| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   জাতীয় -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
আজ জানা যাবে শরিকদের আসন

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের শরিক নেতাদের সঙ্গে জোটের প্রধান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বৈঠকের বিষয়ে আগামীকাল মঙ্গলবার রাজধানীর ধানমণ্ডিতে অবস্থিত শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।এর আগে বৈঠক শেষে ব্রিফি করার কথা ছিল আজ রাতেই।

বৈঠকের আগে জোটের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শরিকদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের আসন ভাগাভাগির বিষয়ে আলোচনা হতে পারে। শরিকরা একাদশ সংসদের তুলনায় দ্বাদশে বেশি আসন চাইবেন। সেসব নিয়ে দর-কষাকষি হবে। একই সঙ্গে বিভিন্ন আসনে আওয়ামী লীগের ঘরের স্বতন্ত্রদের বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেবে, সে বিষয়েও বৈঠকে আলোচনা তোলা হবে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী, দাখিল করা মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই আজ সোমবার শেষ হয়েছে। নির্বাচনের জন্য কোন আসনে কোন প্রার্থী বৈধতা পাচ্ছেন তাও পরিষ্কার হয়েছে। এমন দিনেই শরিকদের নিয়ে বৈঠকে বসছে আওয়ামী লীগ।

 

টানা তিনটি জাতীয় নির্বাচনের মতো এবারও জোট নিয়ে ভোটে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের শরিকরা তফসিল ঘোষণার পর থেকেই শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকের অপেক্ষায় ছিল।

 

গত নির্বাচনে ১৪ দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি আসন পায় তিনটি। ঢাকা-৮ আসনে রাশেদ খান মেনন, সাতক্ষীরা-১ আসনে মুস্তফা লুতফুল্লাহ এবং রাজশাহী-২ আসনে ফজলে হোসেন বাদশা। জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ-ইনু) সভাপতি হাসানুল হক ইনু কুষ্টিয়া-২ আসনে নির্বাচিত হয়ে সংসদে আসেন।

এ ছাড়া বগুড়া-৪ আসন থেকে জাসদের এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন এবং ফেনী-১ আসন থেকে শিরীন আখতার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

 

ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাসদ―এ দুই দলের ছয়টি আসনের বাইরে একাদশ সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ তরীকত ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারীকে চট্টগ্রাম-২ আসন ছেড়ে দেওয়া হয়। পিরোজপুর-২ আসন ছাড়া হয় জাতীয় পার্টির (জেপি) আনোয়ার হোসেনকে।

আজ জানা যাবে শরিকদের আসন
                                  

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের শরিক নেতাদের সঙ্গে জোটের প্রধান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বৈঠকের বিষয়ে আগামীকাল মঙ্গলবার রাজধানীর ধানমণ্ডিতে অবস্থিত শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।এর আগে বৈঠক শেষে ব্রিফি করার কথা ছিল আজ রাতেই।

বৈঠকের আগে জোটের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শরিকদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের আসন ভাগাভাগির বিষয়ে আলোচনা হতে পারে। শরিকরা একাদশ সংসদের তুলনায় দ্বাদশে বেশি আসন চাইবেন। সেসব নিয়ে দর-কষাকষি হবে। একই সঙ্গে বিভিন্ন আসনে আওয়ামী লীগের ঘরের স্বতন্ত্রদের বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেবে, সে বিষয়েও বৈঠকে আলোচনা তোলা হবে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী, দাখিল করা মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই আজ সোমবার শেষ হয়েছে। নির্বাচনের জন্য কোন আসনে কোন প্রার্থী বৈধতা পাচ্ছেন তাও পরিষ্কার হয়েছে। এমন দিনেই শরিকদের নিয়ে বৈঠকে বসছে আওয়ামী লীগ।

 

টানা তিনটি জাতীয় নির্বাচনের মতো এবারও জোট নিয়ে ভোটে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের শরিকরা তফসিল ঘোষণার পর থেকেই শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকের অপেক্ষায় ছিল।

 

গত নির্বাচনে ১৪ দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি আসন পায় তিনটি। ঢাকা-৮ আসনে রাশেদ খান মেনন, সাতক্ষীরা-১ আসনে মুস্তফা লুতফুল্লাহ এবং রাজশাহী-২ আসনে ফজলে হোসেন বাদশা। জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ-ইনু) সভাপতি হাসানুল হক ইনু কুষ্টিয়া-২ আসনে নির্বাচিত হয়ে সংসদে আসেন।

এ ছাড়া বগুড়া-৪ আসন থেকে জাসদের এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন এবং ফেনী-১ আসন থেকে শিরীন আখতার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

 

ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাসদ―এ দুই দলের ছয়টি আসনের বাইরে একাদশ সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ তরীকত ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারীকে চট্টগ্রাম-২ আসন ছেড়ে দেওয়া হয়। পিরোজপুর-২ আসন ছাড়া হয় জাতীয় পার্টির (জেপি) আনোয়ার হোসেনকে।

প্রধানমন্ত্রী সুধী সমাবেশে
                                  

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্প উদ্বোধন করতে মুন্সীগঞ্জের মাওয়ায় আয়োজিত সুধী সমাবেশে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) সকাল ১০টা ৫৮ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী মাওয়া পৌঁছান। এর আগে সকাল ১০টা ১০ মিনিটে সড়ক পথে গণভবন থেকে মাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হন তিনি।এখান থেকে ঢাকা-ভাঙ্গা রেলপথের উদ্বোধন করবেন তিনি। এরপর ট্রেনে চড়ে স্বপ্ন জয়ের পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে ভাঙ্গা রেল জংশনে পৌঁছাবেন। সেখানে এক প্রেস ব্রিফিং শেষে ভাঙ্গার জনসভায় যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।এদিকে, প্রধানমন্ত্রীকে বরণে নেতাকর্মীরা প্রস্তুত। বর্ণিল সাজে সেজেছে ভাঙ্গা। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে। বাংলাদেশকে বদলে দেয়া উন্নয়নের রূপকার শেখ হাসিনাকে স্বচক্ষে এক নজর দেখতে অধীর অপেক্ষায় রয়েছেন সাধারণ মানুষ।দীর্ঘ ৬ বছর পর ভাঙ্গায় যাচ্ছেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীকে বরণে জনসভাস্থলে সকাল থেকেই নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ আসতে শুরু করেছেন। প্লেকার্ড, ব্যানার ও ফেস্টুন নিয়ে বাদ্যযন্ত্রসহকারে দলে দলে ভাঙ্গার জনসভাস্থল ডা.কাজী আবু ইউসুফ স্টেডিয়ামের প্রবেশদ্বারে এখন উপচেপড়া ভিড়।জনসভাস্থল ও আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। এসএসএফ, সেনাবাহিনী, র‌্যাব ও পুলিশসহ গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা নিয়োজিত রয়েছেন।উল্লেখ্য, উদ্বোধনের এক সপ্তাহ পর বাণিজ্যিকভাবে ট্রেন চলাচল শুরু হবে। এরই মধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে ট্রেন চালানোর প্রাথমিক পদক্ষেপ সম্পন্ন করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। রেল কর্তৃপক্ষ জানান, শুরুতে তিনটি স্টেশনে ট্রেন থামবে। এগুলো হলো মাওয়া, পদ্মা (জাজিরা) ও শিবচর। পাশাপাশি শিগগিরই চালু হবে মুন্সীগঞ্জের নিমতলা স্টেশন।এরই মধ্যে ঢাকা থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত সবকটি রেলস্টেশন বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে। সমাবেশস্থল, উদ্বোধনী ট্রেন সাজানো শেষ হয়েছে। কমলাপুর-গেন্ডারিয়া-ভাঙ্গা জংশন পরিদর্শন করেছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।প্রকল্প সূত্র জানায়, আপাতত কমলাপুর স্টেশন থেকে মাওয়া হয়ে পদ্মা সেতু পেরিয়ে ভাঙ্গা পর্যন্ত ট্রেন চলবে। এজন্য চীন থেকে কেনা নতুন সাতটি কোচের সমন্বয়ে একটি বিশেষ ট্রেন প্রস্তুত করা হয়েছে।পদ্মা সেতু দিয়ে খুলনা-ঢাকা রুটের দুটি আন্তঃনগর ট্রেন, সুন্দরবন ও চিত্রা, ঢাকা-বেনাপোল রুটের বেনাপোল এক্সপ্রেস বর্তমান রুট পরিবর্তন করে পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় চলাচল করবে। এ ছাড়া ঢাকা-কলকাতা রুটের আন্তর্জাতিক ট্রেন মৈত্রী এক্সপ্রেসও রুট পরিবর্তন করে পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় ঢুকবে।

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের পর সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছে জিয়া: প্রধানমন্ত্রী
                                  

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর  জিয়াউর রহমান সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (৮ অক্টোবর) ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিসিএস কর্মকর্তাদের ৭৫তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের সনদ বিতরণ ও সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৮১ সালে আমি শুধু দেশে ফিরে আসি একটি লক্ষ্য সামনে রেখে, সেটি হলো এ দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়ন করা। জনগণের ভোট ও ভাতের অধিকার, সাংবিধানিক অধিকার রক্ষার জন্য সংগ্রাম করতে গিয়ে অনেক বাধা-বিপত্তির সম্মুখীন হতে হয়েছে। মৃত্যুকে সামনে থেকেও দেখেছি। কিন্তু ভয় পাইনি। কারণ ছোটবেলা থেকেই আমি আমার বাবাকে দেখেছি। তার সঙ্গে দেখা হতো আমার কারাগারে। কলেজে থাকতেও বাবাকে কারাগারে গিয়ে দেখেছি, বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকতেও তাকে কারাগারে গিয়ে দেখতাম। এক টানা দুই বছর তিনি কখনও কারাগারের বাহিরে ছিলেন না।প্রধানমন্ত্রী বলেন, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর আমরা দুই বোন বিদেশে ছয়টি বছর রিফিউজি হিসেবে থেকেছি। আমরা আমাদের আপনজন হারিয়েছি, কিন্তু বাংলাদেশের জনগণ হারিয়েছিল তাদের সব ভবিষ্যৎ। উন্নত জীবনের আকাঙ্ক্ষা, ক্ষুধা দারিদ্র থেকে মুক্তি পাওয়ার পথ সবই হারিয়েছিল। কারণ তখন হত্যা, ক্যু, ষড়যন্ত্রের মধ্য দিয়ে ক্ষমতা দখল শুরু হয়। ছয় বছর পর আমার অবর্তমানে আমাকে আওয়ামী লীগ সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। দলীয় সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর আমি সিদ্ধান্ত নিই দেশে ফিরে আসব। আমার মেয়ে তখন মাত্র ৮ বছর বয়সী আর ছেলের তখন ১০ বছর। তাদেরকে মাতৃস্নেহ বঞ্চিত করে আমি ফিরে এসেছিলাম দেশের মানুষের কাছে। আমি সেই দেশে ফিরে এসেছিলাম যেখানে আমার বাবা-মায়ের হত্যার বিচার হয়নি, বিচার করা যাবে না। ইন্ডিমনিটি অর্ডিন্যান্স জারি করে অপরাধীদের রেহাই দিয়ে তাদের পুরস্কৃত করা হয়েছিল।তিনি বলেন, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টে জাতির পিতাকে হত্যার পর যেই মিলিটারি ডিক্টেটর, যে সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছিলেন, সেই জিয়াউর রহমান। তিনি আমার ছোট বোনের পাসপোর্টটাও রিনিউ করতে দেয়নি। আমরা ১৯৮০ সালে লন্ডনে জাতির পিতার হত্যার বিচার চেয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করেছিলাম। সেই কমিটি ঢাকা আসতে চেয়েছিল, জিয়াউর রহমান তাদের ভিসাও দেয়নি।শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৮১ সালে আমি শুধু দেশে ফিরে আসি একটি লক্ষ্য সামনে রেখে, সেটি হলো এ দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়ন করা। জনগণের ভোট ও ভাতের অধিকার, সাংবিধানিক অধিকার রক্ষার জন্য সংগ্রাম করতে গিয়ে অনেক বাধা-বিপত্তির সম্মুখীন হতে হয়েছে। মৃত্যুকে সামনে থেকেও দেখেছি। কিন্তু ভয় পাইনি। কারণ ছোটবেলা থেকেই আমি আমার বাবাকে দেখেছি। তার সঙ্গে দেখা হতো আমার কারাগারে। কলেজে থাকতেও বাবাকে কারাগারে গিয়ে দেখেছি, বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকতেও তাকে কারাগারে গিয়ে দেখতাম। এক টানা দুই বছর তিনি কখনও কারাগারের বাহিরে ছিলেন না।অনুষ্ঠানে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধীনে ৫টি প্রকল্প-কর্মসূচির আওতায় নির্মিত ভবন ও জিইএমএস সফটওয়্যার উদ্বোধন করেন সরকারপ্রধান।

পি কে হালদারের ২২ বছরের কারাদণ্ড
                                  

গ্লোবাল ইসলামী (সাবেক এনআরবি গ্লোবাল) ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদারের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থপাচারের অভিযোগের রায় ঘোষণা  করা হয়েছে। রায়ে পিকে হালদারকে ২২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া বাকি ১৩ আসামিকে দুই ধারায় সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।রোববার (৮ অক্টোবর) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-১০ এর বিচারক মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের আদালত আসামি অবন্তিকা, শঙ্খ, সুকুমার ও অনিন্দিতার উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।বাকী আসামিরা হলেন- পি কে হালদারের মা লীলাবতী হালদার, পূর্ণিমা রানি হালদার, উত্তম কুমার মিস্ত্রি, অমিতাভ অধিকারী, প্রীতিশ কুমার হালদার, রাজিব সোম, সুব্রত দাস, অনঙ্গ মোহন রায়, স্বপন কুমার মিস্ত্রি, অবন্তিকা বড়াল, শঙ্খ ব্যাপারী, সুকুমার মৃধা ও অনিন্দিতা মৃধা।এর আগে, গত বুধবার (৪ অক্টোবর) রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন হয়। পরে বিচারক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন। সাক্ষ্যগ্রহণের সময় কারাগারে থাকা ৪ আসামি অবন্তিকা বড়াল, শংখ বেপারী, সুকুমার মৃধা ও অনিন্দিতা মৃধাকে আদালতে হাজির করা হয়।২০২০ সালের ৮ জানুয়ারি পি কে হালদারের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থপাচারের অভিযোগে মামলা করেন দুদকের উপ-পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী।মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, পি কে হালদার বিভিন্ন অবৈধ ব্যবসা ও অবৈধ কার্যক্রমের মাধ্যমে জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ ২৭৪ কোটি ৯১ লাখ ৫৫ হাজার ৩৫৫ টাকার অবৈধ সম্পদ নিজ দখলে রেখেছেন। এছাড়া ওই অর্থ আড়াল করতে বিদেশে পাচার করে মানিলন্ডারিং আইনেও অপরাধ করেন পি কে হালদার।মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, পি কে হালদার বিভিন্ন অবৈধ ব্যবসা ও অবৈধ কার্যক্রমের মাধ্যমে জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ ২৭৪ কোটি ৯১ লাখ ৫৫ হাজার ৩৫৫ টাকার অবৈধ সম্পদ নিজ দখলে রেখেছেন। এছাড়া ওই অর্থ আড়াল করতে বিদেশে পাচার করে মানিলন্ডারিং আইনেও অপরাধ করেন পি কে হালদার।

বর্ডার খুলে দিলে কেজি হবে ২০-২৫ টাকা
                                  

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) এ এইচ এম সফিকুজ্জামান বলেছেন, এ মুহূর্তে দেশে চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে একটি দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি ও মূল্যস্ফীতি। এ চ্যালেঞ্জ নিয়ে দেশের ১৭ কোটি মানুষ ভুগছে। এখানে যৌক্তিক কিছু কারণ রয়েছে। আমদানিকৃত পণ্যে ডলারের সমন্বয় করতে হচ্ছে। আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যের মূল্য কখনও বাড়ছে, কখনও কমছে। যার প্রভাব সারাবিশ্বের মতো আমাদের দেশেও পড়ছে।ভোক্তার ডিজি আরো বলেন, বর্ডার খুলে দিলে ভোক্তারা ২০-২৫ টাকার মধ্যে আলু খেতে পারবেন। তবে এটি কোনো স্থায়ী সমাধান নয় বলেও জানিয়েছেন তিনি।তিনি বলে, এখন আমরা বর্ডার খুলে দিলে কৃষক বা আলু ব্যবসার সঙ্গে জড়িতরা ক্ষতির সম্মুখীন হবে। পরের বছর তারা আলু উৎপাদনে উৎসাহিত হবে না। অনেক কিছু বিবেচনা করতে হয়।

সোমবার (২ অক্টোবর) জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে ভোক্তা অধিকার সচেতনতাবিষয়ক বিতর্ক প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ভোক্তার ডিজি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে যেসব পণ্য উৎপাদিত হয় সেগুলোর উৎপাদন খরচ পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে, অনেক ক্ষেত্রে আমাদের ব্যবসায়ী মহল, করপোরেট গ্রুপ বা যারা এটি নিয়ন্ত্রণ করে, তারা মাঝে মধ্যে একেকটা দ্রব্য নিয়ে অস্থির পরিস্থিতি তৈরি করে। এর বিরুদ্ধে আমরা কাজ করছি।নিয়ন্ত্রণহীন আলুর বাজার নিয়ে ভোক্তার ডিজি বলেন, গত ১৪ সেপ্টেম্বর বাণিজ্যমন্ত্রী আলুর দাম নির্ধারণ করেছেন। খুচরা পর্যায়ে ৩৫-৩৬ টাকা ও হিমাগার পর্যায়ে ২৭ টাকায় বিক্রি করতে। এটি কৃষি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলে তাদের সুপারিশ অনুসারে নির্ধারণ করা হয়েছে। এ আলু দেড়-দুই মাস আগেও যখন হিমাগার থেকে ২৩-২৪ টাকায় বিক্রি হত, তখনও তাদের লাভ থাকত। এমন কোনও কারণ উদ্ভব হয়নি বা খরচ বাড়েনি যে, সেটি ৩৬-৪২ টাকা পর্যন্ত হিমাগার থেকে বিক্রি হবে। যার ফলে ভোক্তা পর্যায়ে আলুর দাম হাফ সেঞ্চুরি ছাড়িয়ে গেছে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে ৫৫ টাকাও বিক্রি হয়েছে। এগুলো অস্বাভাবিক আচরণ।তিনি বলেন, অনেকের মতামত যে, আলুর দাম ৩৬ টাকা নির্ধারণের দুই সপ্তাহ পরও সরকারি দামে আলু বিক্রি হচ্ছে না। এটি সত্য কথা। আবার এটাও সত্য কথা, আমাদের প্রচেষ্টার ফলে আলুর দাম ৫০ টাকার ওপরে ৬০-৭০ টাকা হয়নি বরং অন্তত ১০ টাকা কমেছে। খুচরা পর্যায়ে এখন ৪০ টাকার মধ্যে আলু পাওয়া যাচ্ছে। কিছু কিছু জায়গায় আমরা ৩৬ টাকায় আলু বিক্রি নিশ্চিত করেছি।ভোক্তার ডিজি বলেন, প্রতিদিন আমাদের ৪০-৪৫টি টিম বাজার নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে। কিন্তু এ অভিযান কী যথেষ্ট? এ অভিযান কোনোভাবেই যথেষ্ট নয়। আমাদের লজেস্টিক সমস্যা আছে। ১৭টি জেলায় আমরা কোনও কর্মকর্তা দিতে পারিনি। জেলায় যেখানে আমরা ম্যান পাওয়ার দিতে পারিনি, সেখানে উপজেলা বা বড় বড় হাটগুলোতে আমাদের অভিযান চালানোর সুযোগ কম। তারপরও আমরা সমন্বিতভাবে কাজ করছি।ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে কিছু দুর্বলতা আছে জানিয়ে তিনি বলেন, আইন যতই শক্তিশালী হোক বা জনবল দশ গুণ বাড়ালেও কী তা দিয়ে আমি বাজার নিয়ন্ত্রণ বা ভোক্তার অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পারব? এটি কখনোই সম্ভব নয়, যতক্ষণ না আমাদের ব্যবসায়িক সমাজকে আমরা যুক্ত করতে না পারব। পাশাপাশি ভোক্তারা যতক্ষণ না নিজের অধিকার সম্পর্কে জেনে সেটি নিয়ে সোচ্চার না হবে, ততক্ষণ আমরা পারব না।ভোক্তার ডিজি বলেন, একজন সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে আমি বলতে পারি না আপনারা ডিম খাওয়া কমিয়ে দেবেন। এটি বলা ঠিক হবে না। আমরা ১৫ টাকার ডিম অভিযান চালিয়ে সাড়ে ১২ টাকা পর্যন্ত করতে পারলাম। কিন্তু আমরা সরকার নির্ধারিত ১২ টাকা অনেক চেষ্টা করেও করতে পারিনি। শেষ পর্যন্ত আমাদের ডিম আমদানির পথ খুলে দিতে হয়েছে। এতে দেশীয় পোল্ট্রি হুমকির মুখে পড়বে তা আমরা জানি। কিন্তু এখানে যে চক্রটি নিয়ন্ত্রণ করছে, সেটি ভাঙতে হলে এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়।সংবাদ সম্মেলনে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, শুধু আইন প্রয়োগ ও জেল-জরিমানা বা শাস্তি দিয়ে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। এতে ব্যবসায়ী, ক্রেতা-বিক্রেতাসহ সবার মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে হবে। মানবিক মূল্যবোধ জাগ্রত করতে হবে। ঈদ, পূজাপার্বণ বা কোনও উৎসব এলেই সুযোগ বুঝে দ্রব্যমূল্য বাড়ানো যাবে না। জোগান থাকা সত্ত্বেও হঠাৎ চাহিদা বাড়লে মূল্যবৃদ্ধি করা উচিত নয়। তবে দেশে এখনও অনেক মানবিক ব্যবসায়ী ও করপোরেট কোম্পানি রয়েছে যারা জনগণকে স্বস্তি দিয়ে দ্রব্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে চেষ্টা করে।উল্লেখ্য, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে চলছে ভোক্তা অধিকার সচেতনতা বিষয়ক বিতর্ক প্রতিযোগিতা। ছায়া সংসদের আদলে এ প্রতিযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের আটটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করেছে। গত ১১ আগস্ট প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি। ইতোমধ্যে প্রতিযোগিতার প্রাথমিক পর্ব শেষে সেমিফাইনাল ও গ্র্যান্ড ফাইনালের প্রস্তুতি চলছে। সেমি ফাইনালে উত্তীর্ণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চারটি হচ্ছে ইডেন মহিলা কলেজ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, তেঁজগাও কলেজ ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ। এ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দল দুই লাখ টাকা ও রানার্স আপ দল এক লাখ টাকা পুরস্কার পাবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষ দেশের বোঝা নয়, সম্পদ হবে: পার্বত্যমন্ত্রী
                                  

খাগড়াছড়িতে বিভিন্ন কর্মসূচীর আওতায় কৃষি যন্ত্রপাতি উপকরণ, প্রাণী সম্পদ, মৎস্য, মিশ্র ফল চাষাবাদ, তথ্য প্রযুক্তি উন্নয়নসহ ১ কোটি টাকা ও আপদকালীন ত্রাণ হিসেবে ১৪৬ জনকে ৫৭ লাখ টাকার চেক বিতরণ করা হয়েছে।রোববার (১ অক্টোবর) দুপুরে খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে ইউএনডিপি প্রকল্পের আওতায় জিওবি অর্থায়নে চার কোটি টাকার কৃষি যন্ত্রপাতি ও বিভিন্ন প্রকল্পের দেড় কোটি টাকার চেক বিতরণ  করা হয়।খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু‍‍`র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণতায় ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তি সম্পাদনের মধ্য দিয়ে পাহাড়ে ২৪ বছরের সমস্যার সমাধান হয়েছে। যার সুফল ভোগ করছে এ পার্বত্য অঞ্চলের জনগন। একসময় পার্বত্য চট্টগ্রামে সন্দেহ ও অবিশ্বাস ছিল। কথা বলার সুযোগ ছিল না। চুক্তির পর পার্বত্য চট্টগ্রামের আনাচে কানাচে উন্নয়নের জোয়ার বইছে। আজ যারা অতি উৎসাহী হয়ে মানবতার কথা বলছে, মহান স্বাধীনতার যুদ্ধে তাদের কী ভূমিকা ছিল। তাই এ পার্বত্য অঞ্চলে বসবাসরত সকলকে শপথ নিতে হবে পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষ দেশের জন্য বোঝা নয়, আমরা সম্পদে পরিণত হবো । আর দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবো।এসময় উপস্থিত ছিলেন, নারী সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, সেনাবাহিনীর খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহতাশিম হায়দার চৌধুরী, ডিজিএফআইয়ের ডেট কমান্ডার এএসএম বদিউল আলম, জেলা প্রশাসক মো. সহিদুজ্জামান, পুলিশ সুপার মুক্তা ধর, বীর মুক্তিযোদ্ধা রইস উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ হানিফ মজুমদার ও সার্কেল চিফ সাচিংপ্রু চৌধুরী। এছাড়াও অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দপ্তরের বিভাগীয় প্রধান, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র ও সুবিধাভোগী প্রমূখ।

রাজবাড়ী-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধ, দূর্ভোগে যাত্রীরা
                                  

ফরিদপুরের গোল্ডেন লাইন পরিবহনের সাথে দন্দের জেরে রাজবাড়ীর পরিবহন বাস মালিকরা ধর্মঘট ডেকেছে। এতে রাজবাড়ী-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। সোমবার (২ অক্টোবর) ভোররাত থেকে এ বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।নাম প্রকাশ করার না শর্তে বাস বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে রাজবাড়ী পরিবহন মালিক গ্রুপের এক সদস্য।তিনি জানান, রাজবাড়ীর কোন বাস পদ্মা সেতু দিয়ে ঢাকা যায় না। কিন্তু গোল্ডেন লাইন বাস পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকা যায়। এছাড়া গোল্ডেন লাইন রাজবাড়ীর পরিবহন মালিকদের সাথে আলোচনা না করে তারা নিজেদের মতন ট্রিপ পরিচালনা করছিলো। এতে তাদের বাঁধা দেয়ায় ঢাকার গাবতলীতে রাজবাড়ীর বাস কাউন্টার গুলোতে ভাঙচুর করে।পরে তারা ঢাকার বাস-ট্রাক ওনার্স এসোসিয়েশনের সাথে আলোচনা করে বিষয়টির সুরহা করেছিলাম। এরপর সিদ্ধান্ত হয় গোল্ডেন লাইন রাজবাড়ীতে দুইটি ট্রিপ চালাবে। কিন্তু তারা সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে একাধিক ট্রিপ চালাচ্ছিলো। তাই গত শুক্রবার আমরা বাস মালিক সমিতির সামনে থেকে গোল্ডেন লাইনের একটি বাস যাত্রী নামিয়ে ঢাকা ফেরত পাঠায়। এতেই তাদের সাথে আমাদের আবার দ্বন্দের সৃষ্টি হয়।তিনি আরও জানান, গোল্ডেন লাইন পরিবহনের সাথে নতুন করে কোন দ্বন্দ নয়। এর আগেও গোল্ডেন লাইন পরিবহনের সাথে দ্বন্দের কারণে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তারপর রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সাথে তারা আলোচনা করে ও ঢাকার বাস-ট্রাক ওনার্স এসোসিয়েশনের সাথে বসে বিষয়টি মিমাংসা করেছিলাম। কিন্তু তারপরও গোল্ডেন লাইন তাদের ইচ্ছামতন ট্রিপ চালাচ্ছে।এতে আমাদের ব্যাবসার ক্ষতি হচ্ছে।এদিকে ঢাকা-রাজবাড়ী রুটে হঠাৎ পরিবহন বন্ধ থাকায় যাত্রীরা কাউন্টারের এসে ফেরত যাচ্ছে।এতে অনেক যাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়ছে। যাদের জরুরি কাজ রয়েছে তারা ভেঙে ভেঙে ছোট গাড়িতে, অটোরিকশা, ভ্যান, মাহিন্দ্র, করে দৌলতদিয়া ঘাট পর্যন্ত যাচ্ছে। আবার অনেকেই বাড়ি ফিরে যাচ্ছে।মাহিন্দ্রে আসা দৌলতদিয়া ঘাটে আসা ঢাকা মিরপুর গামী যাত্রী হুমায়ুন হোসেন বলেন, জরুরি কাজে ঢাকায় যাবো, কাউন্টারে এসে দেখি বাস বন্ধ। তাই ঝুঁকি নিয়ে মাহিন্দ্র করে দৌলতদিয়া ঘাট পর্যন্ত এসেছি। এখন ফেরিতে নদী পার হয়ে ওপার থেকে লোকাল বাসে যাবো। রাজবাড়ী থেকে সরাসরি বাসে যেতে পারলে সময় বাঁচতো ও ভোগান্তি ও কম হতো। মাঝে মধ্যেই দেখি ঢাকা-রাজবাড়ী রুটে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। রাজবাড়ীর সৌহার্দ্য পরিবহনের ঘাট সুপারভাইজার মো. মনির হোসেন বলেন, গোল্ডেন লাইন পরিবহনের সাথে আমাদের ঝামেলার কারনে রাজবাড়ী জেলা বাস মালিক সমিতির কতৃপক্ষের নির্দেশে আমরা বাস অর্নিদিষ্টকালের জন্য বন্ধ রেখেছি।যতদিন ঝামেলা না মিটবে ততদিন বাস বন্ধ থাকবে।এ বিষয়ে রাজবাড়ী বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক লিটনের সাথে যোগাযোগ করার জন্য তার মুঠোফোনে কয়েকবার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে টোল আদায় সাড়ে ৬ কোটি টাকা
                                  

ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে উদ্বোধনের প্রথম ২৮ দিনে ৮ লাখ ৩৬ হাজার ৫৫৮টি যানবাহন চলাচল করেছে। এসব যানবাহন এয়ারপোর্ট-ফার্মগেট অংশ ব্যবহার করেছে। এসময় টোল আদায় হয়েছে ৬ কোটি ৭৭ লাখ ৪৩ হাজার টাকা।বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে চুক্তি আছে, দৈনিক সাড়ে ১৩ হাজারের চেয়ে কম যানবাহন চলাচল করলে সরকার ক্ষতিপূরণ দেবে। আর এ বিধান কার্যকর হওয়ার কথা ২০২৪ সালের ১ জুন থেকে, যে সময় কাওলা থেকে কুতুবখালি পর্যন্ত পুরো প্রকল্প চালু হবে। কিন্তু তার আগেই প্রথমাংশ উদ্বোধনের পরে অর্জিত হয়েছে লক্ষ্যমাত্রা।এক্সপ্রেসওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রথম ২৮ দিনে ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে ৮ লাখ ৩৬ হাজার ৫৫৮টি গাড়ি চলেছে। তবে মোট গাড়ি চলাচলের ৯৯ শতাংশই ব্যক্তিগত গাড়ি। যার সংখ্যা ৮ লাখ ২৮ হাজার ৯৮৭টি।এদিকে এক্সপ্রেসওয়েতে চলাচল করে লাভে আছে বিআরটিসি।এক্সপ্রেসওয়ে ব্যবহার করলে বেসরকারি গণপরিবহনগুলো যানজট এড়াতে পারতো। কিন্তু চলতি পথের যাত্রী সংকট হবে এমন অযুহাত দেখিয়ে এক্সপ্রেসওয়ে ব্যবহার করছে না অন্য কোনো গণপরিবহন।তবে গত ১৮ সেপ্টেম্বর এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্পোরেশন (বিআরটিসি) বাস চলাচল চালু করে। শুরুর দিনে ৮টি বাস চলাচল করে সংস্থাটি রাজস্ব আয় করে প্রায় ৬৮ হাজার টাকা। তবে দ্বিতীয় দিন দ্বিগুণ হয়ে সংস্থাটি রাজস্ব আয় পায় প্রায় ১ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। এরপর থেকে ক্রমান্বয়ে বিআরটিসি বাড়িয়েছে বাসের সংখ্যা আর আয়ও বেড়েছে সংস্থাটির।জানা গেছে, এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে সর্বনিম্ন সাড়ে ১৩ হাজার যানবাহন চলাচল না করলে সরকারকে দিতে হবে জরিমানা। তবে পুরোপুরি কাওলা থেকে কুতুবখালি পর্যন্ত চালু না হওয়া ও ৮০ হাজারের বেশি গাড়ি না চলায় এখন যে টোল আদায় হচ্ছে তার পুরোটা পাচ্ছে বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানগুলোগুলো।অন্যদিকে দৈনিক সর্বোচ্চ ৮০ হাজারের বেশি যানবাহন চলাচল করলে যে রাজস্ব আদায় হবে সেটির ২৫ শতাংশ পাবে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ। আর সেতু কর্তৃপক্ষ প্রাপ্ত আয় থেকে ১০ শতাংশ দেবে রেলওয়েকে।এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প পরিচালক এ এইচ এম এস আকতার বলেন, পুরো এক্সপ্রেসওয়ে চালু হলে গাড়ি চলাচলের যে লক্ষ্যমাত্রা সেটি পূরণ হবে। তখন ৮০ হাজারের বেশি গাড়ি চললে রাজস্ব পাবে সরকার। এখন যেভাবে চলছে তাতে বলা যায় অনেকটা সুবিধাই হচ্ছে।গত শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) উড়ালসড়কটি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মধ্যদিয়ে যানজটের নগরীতে এক নতুন দিগন্তের সূচনা হয়।আগামী জুনের মধ্যে ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুতুবখালি পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। তখন এর পুরো সুফল পাবে নগরবাসী।

ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাস পরিদর্শন
                                  

যুক্তরাষ্ট্র সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস পরিদর্শন করেন। তিনি ১৯৯৭ সালে এই চ্যান্সারি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন এবং ২০০০ সালে নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন করেছিলেন।

শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) ওয়াশিংটনের বাংলাদেশ দূতাবাস জানায়, প্রধানমন্ত্রী দূতাবাসে পৌঁছালে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান ফুলের তোড়া দিয়ে তাকে স্বাগত জানান।প্রধানমন্ত্রী প্রথমে দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু কর্নারে অবস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আবক্ষ মূর্তিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে তিনি সেখানে কিছু সময় নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।পরে তিনি বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন এবং দেশের ভাবমূর্তি আরও উন্নত করতে তাদের অত্যন্ত আন্তরিকতা, পেশাদারত্ব, সততা ও দেশপ্রেমের সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান।তিনি শহীদ মিনার ও বঙ্গবন্ধু কর্নারসহ দূতাবাসের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঘুরে দেখেন।প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, অ্যাম্বাসেডর-অ্যাট-লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

নবাবগঞ্জে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন
                                  

মোঃ জুলহাজুল কবীর,

নবাবগঞ্জ, দিনাজপুর।

বর্ণাঢ্য র‍্যালী, আলোচনা সভাসহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে ৩ দিন ব্যাপী জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস উন্নয়ন মেলার উদ্ধোধন করা হয়েছে।

১৭সেপ্টেম্বর রবিবার বেলা ১১ টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ শহীদ মিনার চত্বরে প্রধান অতিথি হিসেবে মেলার উদ্বোধন করেন দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ শিবলী সাদিক এমপি।

মেলা উদ্বোধন শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আশিক রেজার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ পারুল বেগম, নবাবগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোঃ তাওহীদুল ইসলামসহ অন্যান্যরা।

মেলায় বিভিন্ন প্রকারের ২৫ টি স্টল বসে। আলোচনা সভা শেষে উন্নয়ন বিষয়ক ভিডিও প্রদর্শনী,মেলার স্টল পরিদর্শন,এবং বিকেল সাড়ে ৪ থেকে ৫ টা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর নির্মিত তথ্যচিত্র ও ভিডিও প্রদর্শন,স্থানীয় বিভিন্ন উন্নয়ন এবং রাজস্ব বৃদ্ধির লক্ষে তথ্য সমৃদ্ধ চিত্র/ভিডিও প্রদর্শণী করা হয়।

 

ডিএমপি কমিশনারে সঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ
                                  

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুকের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস।বুধবার (৩০ আগস্ট) সকালে ডিএমপি হেডকোয়ার্টারে কমিশনারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন পিটার হাস।প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী পুলিশ হেডকোয়ার্টারে অবস্থান করেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত। সাক্ষাতের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করছেন ডিমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনসের উপপুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ফারুক হোসেন।এই সাক্ষাতের মাধ্যমে সৌহার্দ্য ও পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি পাবে বলে কর্মকর্তারা আশা প্রকাশ করেছেন।  এ সময় ডিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

‘মানুষ গণতন্ত্রের চেয়ে উন্নয়নে বেশি আগ্রহী’
                                  

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, আমার মনে হয় মানুষ এখন উন্নয়নে বেশি আগ্রহী। মানুষ এখন এক গ্লাস গণতন্ত্র নয়, তারা এক গ্লাস উন্নয়ন চায়। আমাদের গণতন্ত্রের চেয়ে খাবার, ওষুধ-টয়লেট বেশি জরুরি।রোববার (২৭ আগস্ট) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনে কেন্দ্রে ‘সেভ দ্যা চিলড্রেন’ আয়োজিত সূচনা প্রকল্পের ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়নের জন্য একটানা কাজ করা প্রয়োজন। সরকার সেই কাজটাই করছে। দেশে এখন আর কেউ না খেয়ে মরে না। সরকার শহর গ্রামে খাবার পানি, উন্নত শিক্ষার ব্যবস্থা করছে। আগের তুলনায় স্কুলে যাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে।আওয়ামী লীগ সরকার সবার উন্নয়নে কাজ করে উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, দেশে আগের তুলনায় দরিদ্রতা অনেক কমেছে। সামনের দিনে আরও কমবে। দেশে এখন মাত্র ৪ থেকে ৫ শতাংশ মানুষ অসহনীয় দরিদ্রতার মধ্যে রয়েছে। ক্ষুধা ও দারিদ্র্য কমিয়ে আনাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য।তিনি বলেন, দেশে বৈষম্য আছে, কথাটি সত্য। আসলে এই বৈষম্যের পেছনে অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে শিক্ষা ও সম্পদ। যারা আগে থেকেই শিক্ষায় এগিয়ে তারাই সম্পদের মালিক হয়েছেন।

পঁচাত্তরের ১৫ আগষ্ট ও ২০০৪ সালের ২১ আগষ্টের হামলাকারীরা এক ও অভিন্ন শক্তি -বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী
                                  

মো: রাসেল মোল্লা 

 

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক বলেছেন,পঁচাত্তরের ১৫ আগষ্ট ও ২০০৪ সালের ২১ আগষ্টের হামলাকারীরা এক অভিন্ন শক্তি। তাদের মূল লক্ষ্য ছিল বাংলাদেশকে পাকিস্তানের ধারায় ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া। দেশের স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র হত্যা করা। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ভয়াবহ স্মৃতি বাঙালি জাতি আজও ভুলতে পারেনি। দুইটি ঘটনাই একই সূত্রে গাঁথা। ২০০৪ সালের বর্ব‌রো‌চিত গ্রে‌নেড হামলায় নিহত শহীদ‌দের স্মর‌ণে ২১ আগষ্ট সোমবার বিকা‌লে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা এলাকায় আয়োজিত স্মরণ সভায় তিনি এ কথাগুলো বলেন। রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ,অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করেন রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ্ব তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা।

                বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতিক আরো বলেন, "১৫ আগস্টের হত্যাযজ্ঞ ও ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা একই সূত্রে গাঁথা। ৭৫ সা‌লের ১৫ আগস্টের ঘাতকরা ভেবেছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করলেই বাংলাদেশে স্বাধীনতার চেতনা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং উন্নত সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে হত্যা করা সম্ভব হবে। কিন্তু সেই দিন মহান আল্লাহর অশেষ রহমতে বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা বেঁচে গিয়েছিলেন।”

               ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলার সঙ্গে জড়িতদের সব খুনিদের অবিলম্বে ফাঁসি কার্যকর করার দাবি জানিয়ে মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী আরও ব‌লেন, "সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা চালিয়ে সেদিন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টাসহ আওয়ামীলীগকে নিশ্চিহ্ন করতে চেয়েছিল। সৌভাগ্যবশতঃ সেদিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেঁচে যান। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা ছিল আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য। এখনও ষড়যন্ত্র চলমান রয়েছে। তাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

              সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শেখ সাইফুল ইসলাম যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ, মাহাবুবুর রহমান মেহের, গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান তুহিন, ভুলতা ইউ‌নিয়ন প‌রিষ‌দের চেয়ারম্যান আরিফুল হক ভুঁইয়া, নারায়ণগঞ্জ জেলা প‌রিষ‌দের সদস্য শিলা রাণী পাল, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুর রহমান স‌জিব, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক মাসুম চৌধুরী অপু, উপজেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও প্রযু‌ক্তি বিষয়ক সম্পাদক এমায়েত হো‌সেন, রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজমত আলী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপ‌তি ইমন হাসান খোকন, সাধারন সম্পাদক আলমগীর হোসেন, উপ‌জেলা ছাত্রলী‌গের সভাপ‌তি তানজির আহমেদ রিয়াজ ও মুড়াপাড়া কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আমির হোসেন শ্যামল প্রমুখ।

 রিপোর্ট 

 নির্বাহী সম্পাদক 

 দৈনিক নতুন বাজার ৭১.কম

কাউনিয়ায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত
                                  

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ 

 

কাউনিয়া উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ৪৮তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস ২০২৩ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে মঙ্গলবার পালিত হয়। 

উপজেলা ক্যাম্পাসে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবদনের মাধ্যমে কর্মসূচী শুরু করা হয়। শোক র‌্যালী শেষে বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভা ও পুরুস্কার বিতরণ নির্বাহী অফিসার মোঃ মহিদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কোম্পানি কমান্ডার সরদার আব্দুল হাকিম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনোনিতা দাস, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আজিজুল হক মোল্লা, কৃষি কর্মকর্তা শাহনাজ পারভীন, প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা সিঞ্চিতা রহমান, ওসি (তদন্ত) ফরহাদ মন্ডল, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা শামসুজ্জামান আজাদ প্রমূখ। আলোচনা শেষে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এছারাও বিভিন্ন ধর্মীয় উপাশনালয়ে বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনায় আয়োজন করা হয়। 

 

বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে দেশ স্বাধীন হতো না -বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী
                                  

মো: রাসেল মোল্লা 

 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিরা এখনো দেশ বিরোধী নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। তিনি সমগ্র বাঙালি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির মুক্তির জন্য ১৪ বছর কারাবরণ করেছেন। তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে একের পর এক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে আরো আগেই একটি উন্নত দেশে পরিণত হতো। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮ তম শাহাদাত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ১৫ ই আগস্ট মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের রূপগঞ্জ গ্রাম দক্ষিণ নবগ্রাম ফজুর বাড়ি বালুর মাঠ জাঙ্গীর মার্কেট প্রগতি স্বরণী স্কুল, জনতা উচ্চ বিদ্যালয়,ইউসুফগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে আয়োজিত পৃথক পৃথক দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। রূপগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে ইউসুফগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে আয়োজিত শোক সভায় সভাপতিত্ব করেন রূপগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ মশিউর রহমান তারেক, অন্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা ফেরদৌসী আলম নীলা রূপগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ সালাউদ্দিন ভূঁইয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ মাহবুবুর রহমান মেহের, নারায়ণগঞ্জ জেলা সদস্য ও কার্যকরি সদস্য রুপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আনছর আলী, গুলাকান্দার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান তুহিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক এম এ মোমেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইমন হাসান খোকন,ইউসুফগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি দ্বীন মোহাম্মদ দিলু, ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাহিদ হোসেন,মোমেন মোল্লা, রুপগঞ্জ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রাহমাতুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ হোসেন আহমেদ,রুপগঞ্জ ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি কালাম সরকার, রূপগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল আজিজ, সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম জয়, রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক লাকি আক্তার, ১নং ওর্য়াডের ইউ পি সদস্য মো: আলমগীর হোসেন, ১,২,৩ নং ওর্য়াডের মহিলা ইউ পি সদস্য জাকিয়া সুলতানা বেবি, ইউনিয়ন তাঁতিলীগ সাধা: সম্পাদক সোহেল রানা, ১নং ওর্য়াড সভাপতি মুরাদ হোসেন, সাধা:সম্পাদক মো: আতিকুল ইসলাম ভূইয়া, আবু তাহের, মোবারক, প্রমুখ পরে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া শেষে রান্না করা খাবার সকলের মাঝে বিতরণ করা হয়।

 

রিপোর্ট

 নির্বাহী সম্পাদক 

দৈনিক নতুন বাজার ৭১.কম

১৫ আগষ্ট সপরিবারে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও বাংলাদেশকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র হয়েছিল=== বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী 
                                  

মো: রাসেল মোল্লা 

 

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক বলেছেন, "১৫ আগষ্ট সপরিবারে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও বাংলাদেশকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র হয়েছিল। আল্লাহর অশেষ রহমতে বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা দেশের বাহিরে থাকার কারনে প্রানে বেঁচে যান। ১৯৮১ সালে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দেশে ফিরে এই ভঙ্গুর আওয়ামীলীগকে পুনরায় সুসংগঠিত করেন। বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখেছিলেন সোনার বাংলা গড়ার, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন। বঙ্গবন্ধু দেশের স্বাধীনতা দিয়েছিলেন আর তার কন্যা শেক হাসিনা দেশকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিনত করেছেন। দেশের উন্নয়নের এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী নিবাচিত করতে হবে। 

 

জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার (১৫ আগষ্ট) দুপু‌রে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার মুড়াপাড়া এলাকায় বীরপ্রতীক গাজী অ‌ডি‌টো‌রিয়া‌মে বঙ্গবন্ধুর প্র‌তিকৃ‌তি‌তে পুস্পস্তবক অর্পণ ক‌রে শ্রদ্ধা নি‌বেদন, আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহ‌ফিল অনুষ্ঠা‌নে প্রধান অ‌তি‌থির বক্ত‌ব্যে মন্ত্রী এসব কথা ব‌লেন। বীরপ্রতীক গাজী অ‌ডি‌টো‌রিয়া‌মে বঙ্গবন্ধুর প্র‌তিকৃ‌তি‌তে পুস্পস্তবক অর্পণ ক‌রে শ্রদ্ধা নি‌বেদন, আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহ‌ফিল অনুষ্ঠা‌নের আয়োজন করে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠন। এর আগে রূপগঞ্জ উপজেলার ২ টি পৌরসভা ও ৭ টি ইউনিয়ন থেকে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগনের প্রায় ৩০ হাজার নেতাকর্মী আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহ‌ফিল অনুষ্ঠা‌নে যোগ দেয়।  

মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক আর ব‌লেন, "১৯৭১ সা‌লের ১৫ আগস্টে সংগঠিত ইতিহাসের নিকৃষ্টতম হত্যাকাণ্ডে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত খুনি চক্র নিত্য-নতুন ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিকে বাঁধাগ্রস্ত করতে চায়। তারা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে চলা বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা রোধ করতে চায়। এই খুনি চক্র এখনো সোচ্চার রয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মহান আদর্শকে প্রতিটি বাঙালীর জীবনে প্রতিফলিত করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নিবেদিত হয়ে দেশ ও জাতির কল্যাণে সর্বশক্তি নিয়ে আত্মনিয়োগ করলেই জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো সার্থক হবে।”

 

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপ‌তি তোফাজ্জল হো‌সেন মোল্লা’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন,রূপগঞ্জ উপ‌জেলা আওয়ামী ম‌হিলালী‌গের সভাপ‌তি ও তারাবো পৌরসভার মেয়র হাছিনা গাজী, রূপগঞ্জ উপ‌জেলা আওয়ামীলী‌গের সহসভাপ‌তি ও গাজী গ্রু‌পের ব্যবস্থাপনা প‌রিচালক গাজী গোলাম মূর্তজা পাপ্পা, রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা ফেরদৌসী আলম নীলা, মুড়াপাড়া ইউ‌নিয়ন প‌রিষ‌দের চেয়ারম্যান তোফা‌য়েল আহ‌মেদ আলমাছ, রূপগঞ্জ ইউ‌নিয়ন প‌রিষ‌দের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সালাউ‌দ্দিন ভুঁইয়া, গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান তুহিন, ভুলতা ইউ‌নিয়ন প‌রিষ‌দের চেয়ারম্যান আরিফুল হক ভুঁইয়া, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাহেদ আলী, বাংলাদেশ যুবলীগের জনশক্তি ও কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব লায়ন শাহীন মালুম, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্মসাধারন সম্পাদক আব্দুল আজিজ ভুঁইয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্মসাধারন সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মেহের, উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শাহিন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প‌রিষ‌দের সদস্য মোহাম্মদ আনছার আলী, নারায়ণগঞ্জ জেলা প‌রিষ‌দের সদস্য শিলা রানী পাল, উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রান ও সমাজ কন্যান বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মারফত আলী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হারেজ, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক মাসুম চৌধুরী অপু, কাঞ্চন পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম রসুল কলি, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপ‌তি ইমন হাসান খোকন, সাধারন সম্পাদক আলমগীর হোসেন, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন, উপজেলা যুবমহিলালীগের সভাপ‌তি ফের‌দৌসী আক্তার রিয়া, সাধারন সম্পাদক সে‌লিনা আক্তার রিতা, উপ‌জেলা ছাত্রলী‌গের সভাপ‌তি তানজির আহমেদ রিয়াজ, সাধারন সম্পাদক শেখ ফ‌রিদ ভুঁইয়া মাসুম, ভোলাবো ইউনিয়নআওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হোসেন খান, সাধারন সম্পাদক হাসান আশকারী, দাউদপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সৈয়দ রফিকুল ইসলাম, মুড়াপাড়া সরকারী কলেজ ছাত্র সংস‌দের ভি‌পি সাইফুল ইসলাম তু‌হিন, মুড়াপাড়া সরকারী কলেজ ছাত্র সংস‌দের জিএস সা‌দিকুল ইসলাম স‌জিব সহ অ‌নে‌কে৷ 

 

রিপোর্ট 

নির্বাহী সম্পাদক 

দৈনিক নতুন বাজার ৭১.কম


   Page 1 of 104
     জাতীয়
আজ জানা যাবে শরিকদের আসন
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রী সুধী সমাবেশে
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের পর সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছে জিয়া: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
পি কে হালদারের ২২ বছরের কারাদণ্ড
.............................................................................................
বর্ডার খুলে দিলে কেজি হবে ২০-২৫ টাকা
.............................................................................................
পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষ দেশের বোঝা নয়, সম্পদ হবে: পার্বত্যমন্ত্রী
.............................................................................................
রাজবাড়ী-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধ, দূর্ভোগে যাত্রীরা
.............................................................................................
এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে টোল আদায় সাড়ে ৬ কোটি টাকা
.............................................................................................
ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাস পরিদর্শন
.............................................................................................
নবাবগঞ্জে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন
.............................................................................................
ডিএমপি কমিশনারে সঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ
.............................................................................................
‘মানুষ গণতন্ত্রের চেয়ে উন্নয়নে বেশি আগ্রহী’
.............................................................................................
পঁচাত্তরের ১৫ আগষ্ট ও ২০০৪ সালের ২১ আগষ্টের হামলাকারীরা এক ও অভিন্ন শক্তি -বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী
.............................................................................................
কাউনিয়ায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে দেশ স্বাধীন হতো না -বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী
.............................................................................................
১৫ আগষ্ট সপরিবারে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও বাংলাদেশকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র হয়েছিল=== বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী 
.............................................................................................
ডুয়েটে জাতীয় শোক দিবস পালিত
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের খুঁজে বের করতে কমিশন হওয়া উচিত : প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
রূপগঞ্জে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
বিশ্বকাপ ট্রফি নিয়ে শের-ই-বাংলায় উন্মাদনা।
.............................................................................................
৪ নারীর কে ‘ফজিলাতুন নেছা মুজিব পদক’ তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী।
.............................................................................................
বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের অবস্থান কর্মসূচি।
.............................................................................................
ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের মামলা চলবে,তবে সাজা কমতে পারে।
.............................................................................................
বিএনপির দুর্নীতি ও দুঃশাসনের ফলে দেশে সামরিক শাসন জারি হয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
কাউনিয়ায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২৩ উদ্ধোধন
.............................................................................................
কাউনিয়ায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২৩ উদ্ধোধন
.............................................................................................
এনার্জিপ্যাকের বিশ্ব পরিবেশ দিবস উদযাপন
.............................................................................................
কাউনিয়ায় নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস ২০২৩ পালন
.............................................................................................
ফুলবাড়ীতে ভূমি সেবা সপ্তাহ পালিত
.............................................................................................
কাউনিয়ায় ঘুর্ণিঝড়ে বাড়ি ঘর লন্ডভন্ড, উর্তি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি
.............................................................................................
আমতলীতে উপজেলা আওয়ামীলীগে দু’গ্রুপের প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন।
.............................................................................................
বিশ্ব মা দিবসে কাউনিয়ায় দুস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
.............................................................................................
আবহাওয়ার খবর ঘূর্ণিঝড় মোখা। আপডেট ৩ ৯ ই মে ভোর ৫ টা বেজে ২৫ মিনিট।
.............................................................................................
ঘোড়াঘাটে জাতীয় স্বাস্থ্য ও কল্যাণ দিবস পালিত
.............................................................................................
নবাবগঞ্জের হেয়াতপুরে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস পালিত
.............................................................................................
নবাবগঞ্জে মহান মে দিবস পালিত
.............................................................................................
ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, দিনাজপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্তৃক গৃহীত ‘‘জাতীয় স্বাস্থ্য ও কল্যাণ দিবস” টি পালিত হয়।
.............................................................................................
নবাবগঞ্জের আফতাবগঞ্জ শ্রমিক ইউনিয়নের মহান মে দিবস পালন
.............................................................................................
ফুলবাড়ীতে মহান মে দিবস পালিত
.............................................................................................
কাউনিয়ায় প্রশাসনের আয়োজনে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালন
.............................................................................................
ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আসলে কে ছিলেন?
.............................................................................................
কাউনিয়ায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০২৩ পালিত
.............................................................................................
তালসার কাজী লুৎফর রহমান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উৎযাপন,,
.............................................................................................
রূপগঞ্জে মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন
.............................................................................................
কাউনিয়ায় গণহত্যা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা
.............................................................................................
ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুরে ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস পালিত
.............................................................................................
বাঘায় গণহত্যা দিবসে আলোচনা সভা
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম বাষির্কি উপলক্ষে ফুলবাড়ীতে শেখ রাসেল মহিলা ফুটবল ফাইনাল খেলা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।
.............................................................................................
রূপগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উদযাপন
.............................................................................................
নবাবগঞ্জে নানা কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি হাজী ইউসুফ চৌধুরী নাঈম, সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এম.এ মান্নান

নির্বাহী সম্পাদক: মো: রাসেল মোল্লা
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ খন্দকার আজমল হোসেন বাবু, সহ সম্পাদক: কাওসার আহমেদ । প্রধান বার্তা সম্পাদক: আবু ইউসুফ আলী মন্ডল, সহকারী-বার্তা সম্পাদক শারমিন আক্তার মিলি। ফোন: বার্তা বিভাগ 01618868682- 01914220053, সম্পাদক ও প্রকাশক: 01980716232
ঠিকানাঃ বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়- নারায়ণগঞ্জ, সম্পাদকীয় কার্যালয়- জাকের ভিলা, হাজী মিয়াজ উদ্দিন স্কয়ার মামুদপুর, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ। শাখা অফিস : নিজস্ব ভবন, সুলপান্দী, পোঃ বালিয়াপাড়া, আড়াইহাজার, নারায়ণগঞ্জ-১৪৬০, রেজিস্ট্রেশন নং 134 / নিবন্ধন নং 69 মোবাইল : 01731190131,E-mail- notunbazar2015@gmail.com, E-mail : mannannews0@gmail.com, web: notunbazar71.com,
    2015 @ All Right Reserved By notunbazar71.com

Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD