ট্যাবিলাইজেশন, সুপার নাইটস্কেপ মোড ও ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও করার সুবিধা।

৯০ হার্টজ আল্ট্রা স্মুথ ডিসপ্লেতে বিনোদন বাড়বে বহুগুণ

রিয়েলমি ৭ আই-এর ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের কারণে গেমিং বা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার কিংবা ভিডিও, মুভি দেখায় আরও আনন্দ মিলবে।

৭ আই-তে উচ্চ রিফ্রেশ রেট প্রচলিত ৬০ হার্টজের ডিসপ্লের তুলনায় ৫০ শতাংশ বেশি, পাশাপাশি ১২০ হার্টজের স্যাম্পলিং রেটে প্রতিটি সোয়াইপ হবে আরও স্মুথ। ডিসপ্লের ৬০০ নিট পর্যন্ত উজ্জ্বলতায় প্রচণ্ড আলোতেও সহজেই ফোন ব্যবহার করা যাবে।

রিয়েলমি ৭ আই-এর ৬.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লের স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও অনুপাত ৯০ শতাংশ। এ ডিভাইসটির ডিসপ্লে ব্যবহারকারীর চোখকে সুরক্ষিত রাখবে। ফলে ব্যবহারকারী দীর্ঘসময় ধরে অনায়াসে ডিভাইসটি ব্যবহার করতে পারবে। শক্তিশালী চিপসেটে গেমিং ও কাজে অনন্য গতি রিয়েলমি ৭ আই-তে আছে শক্তিশালী এবং আরও কার্যকর ১১ ন্যানোমিটারের স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ প্রসেসর, ক্রায়ো ২৬০ সিপিইউ ও অ্যাড্রেনো ৬১০ জিপিইউ।

এর সঙ্গে ৮ গিগাবাইট এলপিডিডিআর ৪এক্স র্যাকম স্মার্টফোনে দেবে ২.০ গিগাহার্টজ পর্যন্ত গতি।

১২৮ গিগাবাইটের ইন্টারনাল স্টোরেজের সঙ্গে আছে এসডি কার্ডের ব্যবহারে ২৫৬ গিগাবাইট পর্যন্ত স্টোরেজ বাড়ানোর সুবিধা। আর নিরবচ্ছিন্ন ব্যবহারে আনন্দ জোগাবে রিয়েলমি ইউআই।

এ ছাড়া ফাস্ট ফিঙ্গারপ্রিন্ট আনলক তো আছেই। পাশাপাশি অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে পানি ঢোকার হাত বাঁচাতে প্রতিটি পোর্টেই আছে সিলিকোনের ওয়াটারপ্রুফিং।

৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারিতে অবারিত আনন্দ

নন-স্টপ স্মার্টফোন ব্যবহারের জন্য রিয়েলমি ৭ আই-তে আছে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের বিশাল ব্যাটারি। আর এই ব্যাটারিকে কুইক চার্জ দেয়ার জন্য থাকছে ১৮ ওয়াটের কুইক চার্জ, যা দিয়ে মাত্র ৩০ মিনিটের এর বিশাল ব্যাটারির ৩৩ শতাংশ চার্জ করা যায়।

অল্প ব্যবহৃত অ্যাপ্লিকেশনগুলো ব্যাকগ্রাউন্ডে থেকে যেন পাওয়ার কনজাম্পশন না করে, সে জন্য আছে অ্যাপ কুইক ফ্রিজ। এ ছাড়া স্ক্রিন ব্যাটারি অপটিমাইজেশন স্বয়ংক্রিভাবে ডিসপ্লে ইফেক্ট কমিয়ে ব্যাটারির ওপর চাপ কমাবে।

সুপার পাওয়ার সেভিং মোডে মাত্র ৫% শতাংশ ব্যাটারি ব্যবহারে প্রায় ১.১ ঘণ্টা হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা যাবে।

হালের তরুণদের লাইফস্টাইলকে আরও সমুন্নত করতে রিয়েলমি ৭ আই-তে আনা হয়েছে নতুনত্ব। মিরর ডিজাইনের ফোনটি অরোরা গ্রিন ও পোলার ব্লু– এ দুটি ব্যতিক্রমী রঙে দেশের সব স্মার্টফোন স্টোরসহ অনলাইনে এর মাত্র ১৮,৯৯০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি ৭ আই।

স্থায়ীভাবে বাড়ি থেকে কাজ করবেন মাইক্রোসফট কর্মীরা
                                  

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : করোনা মহামারি শেষ হওয়ার পরও স্থায়ীভাবে বাড়ি থেকে কাজ করার সুযোগ পাবেন মাইক্রোসফট কর্মীরা। পরিচালকের অনুমতি সাপেক্ষে মাইক্রোসফটের বিভিন্ন অফিসের কর্মীরা এই সুবিধা পাবেন।

মার্কিন টেক জায়ান্ট ফেসবুক এবং টুইটারকে অনুসরণ করে মাইক্রোসফট এমন উদ্যোগ নিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মাইক্রোসফট বলেছে, কিছু কাজের জায়গায় সশরীরে উপস্থিতি প্রয়োজন। যেমন- হার্ডওয়্যার অ্যাক্সেসের জন্য কর্মীর প্রয়োজন রয়েছে। তবে অনেক কর্মচারী তাদের পরিচালকদের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক অনুমোদনের প্রয়োজন ছাড়াই খণ্ডকালীন বাসা থেকে কাজ করতে পারবেন।

মাইক্রোসফট এক মুখপাত্র নতুন দিকনির্দেশনা সম্পর্কে বলেছেন, আমাদের লক্ষ্য হল কাজগুলোকে আরও বিকশিত করতে হবে। এই নতুন নির্দেশিকা যুক্তরাজ্যের কর্মীদের জন্যও প্রযোজ্য হবে।

মার্কিন পরিসংখ্যান অফিসের তথ্য মতে, এপ্রিল পর্যন্ত নিযুক্তদের মধ্যে ৪৬ শতাংশেরও বেশি বাড়ি থেকে কাজ করছিলেন। অনেক নিয়োগকারী সংস্থা প্রাথমিকভাবে এই ধারণাটির প্রশংসা করেছিলেন। কিন্তু মাসগুলো কেটে যাওয়ার সাথে সাথে এর কিছু ত্রুটি উঠে আছে।

দেশে `করোনা ট্রেসার বিডি` অ্যাপ চালু
                                  

নতুনবাজার ডেস্কঃ

কভিড-১৯ মহামারির বিস্তার রোধে সারাদেশের নাগরিকেদের জন্য পরীক্ষামূলকভাবে একটি স্মার্টফোন অ্যাপ চালু করেছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। গতকাল বৃহস্পতিবার অনলাইন প্ল্যাটফর্মে ‘করোনা ট্রেসার বিডি’ শীর্ষক অ্যাপটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

করোনা ট্রেসার বিডি অ্যাপটি ব্লুটুথ ও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে দুজন ব্যবহারকারীর কাছাকাছি থাকার সময় ও ব্যবহারকারীদের অবস্থান সুরক্ষিতভাবে সংরক্ষণ করে রাখবে। যখনই অন্য কোনো অ্যাপ ব্যবহারকারী একটি নির্দিষ্ট দূরত্বের মধ্যে আসবে তখনই অ্যাপ দুটি নিজেদের মধ্যে ‘ডিজিটাল হ্যান্ডশেক’ করে প্রয়োজনীয় তথ্য সুরক্ষিতভাবে আদান-প্রদান করবে।গুগল প্লে স্টোর থেকে ‘করোনা ট্রেসার বিডি’ অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে অথবা সরাসরি স্মার্টফোন থেকে (https://play.google.com/store/apps/details?id=com.shohoz.tracer) লিংকে ক্লিক করেও অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রযুক্তি নির্ভর ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অভিযাত্রায় আইসিটি অবকাঠামো ব্যবহার করে সমস্যা ও সংকট মোকাবেলায় সরকার একের পর এক প্রযুক্তিভিত্তিক নানা সমাধান নিয়ে আসছে। করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় এমনি একটি অ্যাপ করোনা ট্রেসার বিডি, যা জীবন ও জীবিকার সুরক্ষা বেষ্টনী তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

তিনি বলেন, সরকার ইতোমধ্যে কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য খাত এবং জরুরি খাদ্য সরবরাহে প্রযুক্তিভিত্তিক সমাধানের মাধ্যমে জীবনযাত্রা সচল রেখেছে। করোনা মহামারির বিস্তার রোধে করোনা ট্রেসার বিডি অ্যাপটি অন্যতম কার্যকর সমাধান হতে পারে। প্রতিমন্ত্রী দেশের সকল নাগরিকদের নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে করোনা ট্রেসার বিডি অ্যাপটি ব্যবহার করে কোভিড-১৯ মহামারির বিস্তার রোধে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেন, আইসিটি বিভাগ ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের শুরু থেকেই বেসরকারি খাতকে সঙ্গে নিয়ে দুর্যোগ, মহামরিসহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারের ওপর গুরুত্বারোপ করেছে। করোনা ট্রেসার বিডি অ্যাপটি সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের উজ্জ্বলতম দৃষ্টান্ত।

সহজ-এর প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মালিহা এম কাদির বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যেকোনো অ্যাপ ব্যবহারকারি কভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হলে তার কাছাকাছি আসা অন্য অ্যাপ ব্যবহারকারিদের স্বয়ংক্রয়িভাবে সম্ভাব্য ঝুঁকি ও করণীয় সম্পর্কে জানানো হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন এটুআই প্রোগ্রামের পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা.আবুল কালাম আজাদ, আইইডিসিআর এর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা, এটুআই-এর প্রকল্প পরিচালক ড. আবদুল মান্নান, এলআইসিটির প্রকল্পের আইটি-আইটিইএস পলিসি এডভাইজার সামি আহমেদ এবং আইসিটি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে অ্যাপটি তৈরিতে কাজ করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, আইইডিসিআর, এটুআই ও এসডিএমজিএ। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার করে অ্যাপটি তৈরিতে কারিগরি সহায়তা দিয়েছে দেশের শীর্ষস্থানীয় টেক স্টার্টআপ সহজ লিমিটেড।

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই পৃথিবী দেখবে গোলাপী চাঁদ
                                  

নতুনবাজার ডেস্কঃ

করোনাভাইরাসের হানায় মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে ইউরোপ-আমেরিকার উন্নত দেশগুলো। ফলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে সবার মধ্যেই। মহামারি ঠেকাতে মহাচ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন সারাবিশ্বের নীতিনির্ধারকরা। এবার করোনা আতঙ্কের মধ্যেই পৃথিবী দেখবে গোলাপী চাঁদ। আগামী ৮ এপ্রিল বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে দেখা যাবে এই নান্দনিক দৃশ্য।

ওইদিন পৃথিবী এবং চাঁদের মধ্যবর্তী গড় দূরত্ব হবে ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৪০০ কিলোমিটার। তবে চাঁদের গোলাপি আভা দেখা যাবে পৃথিবী থেকে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৯০৭ কিলোমিটার দূর থেকে। অর্থাৎ ওইদিন পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব কমে যাবে ২৭ হাজার ৪৯৩ কিলোমিটার।

চাঁদ দেখতে যারা ভালোবাসেন, তাদের জন্য এই সুপারমুন (গোলাপী চাঁদ) একটু বিশেষ। চলতি বছরের উজ্জ্বলতম এবং বৃহত্তম পূর্ণিমা হতে চলেছে এইটি। এপ্রিলের এই সুপারমুনকে ডাকা হচ্ছে গোলাপি চাঁদ নামে।

সুপারমুন কী: সুপারমুনের কক্ষপথ পৃথিবীর নিকটতম। আমাদের গ্রহ থেকে এই নিকটতম দূরত্বের কারণেই চাঁদকে অনেক বড় এবং উজ্জ্বল দেখায়।

তবে পূর্ণিমা হলেই যে সুপারমুন হবে, তা কিন্তু নয়। কারণ চাঁদ পৃথিবীর চারপাশে একটি উপবৃত্তাকার কক্ষপথে ঘোরে। আমাদের গ্রহ থেকে আরও অনেক দূরে থাকলেও পূর্ণিমার পূর্ণ চাঁদ দেখা যেতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের মিডিয়া ওয়েবসাইট সিনেট-এর একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৮ এপ্রিলের সুপারমুন এ বছরের সবচেয়ে বড় এবং উজ্জ্বলতম সুপারমুন হবে।

ইন্টারনেটের গতি বাড়াবেন যেভাবে
                                  

নতুনবাজার ডেস্কঃ

করোনায় গৃহবন্দী মানুষের যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে ইন্টারনেট। অনেকে আবার ঘরে বসেই অফিসের কাজ সেরে নিচ্ছেন। তাই এই সময়ে ইন্টারনেট সংযোগ গুরুত্বপূর্ণ। বেড়েছে ব্যান্ডউইথের ব্যবহার। কমেছে ইন্টারনেটের গতি।

ইন্টারনেট স্পিড কমে যাওয়ায় অফিসের কাজে দেরি, ভিডিও স্ট্রিমিংয়ে দীর্ঘ সময়ের লোডিং, এই ধরনের নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে ইউজারদের। আপনিও নিশ্চয়ই এই সমস্যার ভুক্তভোগী। যদি তাই হয়, তাহলে জেনে নিন কীভাবে আপনি আপনার ফোনে অথবা ল্যাপটপে আপনার ইন্টারনেট স্পিড ঠিক রাখবেন।

প্রথমেই আপনি চেক করে নিন আপনার ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের স্পিড কত। খুবই সহজ উপায়ে এটি আপনি যাচাই করতে পারবেন। ডাউনলোড করুন স্পিড টেস্ট অ্যাপ্লিকেশন। অ্যাপটি ওপেন করার পরই আপনাকে ইন্সটল করার জন্য গো অপশন দেখাবে। সেখানে ক্লিক করলেই কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই আপনি আপনার ইন্টারনেটের গতি সম্পর্কে অবগত হবেন।

আপনি যদি বাড়ি থেকে কাজ করেন, সেক্ষেত্রে একটি স্ট্যাটিক ব্রডব্যান্ড কানেকশন নিয়ে নেওয়াই যথাযথ। নয়তো কাজের মাঝে মোবাইল ডেটা শেষ হয়ে সমস্যার মুখে পড়তে হতে পারে আপনাকে।

প্রথমে আপনার বাড়ির রাউটারটি রিবুট করুন। এতে অনেক সমস্যার সমাধান হয়ে যায়। কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় ইন্টারনেট স্পিড বেড়ে গিয়েছে। এছাড়া কাজের মাঝে মাঝে বেশ কিছু সময়ের জন্য ইন্টারনেট বন্ধ করে রাখুন। গেম খেলা ও মুভি দেখার সময় ও কাজের সময় এর থেকে পৃথক করে নিন।

চলে গেলেন ইউরি গ্যাগারিনের স্ত্রী
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রথম মহাকাশ অবতরণকারী ইউরি গ্যাগারিনের স্ত্রী ভেলেন্তিনা গ্যাগারিন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৮৪ বছর। রাশিয়ান স্পেস এজেন্সি স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভেলেন্তিনা গ্যাগারিনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে।

রুশ সিটি মিশন কন্ট্রোল সেন্টারের দেওয়া তথ্য মতে, গেলো মাসে স্ট্রোকের শিকার হয়েছিলেন ভেলেন্তিনা গ্যাগারিন। এরপর তার শরীরে একটি অস্ত্রপ্রচার করা হয়। এ থেকেই তার মৃত্যু হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ভেলেন্তিনার মৃত্যুর সঠিক কোন কারণ জানায়নি রুশ স্পেস এজেন্সি। তার এই মৃত্যুতে স্বজনদের সান্ত্বনা জানিয়েছে রাশিয়ান স্পেস এজেন্সি। ১৯৫৭ সালে ইউরি গ্যাগারিনের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন ভেলেন্তিনা গ্যাগারিন। ১৯৬৮ সালে ইউরি গ্যাগারিনের মৃত্যুর সময় স্টার সিটি মহাকাশচারী প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে জৈব রাসায়নিক বিশেষজ্ঞ হিসেবে কর্মরত ছিলেন ভেলেন্তিনা। গ্যালিনা গ্যাগারিন ও ইলেনা ইউরিভেনা গ্যাগারিন নামের দুই কন্যা সন্তান রয়েছে এই দম্পতির।

মঙ্গলগ্রহে মিলল প্রাণের সন্ধান!
                                  

নতুনবাজার ডেস্কঃ

মঙ্গলগ্রহের একাধিক উচ্চমানের ছবি পাঠাল নাসার কিউরিওসিটি রোভার। গত বছর ২৪ নভেম্বর থেকে ১ ডিসেম্বরের মধ্যে ছবিগুলো তোলা হয়েছে। রোভারের মাস্টক্যামে ধরা পড়া ১.৮ বিলিয়ন পিক্সেলের ছবিগুলোতে প্রধানত মঙ্গলের প্রাকৃতিক দৃশ্য ফুটে উঠেছে। এছাড়াও মঙ্গলে প্রাণের সন্ধানে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছে যানট।

নাসা সূত্রে খবর, প্রতিদিন প্রায় সাড়ে ছ’ঘণ্টা ধরে এক একটি ছবি তোলা হয়। রোভার একাধিক দিন একই ভ্যান্টেজ পয়েন্ট থেকে তার আশপাশের ছবি তোলার সুযোগ পায়। বর্তমানে লালগ্রহের ‘গ্লেন ক্রেটার’-এর (খাদ) ‘শার্প পর্বতে’ অনুসন্ধান চালাচ্ছে কিউরিওসিটি। ২০১৯ সালের ২৪ নভেম্বর থেকে ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ‘প্যানোরমা মোডে’ ওই এলাকার প্রায় ১ হাজারটি ছবি তুলেছে নাসার রোভারটি।

ক্যালিফোর্নিয়ায় নাসার জেট প্রোপালশন ল্যাবরেটরি থেকে কিউরিওসিটি প্রজেক্টের সনমগে যুক্ত বৈজ্ঞানিক অশ্বিনী বাসাভাডা বলেন, গোটা মিশনে এই প্রথম আমরা স্টিরিও ৩৬০ ডিগ্রি প্যানোরমা ছবির জন্য অভিযান চলিয়েছি। এই ছবি তোলার জন্য রোভারের মাস্ট ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। দুপুর বারোটা থেকে দু’টোর মধ্যে ছবিগুলো তোলার জন্য যানটির কম্পিউটারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

২০১১ সালের ২৬ নভেম্বর পৃথিবী থেকে পাড়ি দেয় নাসার কিউরিওসিটি রোভার। প্রায় নয় মাসের সফরের শেষে ২০১২ সালের ৬ আগস্ট মঙ্গলের ‘গ্লেন ক্রেটার’-এ অবতরণ করে যানটি। তারপর থেকেই সেখানে প্রাণের সন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে রোভারটি।

২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে ওই খাদের মাঝে শার্প পর্বতে এসে পৌঁছায় কিউরিওসিটি। ওই খাদেই জৈব পদার্থ ও একটি শুকিয়ে যাওয়া হ্রদের সন্ধান দিতে সক্ষম হয় যানটি। এবার নতুন অত্যন্ত উন্নতমানের ছবি পাঠিয়ে বিজ্ঞানীদের হাতে রীতিমতো তথ্যের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সম্ভার তুলে দিয়েছে কিউরিওসিটি।

হাজার কোটি টাকা রাজস্ব হারাবে সরকার
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বিদেশ থেকে আসা কল বা আন্তর্জাতিক ইনকামিং কলের রেট পুনর্নির্ধারণ করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। এক্ষেত্রে রাজস্ব ভাগাভাগির জন্য পৃথক সিলিং নির্ধারণ না করায় বছরে অন্তত হাজার কোটি টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হবে সরকার। এমনটাই বলছেন টেলিকম বিশেষজ্ঞরা। পাশাপাশি সাধারণ গ্রাহকরাও এর কোনো সুফল পাবেন না। ক্ষতিগ্রস্ত হবেন মোবাইল ফোন অপারেটররাও। এদিকে মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন অ্যামটব বিটিআরসিতে চিঠি দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে কীভাবে সরকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হবে।

গত ১৩ ফেব্রুয়ারি বিটিআরসির উপপরিচালক সাবিনা ইসলামের স্বাক্ষরে বিটিআরসি আন্তর্জাতিক ইনকামিং কলের মূল্য পুনঃনির্ধারণের নির্দেশনা জারি করে। এতে আন্তর্জাতিক ইনকামিং কলের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন কল টার্মিনেশন রেট হবে ৫১ পয়সা মিনিট। যা আগে ছিল প্রায় দেড় টাকা। এতে আরো বলা হয়, ইন্টারন্যাশনাল কল টার্মিনেশন রেট পুনর্নির্ধারণের পাশাপাশি এখন থেকে সর্বনিম্ন হারের (ফ্লোর রেট) ভিত্তিতেই রাজস্ব ভাগাভাগি হবে। তবে সর্বোচ্চ কলরেট নির্ধারণ করা হয়নি এবং রাজস্ব ভাগাভাগিও অপরিবর্তিত রয়েছে। আগে সরকার দেড় টাকার রাজস্ব পেলেও এখন পাবে ৫১ পয়সার রাজস্ব।

তবে বিটিআরসি চেয়ারম্যান জহুরুল হক ইত্তেফাককে বলেছেন, বর্তমান বাজারের অবস্থা পরীক্ষানিরীক্ষা করেই বিটিআরসি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একই সঙ্গে সিদ্ধান্তের আগে মোবাইল ফোন অপারেটরসহ সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। বৈধ পথে আন্তর্জাতিক ইনকামিং কল নিয়ে আসাকে উত্সাহিত করতেই এ সিদ্ধান্ত। আগে অনেক বেশি ভিওআইপি হচ্ছিল। ফলে সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিল। অনেক গবেষণা করেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিটিআরসির নির্দেশনা জারির পর গত ১৯ ফেব্রুয়ারি অ্যামটব থেকে চিঠি দেওয়া হয় বিটিআরসিকে। সেখানে বলা হয়েছে, বিটিআরসির এ সিদ্ধান্ত একদিকে যেমন অপারেটরদের আয়ের ক্ষেত্রে বড়ো ধরনের নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে, তেমনি এ খাত থেকে সরকারি রাজস্ব আদায়ের পরিমাণও বড়ো অঙ্কে কমিয়ে দেবে। চিঠিতে হিসেব দিয়ে বলা হয়, সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে প্রতি মাসে ৮৮৮ মিলিয়ন বা ৮৮ কোটি ৮০ লাখ মিনিট ইনকামিং কল আন্তর্জাতিক বাজার থেকে দেশে আসছে। এ হিসেবে আগের সর্বনিম্ন মূল্য দেড় টাকা হারে রাজস্ব ভাগাভাগির হিসেবে প্রতি মাসে বিটিআরসির রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ছিল ৫২ কোটি ৯০ লাখ এবং এনবিআরের ভ্যাট ও কর বাবদ রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ছিল ১৩২ কোটি ১০ লাখ টাকা। বিটিআরসির পুনর্নির্ধারিত ৫১ পয়সা মিনিট হারে রাজস্ব ভাগাভাগি হলে যদি ১০ শতাংশ কলের পরিমাণও বাড়ে তাহলে এখন থেকে প্রতি মাসে বিটিআরসির রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ দাঁড়াবে ১৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা এবং এনবিআরের রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ হবে ৪৯ কোটি ৮০ লাখ টাকা। অর্থাত্ নতুন সিদ্ধান্তের ফলে বিটিআরসি প্রতি মাসে প্রায় ৩৩ কোটি টাকা এবং এনবিআর প্রায় ৮৩ কোটি টাকা রাজস্ব হারাবে। সব মিলিয়ে তাদের রাজস্ব হারানোর পরিমাণ দাঁড়াবে প্রায় ১১৬ কোটি টাকা। এ হিসেবে এখন থেকে আন্তর্জাতিক ইনকামিং কল থেকে বছরে সরকারের মোট রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ কমবে ১ হাজার ৩৯২ কোটি টাকা।

হিসেবে বলা হয় বিটিআরসির নতুন সিদ্ধান্তের কারণে যদি ২০ শতাংশ করেও ইনকামিং কল বৈধ পথে বাড়ে তাহলে বিটিআরসির রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ প্রতি মাসে ৩১ কোটি টাকা এবং এনবিআরের রাজস্ব আদায় ৭৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা কমবে। এক্ষেত্রে প্রতি মাসে রাজস্ব আদায় কম হবে ১০৮ কোটি টাকা। এ হিসেবে বছরে সরকারের মোট রাজস্ব আদায় কম হবে ১ হাজার ২৯৬ কোটি টাকা।

তবে ইন্টারন্যাশনাল গেটওয়ে অপারেটরদের (আইজিডাব্লিউ) সংগঠন আইওএফের প্রধান শামসুদ্দোহা ইত্তেফাককে বলেন, ‘অপারেটরদের হিসাব ঠিক নেই। এই সিদ্ধান্তের আগে প্রতি মাসে গড়ে ৫২ কোটি মিনিট কল এসেছে। নতুন সিদ্ধান্তের ফলে ৫২ শতাংশ কল বেড়ে গেছে। ফলে সরকারের খুব একটা রাজস্ব ক্ষতি হবে না। আসলে অপারেটররা তো চোর! অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা তো তারা করে। অবৈধ কল বাড়লে তো তাদের লাভ। এই কারণে সরকারের ভালো সিদ্ধান্তও তারা বাঁকা ভাবে দেখে।’

তবে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গড়ে ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ কল বাড়লেও সরকারের রাজস্ব ক্ষতি হাজার কোটি টাকা দাঁড়াবে। পাশাপাশি অ্যামটব বলছে, বিটিআরসির নতুন সিদ্ধান্তের কারণে বৈধ পথে ১০ শতাংশ কল বাড়লেও চারটি মোবাইল ফোন অপারেটরের প্রতি মাসে রাজস্ব ক্ষতির পরিমাণ হবে প্রায় ১৯ কোটি টাকা। বছরে ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াবে ২২৮ কোটি টাকা। ২০ শতাংশ হারে বাড়লেও অপারেটরদের প্রতি মাসে ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াবে প্রায় ১৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা, বছরে যা ২১০ কোটি টাকা।

অ্যামটব মহাসচিব এস এম ফরহাদ ইত্তেফাককে বলেন, কোনো এক ধরনের লাইসেন্সির জন্য তাদের মূল আয়ের বা কল রেটের ওপর রাজস্ব না নিয়ে সর্বনিম্ন রেটের ওপর রাজস্ব ভাগাভাগির সিদ্ধান্ত বিস্ময়কর। মোবাইল ফোন অপারেটরসহ অন্যান্য আরো যেসব সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান আছে তাদের ক্ষেত্রেও কি সর্বনিম্ন মূল্য অনুযায়ী রাজস্ব ভাগাভাগি করা হবে? বিটিআরসির নতুন সিদ্ধান্তের কারণে প্রবাসী বাংলাদেশিরা কি দেশে আগের চেয়ে কমমূল্যে কল করার সুযোগ পাবেন? শুধু তাই নয়, আন্তর্জাতিক কল আদান-প্রদানের এই নতুন নির্দেশনার কারণে সরকারের রাজস্ব আদায়ে বিশাল নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। একই সঙ্গে মোবাইল ফোন অপারেটরদের রাজস্ব আদায়ও কমে যাবে, ফলে তারা ব্যবসায়িক ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বর্তমানে অ্যাপভিত্তিক ওটিটি (ওভার দ্যা টপ) কল যেমন হোয়াটস অ্যাপ, ভাইবার প্রভৃতি মাধ্যমে কলের হার দ্রুতগতিতে বাড়ছে। প্রযুক্তি দুনিয়ার ভবিষ্যত্ যাত্রার গতি-প্রকৃতি দেখে বলা যায়, ভবিষ্যতে ওটিটি কল আরো বাড়বে এবং সরাসরি চ্যানেলে কল ক্রমাগত কমবে। ফলে এই সময়ে আন্তর্জাতিক কল টার্মিনেশন রেট কমিয়ে বৈধ পথে সরাসরি চ্যানেলে ইনকামিং কল বেড়ে যাওয়ার যে প্রত্যাশা বিটিআরসি করছে তা অযৌক্তিক।

ই-পাসপোর্ট অনলাইনে কীভাবে পাবেন
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বাংলাদেশে প্রায় এক মাস ধরে ই-পাসপোর্ট অনলাইনে চালু করা হয়েছে। পাসপোর্ট অফিসগুলোতে প্রচুর চাপ পড়েছে। ই-পাসপোর্ট-এর সার্ভার প্রায়ই ডাউন থাকায় লাইনে দুই থেকে তিন ঘন্টা দাঁড়াতে হয়। নতুন এই “ই-পাসপোর্টে”র কারণে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট বইয়ের প্রয়োজনীয়তা কমে যাবে বলে ধারণা কর্তৃপক্ষের। এ কারণে এমআরপি বই মজুদও কম হওয়ায় পাসপোর্ট বইয়ের তীব্র সংকট তৈরি হয়েছে। অচিরেই এই সমস্যাগুলো আর থাকবে না। আমাদের দেশে ই-পাসপোর্ট মাত্র শুরু হয়েছে।

আন্তর্জাতিকভাবে আধুনিক পাসপোর্টের ধারণা শুরু হয় প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর ১৯২০ সালে প্যারিসে অনুষ্ঠিত ‘কনফারেন্স অন পাসপোর্ট অ্যান্ড কাস্টমস ফ্যামিলিয়ারিটিজ থ্র টিকিট’ লীগ অব নেশন্স বৈঠকের মাধ্যমে। এ কনফারেন্সে আধুনিক পাসপোর্টের বুকলেট ডিজাইন ও গাইড লাইন দেওয়া হয়। মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের ধারণা আসে ১৯৮০ সালে ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশনের মাধ্যমে। বাংলাদেশে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট চালু হয় ২০১০ সালের এপ্রিল মাসে। তার আগে ২০০৮ সালে উন্নত দেশগুলোতে ই-পাসপোর্ট চালু হয়।

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পরই হাতে লেখা পাসপোর্ট চালু হয়। এই হাতে লেখা পাসপোর্ট ব্যবহার করার সময়সীমা ছিল ২০১৫ সালের নভেম্বর পর্যন্ত। আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশনের নিয়ম অনুযায়ী, ২০১৫ সালের পরে পৃথিবীর কোন দেশ ট্রাডিশনাল নিয়মে হাতে লেখা পাসপোর্ট ব্যবহার করতে পারবে না। এ জন্য বাংলাদেশ সরকার ২০১০ সালে ৬.৬ মিলিয়ন হাতে লেখা পাসপোর্টকে মেশিন রিডেবল পাসপোর্টে রূপান্তরিত করে। সরকার বর্তমানে মেশিন রিডেবল পাসপোর্টকে ই-পাসপোর্ট বা বায়োমেট্রিক পাসপোর্টে রূপান্তরিত করেছে।
ই পাসপোর্ট-এ ইলেক্ট্রনিক মাইক্রো প্রোসেসর চিপ লাগানো থাকে। আপাতত দৃষ্টিতে পাসপোর্ট বইটি দেখে কোন কিছু বুঝা যাবে না। দেখতেও অনেকটা MRP পাসপোর্টের মতই। কিন্তু ভিতরে সংযুক্ত চিপটি এম আর পি (মেশিন রিডেবোল পাসপোর্ট) আর ই পাসপোর্টের মধ্যেকার প্রধান পার্থক্য সৃষ্টি করেছে। এই চিপের মধ্যে আছে বায়োমেট্রিক তথ্য যা পাসপোর্টধারীর যাবতীয় তথ্য বহন করে। এতে মাইক্রো প্রসেসর চিপ এবং অ্যান্টেনা সহ স্মার্ট কার্ডের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে।

বর্তমানে ই পাসপোর্টে যে সব বায়মেট্রিক সংরক্ষণে থাকবে তা হল পাসপোর্টধারীর ছবি, ১০ আঙ্গুলের ফিঙ্গারপ্রিন্ট এবং চোখের আইরিশ। ই বর্ডার বা ইলেক্ট্রনিক বর্ডার কন্ট্রোল সিস্টেমের মাধ্যমে বায়োমেট্রিক যাচাই করা হয়ে থাকে। পাবলিক কিই ইনফ্রাস্ট্রাকচার (PKI) এর মাধ্যমে চিপে সংরক্ষিত ডাটা যাচাই করা হয়ে থাকে। এতে পাসপোর্টধারীর ৩ ধরনের ছবি, ১০ আঙ্গুলের ছাপ এবং চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি থাকবে।

ই-পাসপোর্টের সবচাইতে বড় সুবিধা হল ই পাসপোর্টধারীরা বিশেষ ই – গেট ব্যাবহার করে খুব দ্রুত ইমিগ্রেশন পার হতে পারবেন। এজন্য তাদেরকে ভিসা চেকিং এর লাইনের দাড়াতে হবে না। এতে করে ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া খুব দ্রুত শেষ হবে। উল্লেখ্য যে এই ই – গেট শুধুমাত্র ই পাসপোর্টধারীরাই ব্যবহার করতে পারবেন।

ই-গেটের কাছে দাঁড়িয়ে নির্দিষ্ট স্থানে পাসপোর্ট রাখলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ছবি তুলে নেয়া হবে। এরপর আঙুলের ছাপ পরীক্ষা করে নেয়া হবে সহজেই। কোন সমস্যা না থাকলে খুব দ্রুত শেষ হবে ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া। আর কোন ঝামেলা থাকলে লাল বাতি জলে উঠবে এবং পাসপোর্টধারীকে সমস্যা সমাধান না হওয়া পর্যন্ত ইমিগ্রেশন পার হতে দেয়া হবে না।


   Page 1 of 3
     তথ্য -প্রযুক্তি
ফেসবুকে ফেরানো যাবে ডিলিট হওয়া পোস্ট
.............................................................................................
ছাগল চুরির ঘটনায় জড়িত নন, দাবী সাবেক ছাত্রলীগ নেতার
.............................................................................................
ফোন থেকে দ্রুত সরিয়ে নিন ভয়ংকর এই অ্যাপগুলো
.............................................................................................
মৃত্যুর পর কী হবে আপনার গুগল অ্যাকাউন্টের?
.............................................................................................
চলতি বছরেই দেশে আসছে ফাইভ জি
.............................................................................................
মহামারিতেও দমেনি নারী উদ্যোক্তারা
.............................................................................................
নতুন আইফোনে থাকছে নচ
.............................................................................................
৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ রমসহ ৬৪ মেগাপিক্সেলের রিয়েলমি ৭ আই
.............................................................................................
স্থায়ীভাবে বাড়ি থেকে কাজ করবেন মাইক্রোসফট কর্মীরা
.............................................................................................
দেশে `করোনা ট্রেসার বিডি` অ্যাপ চালু
.............................................................................................
করোনা আতঙ্কের মধ্যেই পৃথিবী দেখবে গোলাপী চাঁদ
.............................................................................................
ইন্টারনেটের গতি বাড়াবেন যেভাবে
.............................................................................................
চলে গেলেন ইউরি গ্যাগারিনের স্ত্রী
.............................................................................................
মঙ্গলগ্রহে মিলল প্রাণের সন্ধান!
.............................................................................................
হাজার কোটি টাকা রাজস্ব হারাবে সরকার
.............................................................................................
ই-পাসপোর্ট অনলাইনে কীভাবে পাবেন
.............................................................................................
এবার নগ্ন সেলফি তুলতে বাধা দেবে স্মার্টফোন
.............................................................................................
ক্যালিফোর্নিয়ার আকাশে ভিনগ্রহের যান!
.............................................................................................
ফেসবুক থেকে টাকা আয় করবেন যেভাবে
.............................................................................................
ফের চাঁদে অভিযানের প্রস্তুতি শুরু
.............................................................................................
যেসব কারণে হ্যাক হয় ফেসবুক একাউন্ট
.............................................................................................
তিন নম্বর স্থনীয় সতর্ক সংকেত সমূদ্র বন্দরগুলোকে
.............................................................................................
পঞ্চগড়ে ২ লক্ষ ২০ হাজার টাকার জাল নোট সহ আটক: ১
.............................................................................................
বাজারে আসছে উড়ন্ত সেলফি স্টিক
.............................................................................................
বুধবার পূর্ণ সূর্যগ্রহণ
.............................................................................................
আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে সিম নিবন্ধনে বিতর্ক কেন?
.............................................................................................
ইন্টারনেটে ১ মিনিটে যা ঘটে
.............................................................................................
২৫ টাকা কিস্তিতে স্মার্টফোন
.............................................................................................
দুই পৃথিবী মিলে এক পৃথিবী
.............................................................................................
যেসব কারণে ফেসবুক ব্লক হতে পারে
.............................................................................................
বাংলাদেশে এখন ফেসবুক মেসেঞ্জারের ভিডিও কলিং সুবিধা
.............................................................................................
মোবাইলে চার্জ দিন বিদ্যুৎ ছাড়াই
.............................................................................................
আইফোনে এবার ওয়াইফাইয়ের চেয়ে ১০০ গুন শক্তিশালী লাই-ফাই
.............................................................................................
এয়ারটেল এখন রবি
.............................................................................................
আইপ্যাডই হতে পারে সেক্স পার্টনার!
.............................................................................................
পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে দানব তারা!
.............................................................................................
ফেসবুকে ভুয়া নাম চিহ্নিত হচ্ছে
.............................................................................................
এবার আাসছে অন্ধদের জন্য স্মার্টফোন
.............................................................................................
৪৭০ কোটি বই ধারণে সক্ষম মানব মস্তিষ্ক
.............................................................................................
চিন্তা নিয়ন্ত্রণ করবে কম্পিউটার
.............................................................................................
ফেসবুকে ফেক আইডি এবং তার উদ্দেশ্য
.............................................................................................
পৃথিবী রক্ষায় নতুন অফিস খুলেছে নাসা
.............................................................................................
এমএনপি সেবা: অপারেটরের মান যাচাই করে নিলাম
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এম.এ মান্নান
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ হাজী মোবারক হোসেন।। সহ-সম্পাদক : কাউসার আহম্মেদ।
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ খন্দকার আজমল হোসেন বাবু। র্বাতা সম্পাদক আবু ইউসুফ আলী মন্ডল, ফোন ০১৬১৮৮৬৮৬৮২

ঠিকানাঃ বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়- নারায়ণগঞ্জ, সম্পাদকীয় কার্যালয়- জাকের ভিলা, হাজী মিয়াজ উদ্দিন স্কয়ার মামুদপুর, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ। শাখা অফিস : নিজস্ব ভবন, সুলপান্দী, পোঃ বালিয়াপাড়া, আড়াইহাজার, নারায়ণগঞ্জ-১৪৬০, মোবাইল : 01731190131, 01930226862, E-mail : mannannews0@gmail.com, mannan2015news@gmail.com, web: notunbazar71.com, facebook- notunbazar / সম্পাদক dhaka club
    2015 @ All Right Reserved By notunbazar71.com

Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop