| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   জাতীয় -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শিশুদের শ্রম থেকে সরিয়ে এনে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবেে, স্পিকার

 

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, শিশুদের শ্রম থেকে সরিয়ে এনে শিক্ষার মূলধারায় সম্পৃক্ত করতে হবে। দেশকে এগিয়ে নেওয়ার কাণ্ডারি হচ্ছে শিশু-কিশোর। শিশুদের প্রতিভার পরিপূর্ণ বিকাশ ঘটিয়ে তাদের দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত ‘আরটিভি এসএমসি মনিমিক্স প্রেরণা পদক ২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে স্পিকার এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সমাজসেবা ক্যাটাগরিতে সরেরহাট কল্যাণী শিশু সদন, রাজশাহী; অদম্য মেধাবী ক্যাটাগরিতে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শাহিন আলম, বিজ্ঞান চর্চায় বাংলাদেশ সায়েন্স সোসাইটি, অদম্য সাহসী তরুণী ক্যাটাগরিতে প্রিয়াংকা ভদ্র, ক্রীড়ায় তাহসিন তাজওয়ার জিয়া এবং শিশু কিশোর পত্রিকা ক্যাটাগরিতে মাসিক টইটুম্বুর-কে পদক প্রদান করা হয়।

স্পিকার বলেন, ১৯৭৪ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রথম শিশুনীতি প্রণয়ন করেন। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার শিশুশ্রম নিরসন নীতি-২০১০, শিশু আইন-২০১৩, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার ও সুরক্ষা আইন-২০১৩ এবং শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র আইন-২০২১ প্রণয়ন করেছে। সরকারের পাশাপাশি সামাজিকভাবে সচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে। অনেক বিত্তশালী ব্যক্তি ও সংস্থা আজ শিশুদের উন্নয়নে কাজ করছেন।

ড. শিরীন শারমিন বলেন, বর্তমান সরকার শিশুদের যথাযথ পরিচর্যা ও তাদের প্রতিভার সুষ্ঠু বিকাশে বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যুহার এখন প্রায় শূন্যের কোঠায়। শিশুদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবেশ, পুষ্টি- সব বিষয়গুলো নিশ্চিত করেছে সরকার। শিশুদের দক্ষ মানবসম্পদ ও পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে বাস্তবমুখী কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে চলেছে সরকার।

আরটিভির চেয়ারম্যান মোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

 

 

শিশুদের শ্রম থেকে সরিয়ে এনে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবেে, স্পিকার
                                  

 

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, শিশুদের শ্রম থেকে সরিয়ে এনে শিক্ষার মূলধারায় সম্পৃক্ত করতে হবে। দেশকে এগিয়ে নেওয়ার কাণ্ডারি হচ্ছে শিশু-কিশোর। শিশুদের প্রতিভার পরিপূর্ণ বিকাশ ঘটিয়ে তাদের দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত ‘আরটিভি এসএমসি মনিমিক্স প্রেরণা পদক ২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে স্পিকার এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সমাজসেবা ক্যাটাগরিতে সরেরহাট কল্যাণী শিশু সদন, রাজশাহী; অদম্য মেধাবী ক্যাটাগরিতে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শাহিন আলম, বিজ্ঞান চর্চায় বাংলাদেশ সায়েন্স সোসাইটি, অদম্য সাহসী তরুণী ক্যাটাগরিতে প্রিয়াংকা ভদ্র, ক্রীড়ায় তাহসিন তাজওয়ার জিয়া এবং শিশু কিশোর পত্রিকা ক্যাটাগরিতে মাসিক টইটুম্বুর-কে পদক প্রদান করা হয়।

স্পিকার বলেন, ১৯৭৪ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রথম শিশুনীতি প্রণয়ন করেন। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার শিশুশ্রম নিরসন নীতি-২০১০, শিশু আইন-২০১৩, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার ও সুরক্ষা আইন-২০১৩ এবং শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র আইন-২০২১ প্রণয়ন করেছে। সরকারের পাশাপাশি সামাজিকভাবে সচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে। অনেক বিত্তশালী ব্যক্তি ও সংস্থা আজ শিশুদের উন্নয়নে কাজ করছেন।

ড. শিরীন শারমিন বলেন, বর্তমান সরকার শিশুদের যথাযথ পরিচর্যা ও তাদের প্রতিভার সুষ্ঠু বিকাশে বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যুহার এখন প্রায় শূন্যের কোঠায়। শিশুদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবেশ, পুষ্টি- সব বিষয়গুলো নিশ্চিত করেছে সরকার। শিশুদের দক্ষ মানবসম্পদ ও পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে বাস্তবমুখী কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে চলেছে সরকার।

আরটিভির চেয়ারম্যান মোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

 

 

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ নিলেন কে এম খালিদ
                                  

করোনার টিকার বুস্টার ডোজ নিয়েছেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। সোমবার (২৭ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ডক্টরস ডরমিটরিতে অবস্থিত করোনার টিকাদান কেন্দ্রে তিনি ফাইজারের এই টিকা গ্রহণ করেন।

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার ফয়সল হাসান স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।এতে বলা হয়, প্রতিমন্ত্রী টিকার বুস্টার ডোজ গ্রহণের পর শারীরিকভাবে সম্পূর্ণ সুস্থ ও স্বাভাবিক রয়েছেন। তার কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়নি। বয়স্ক ব্যক্তি ও করোনার সম্মুখসারির যোদ্ধাদের টিকার বুস্টার ডোজ গ্রহণেরও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

সাধারণ মানুষকে করোনার টিকা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ ও অনুপ্রাণিত করতে এবং টিকা সংক্রান্ত গুজব ও অপপ্রচার প্রতিরোধ করতে মন্ত্রিসভার দ্বিতীয় সদস্য হিসেবে গত ২৮ জানুয়ারি টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণ করেন কে এম খালিদ। এরপর গত ১ এপ্রিল টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেন তিনি।

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি হলে বিএনপিই দায়ী থাকবে , হাসান মাহমুদ
                                  

বিএনপির চিকিৎসকদের তত্বাবধানেই বেগম খালেদা জিয়া চিকিৎসা নিচ্ছেন তার স্বাস্থ্যের অবনতি হলে বিএনপিই দায়ী থাকবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।  

সোমবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক ইস্যুতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, নিয়ম অনুযায়ী দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সরকারি হাসপাতালে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালে হওয়ার কথা। কিন্তু তিনি অনেকটা মুক্তভাবে থাকছেন। বিএনপির চিকিৎসকদের তত্বাবধানেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। সেক্ষেত্রে কোনো অবনতি ঘটলে দায় তাদেরই নিতে হবে।

সদ্য সমাপ্ত চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচন নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, এবার দ্বিতীয়বারের মতো দলীয় প্রতীকে ইউপি নির্বাচন হচ্ছে। এখানে আমরা দেখছি বেশিরভাগ ইউপিই আওয়ামীলীগের প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এরপরের অবস্থানের আছেন আওয়ামীলীগের বিদ্রোহীরা। এর পরে আছে বিএনপি। তারা দলীয়ভাবে অংশ না নিলেও স্বতন্ত্রভাবে তাদের প্রার্থী ছিল। তাদের মধ্যে মাত্র কয়েকজন জয় পেয়েছেন। এই নির্বাচনই প্রমাণ করে দেশে আওয়ামীলীগের বিকল্প আওয়ামী লীগই, অন্য কেউ নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ঢাকা প্রেসক্লাবের দ্বি বার্ষিক নির্বাচনে বিজয়ীদের চূড়ান্ত তালিকা
                                  

আবু ইউসুফ নিজস্ব প্রতিবেদক 

আসন্ন ঢাকা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে 11 ডিসেম্বর রোজ শনিবার সকাল 9 টা থেকে বিকাল 4 টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

দায়িত্বরত নির্বাচন কমিশনার এর ফলাফল ঘোষণা অনুযায়ী ।

আসন্ন ঢাকা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে বিজয় দেন নামের তালিকা।

সভাপতি আওরঙ্গজেব কামাল,সহ সভাপতি মোঃ জয়নাল আবেদীন ফারুক,বসির আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক এ মান্নান,যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শেখ শহিদুল রহমান পাবেল, অর্থ সম্পাদক মাহমুদা খানম আসমা, সাংগঠনিক সম্পাদক সমান সংখ্যক ভোট পাওয়ায় এই পদে নির্বাচত হয়েছে এস এম দেলোয়ার হোসেন ও শহিদুল ইসলাম জুয়েল, দপ্তর সম্পাদক , সুরাইয়া আক্তার সেলিনা , প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম কামাল, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সোহেল রানা রাজ, কার্যনির্বাহী সদস্য, শেখ মোঃ ফরিদ আহমেদ চিশতী।

নির্বাচিত হয়েছেন।

ওমিক্রন মোকাবিলায় আমরা প্রস্তুত আছি’স্বাস্থ্য অধিদপ্তর
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র ও রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম বলেছেন, ওমিক্রন মোকাবিলায় আমরা প্রস্তুত আছি। তবে এক্ষেত্রে কমিউনিটিতে আমাদের সবার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ অংশগ্রহণ জরুরি।

রোববার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে দেশের করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ কথা জানান তিনি।

নাজমুল ইসলাম বলেন, আমরা যদি এই মুহূর্তে সর্বোচ্চ সতর্কতা নিশ্চিত করতে পারি, পরস্পর পরস্পরকে সহযোগিতা, যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, সঠিক উপায়ে নাক-মুখ ঢেকে আমরা যদি মাস্ক পরি, একই সঙ্গে টিকা কার্যক্রমকে যদি আমরা আরও বেগবান করতে সহায়তা করি, তাহলে সেটি ওমিক্রন হোক বা অন্য কোনো ভ্যারিয়েন্ট হোক সেটিকে আমরা যথাযথভাবে মোকাবিলা করতে সক্ষম হব।

রাজনীতিবিদ, সামাজিক ও ধর্মীয় নেতা, উন্নয়ন সহযোগীসহ প্রত্যেকের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ অংশগ্রহণের মাধ্যমে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিরোধের কাজটি আমরা করতে পারব বলে জানান নাজমুল ইসলাম

আফ্রিকান দেশগুলো থেকে আসা ব্যক্তিদেরকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে, কিন্তু অন্য দেশগুলোর বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এই মুখপাত্র বলেন, আফ্রিকান দেশগুলোতে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়েছে বলেই তাদের জন্য বাড়তি বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। অন্য যেকোনো দেশেও যদি কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়, তাহলে তাদের বেলায়ও আমরা একই রকম সিদ্ধান্ত নেব। এ ছাড়া ইউরোপের করোনা পরিস্থিতির দিকেও গভীর মনোযোগ রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

টিকা গ্রহণের পাশাপাশি ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়টি শতভাগ গুরুত্ব দিতে হবে বলেও জানান ডা. নাজমুল ইসলাম।

শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়তে সম্পদ ব্যবহার করুন : প্রধানমন্ত্রী
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অস্ত্র প্রতিযোগিতার পরিবর্তে সর্বজনীন টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে সকলকে তাদের সম্পদ ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়ে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে একটি শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়ে তোলার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্বের এই চরম সঙ্কটময় সময়ে আমি অস্ত্র প্রতিযোগিতায় সম্পদ ব্যয় না করে তা সার্বজনীন টেকসই উন্নয়ন অর্জনে ব্যবহার করার আহ্বান জানাই। আসুন, আমরা সার্বজনীন শান্তির জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে কর্মযজ্ঞে নেমে পরি।’

রোববার (৫ ডিসেম্বর) ‘বিশ্ব শান্তি সম্মেলন-২০২১’ এর সমাপনী ভাষণে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে শনিবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে দুই দিনব্যাপী শান্তি সম্মেলন শুরু হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, গত দু’বছর ধরে করোনা ভাইরাস মহামারী পুরো বিশ্বব্যবস্থাকে এক নতুন সঙ্কটের মুখোমুখি করেছে। এই সঙ্কট প্রমাণ করেছে আমরা কেউই আলাদা নই। কাজেই, শান্তিপূর্ণভাবে এই পৃথিবীতে বসবাস করতে হলে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে একটি জবাবদিহিতামূলক বিশ^ব্যবস্থা গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শান্তির আদর্শকে পুরোপুরি ধারণ করে পারস্পারিক শ্রদ্ধাবোধ ও সমঝোতার ভিত্তিতে সকলের সঙ্গে কাজ করার জন্য বাংলাদেশ সদা প্রস্তুত রয়েছে।

স্বাধীনতার জন্য জাতির সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এর মধ্য দিয়ে শান্তির মূল্য এবং সমগ্র মানব জাতির গভীরতম আকাক্সক্ষাসমূহ অনুধাবন করেছি।

ফিলিস্তিনের ভ্রাতৃপ্রতীম জনগণের প্রতি সমর্থন পূণব্যক্ত করে তিনি বলেন, বরাবরের মতো ফিলিস্তিনের জনগণের ন্যায্য দাবির পক্ষে আমাদের অবিচল সমর্থন রয়েছে।

সম্পদের সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও আমরা ১১ লাখের অধিক মিয়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে সাময়িক আশ্রয় দিয়েছি উল্লেখ করে সরকার প্রধান বলেন, এর ফলে এই অঞ্চলে একটি বড় ধরনের মানবিক বিপর্যয় এড়ানো সম্ভব হয়েছে।

তাদের নিজ মাতৃভূমিতে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবসনের জন্য তার সরকার শান্তিপূর্ণ কূটনৈতিক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জেমস গর্ডন ব্রাউনের একটি ভিডিও বার্তা অনুষ্ঠানে পরিবেশিত হয়।

সিঙ্গাপুরের সাবেক প্রধানমন্ত্রী গোহ চোক টং, ইউনেস্কোর সাবেক মহাপরিচালক ইরিনা

বোকোভা, এবং হাডসন ইনস্টিটিউট’র এর দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ার পরিচালক হোসেন হাক্কানি সমাপনী অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন।

বিশ্ব শান্তি সম্মেলন-২০২১-এর আয়োজক কমিটির সভাপতি, জাতীয় সংসদের স্পিকার, ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আবদুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালের মূল অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

এর আগে বিশ্ব শান্তি সম্মেলন-২০২১-এর থিম সং পরিবেশিত হয় এবং একটি অডিও-ভিডিও প্রেজেন্টেশন প্রদর্শন করা হয়।

বিজয়ের মাস শুরু আজ থেকে
                                  

আজ ০১ ডিসেম্বর (বুধবার) থেকে শুরু হলো বাংলাদেশের স্বাধীনতার সাক্ষর বিজয়ের মাস। মহান মুক্তিযুদ্ধে এ মাসের ১৬ তারিখে চূড়ান্ত বিজয়ের মাধ্যমে বাঙালি জাতির জীবনে সবচেয়ে গৌরবের অধ্যায় সূচিত হয়। এই দিনটি বেসরকারীভাবে মুক্তিযোদ্ধারা মুক্তিযোদ্ধা দিবস হিসেবে পালন করে আসছেন প্রতিবছর।

 

 

 

এবারের বিজয় দিবসটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্য বহন করছে। এ বছর স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করছে জাতি।

১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। বাঙালি জাতি হাজার বছরের শৃঙ্খল থেকে মুক্তির লক্ষ্যে দীর্ঘ লড়াই-সংগ্রাম চালিয়ে আসে। এ আন্দোলন-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় পাকিস্তানের উপনিবেশিক শাসন, শোসন, নির্যাতনের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে গড়ে ওঠা আন্দোলন এক পর্যায়ে স্বাধীনতা সংগ্রামে রূপ নেয়। ধারাবাহিকভাবে চলে আসা এ আন্দোলন-সংগ্রাম ১৯৭১-এর মার্চে এসে স্ফুলিংয়ে রূপ নেয়। ৭ মার্চ ঐতিহাসিক ভাষণে বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নিতে জাতিকে দিকদির্দেশনা দেন। বাঙালির এ স্বাধীনতার আন্দোলনকে স্তব্ধ করতে ভেতরে ভেতরে প্রস্তুতি নিতে থাকে পাকিস্তানি জান্তারা। ২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী বর্বরচিতভাবে বাংলাদেশের নিরীহ মানুসের ওপর ঝাপিয়ে পড়ে। এরপরই ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুুজিব রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। বঙ্গবন্ধুকে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। শুরু হয় বর্বর পাকিস্তানি বাহিনীর বাঙালি নিধন অভিযান।

 

 

 

তবে পাকিস্তানের এ বর্বরতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ায় বাংলার সর্বস্তরের মানুষ। হাতে তুলে নেয় অস্ত্র, শুরু হয় রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধ। দীর্ঘ ৯ মাস পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে চলে বাঙালির মরণপণ যুদ্ধ। বীরত্বপূর্ণ মুক্তিযুদ্ধের এক পর্যায়ে বাঙালি বিজয়ের দিকে ধাবিত হতে থাকে। ডিসেম্বর মাসে মুক্তিযুদ্ধ চূড়ান্ত বিজয়ের দ্বার প্রান্তে এসে পৌঁছায়। এক পর্যায়ে বাঙালির বীরত্বের কাছে পরাজয় স্বীকার করতে বাধ্য হয় পাকিস্তানের আধুনিক অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত সামরিক বাহিনী। ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তান আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়। রক্তক্ষয়ী এ মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ ও দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়।

 

 

 

এ বছর বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি হলো। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি অর্থাৎ সুবর্ণজয়ন্তীতে এবারের বিজয়ের মাস বাঙালির কাছে আরও তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে এসেছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে সরকার এবং ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ স্বাধীনতার পক্ষের বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ডিসেম্বর মাসব্যপী স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করবে। ইতোমধ্যে মাসব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে ১০ শতাংশ কোটা বাতিল
                                  

গেজেটে অন্তর্ভুক্ত হয়নি এমন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেটভুক্তির জন্য বিদ্যমান রাষ্ট্রীয় ভাতাভোগী সাধারণ মুক্তিযোদ্ধাদের সংখ্যার ১০ শতাংশের বেশি তালিকাভুক্ত করা যাবে না- এমন বিধান বেআইনি ঘোষণা করে বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট।

পৃথক ১০টি রিটে বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি বিচারপতি মুহম্মদ মাহবুব-উল ইসলামের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালতে তিনটি আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ব্যারিস্টার তৌফিক ইনাম টিপু।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালে উপজেলা যাচাই-বাছাই কমিটির মাধ্যমে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের একটি ‘ক’ তালিকা প্রস্তুত করা হয় এবং ওই তালিকাতে রিট আবেদনকারীরা তালিকাভুক্ত হন। কিন্তু ১০ শতাংশ কোটার সিদ্ধান্তটির ফলে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা অনেকেই বাদ পড়ে যান। সে কারণে ওই সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে উপজেলার ‘ক’ তালিকাভুক্ত প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারা হাইকোর্টে রিট আবেদন দায়ের করেন।

ব্যারিস্টার তৌফিক ইনাম বলেন, প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের সংখ্যা আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রণ করা শুধু বেআইনিই নয় অসাংবিধানিকও। কারণ প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ১০ শতাংশের কম বা বেশিও হতে পারে। একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাকেও তালিকার বাইরে রাখা যেমন বেআইনি, একইভাবে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা নয় এমন একজনকেও তালিকাভুক্ত করা বেআইনি।  

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ১৮ এপ্রিল জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা) একটি পরিপত্রটি জারি করে। ওই পরিপত্রে বলা হয় যে প্রত্যেক উপজেলায় গেজেট অন্তর্ভুক্ত হয়নি এমন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেটভুক্তির জন্য বিদ্যমান রাষ্ট্রীয় ভাতাভোগী সাধারণ মুক্তিযোদ্ধাদের সংখ্যার ১০ শতাংশের বেশি তালিকাভুক্ত করা যাবে না।

হাফ ভাড়ার সিদ্ধান্তের বিষয়ে যা বললেন সেতুমন্ত্রী
                                  

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার বিষয়ে শিগগিরই যৌক্তিক সিদ্ধান্ত আসবে।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের সেমিনার হলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও কাউন্সিল অধিবেশনে তিনি এ কথা বলেন ।

এদিন সকাল ১০টায় পবিত্র কোরআন তেলওয়াত, জাতীয় সংগীত এবং শোক বার্তার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। পরে সংগঠনের বিভাগীয় প্রতিনিধিরা একে একে বক্তব্য রাখেন।

দুপুরে সভায় উপস্থিত হন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার দাবিতে তিনি বলেন, এ বিষয়ে একটি যৌক্তিক সিদ্ধান্ত আসবে।

মন্ত্রী বলেন, আজ (বৃহস্পতিবার) বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) প্রধান কার্যালয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হবে। তাতে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। আশা করছি, সভা থেকে এ বিষয়ে একটি যৌক্তিক সিদ্ধান্ত আসবে। পাশাপাশি শনিবার বিআরটিএর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বাস মালিকদের সঙ্গে বসে এ ব্যাপারে যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নেবেন বলে আমি আশা রাখি।

সড়কমন্ত্রী আরও বলেন, বিআরটিসির বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া চালুর বিষয়ে আমরা চিন্তাভাবনা করছি। শুধু সরকারি বাসে নয়, বেসরকারি বাসেও শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া চালুর বিষয়ে আমি সংশ্লিষ্টদের কাছে সহযোগিতা কামনা করবো।

সংগঠনের ১৩০টি ইউনিটের প্রতিনিধিরা এতে অংশ নিয়েছেন। সভায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কার্যকরী পরিষদের সব কর্মকর্তা এবং সারাদেশের সব জেলা, শাখা/ইউনিটের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

সংগঠনের সভাপতি মসিউর রহমান রাঙ্গার সভাপতিত্বে সভার সঞ্চালনা করছেন সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্ল্যাহ।

এলডিসি উত্তোরণের চূড়ান্ত সুপারিশ বাংলাদেশের জন্য মাইলফলক: অর্থমন্ত্রী
                                  

স্বল্পোন্নত দেশ হতে বাংলাদেশের উত্তরণের সুপারিশ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে অনুমোমন পেয়েছে। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম বৈঠকের ৪০তম প্লেনারি সভায় বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) এই ঐতিহাসিক সুপারিশ গৃহীত হয়।  

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এক বিবৃতিতে এই ঐতিহাসিক অর্জনকে বাংলাদেশের উন্নয়ন যাত্রার এক মহান মাইলফলক হিসেবে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বাংলাদেশের জাতির পিতা মহান স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন পূরণে তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বের মাধ্যমে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জিত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় গত এক দশকের বেশী সময় ধরে বাংলাদেশের যে অপ্রতিরোধ্য উন্নয়ন যাত্রা-এটি তারই একটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। এই সাফল্যের অংশীদার এই দেশের সকল শ্রেণি পেশার মানুষ।     

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ এর আগে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি (সিডিপি) ত্রিবার্ষিক পর্যালোচনা সভায় দ্বিতীয়বারের মতো স্বল্পোন্নত দেশ হতে উত্তরণ বা গ্র্যজুয়েশনের মানদন্ড পূরণের মাধ্যমে উত্তরণের সুপারিশ লাভ করেছিল।

সিডিপি একই সঙ্গে বাংলাদেশকে ২০২১ থেকে ২০২৬ সাল পর্যন্ত পাঁচ বছরব্যাপী প্রস্তুতিকালীন সময় প্রদানের সুপারিশ করে। জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদ ইতোমধ্যে সিডিপির সুপারিশ অনুমোদন করেছে। আশা করা হচ্ছে যে, পাঁচ বছর প্রস্তুতিকালশেষে বাংলাদেশের উত্তোরণ ২০২৬ সালে কার্যকর হবে।

বিশেষভাবে উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যেটি কিনা জাতিসংঘ নির্ধারিত উত্তরণের তিনটি মানদন্ড পূরণের মাধ্যমে উত্তরণের যোগ্যতা অর্জন করেছে। বাংলাদেশের এই অর্জন বিশ্ব দরবারে এই দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে এবং আরও অধিকতর উন্নয়নের যাত্রাকে তরান্বিত করবে।

প্রস্তুতিকালীন এই সময়ে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে প্রাপ্ত সকল সুযোগ সুবিধা অব্যাহত থাকবে। এ ছাড়া বর্তমান নিয়মে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের বাজারে বাংলাদেশ ২০২৬ সালের পর আরও তিন বছর অর্থাৎ ২০২৯ সাল পর্যন্ত শুল্কমুক্ত কোটামুক্ত সুবিধা ভোগ করতে পারবে।      

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ এমন একটি সময়ে স্বল্পোন্নত দেশ হতে উত্তরণের জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছে যখন সমগ্র দেশ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন করছে।

উত্তোরণ পরবর্তী সময়ে স্বল্পোন্নত দেশ হতে প্রাপ্ত সুযোগ সুবিধাসমূহ অব্যাহত রাখাসহ মসৃণ ও টেকসই উত্তরণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নেতৃত্বে বেসরকারি খাত ও উন্নয়ন সহযোগীদের সাথে নিয়ে প্রয়োজনীয় নীতিকৌশল ও পদক্ষেপ প্রণয়ন করছে।

ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদ চত্তরে কৃষকদের কাছ থেকে উন্মুক্ত লটারিতে ধান ক্রয়ে লটারি অনুষ্টিত॥
                                  

মোঃ আফজাল হোসেন, দিনাজপুর প্রতিনিধি
ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদ চত্তরে কৃষকদের কাছ থেকে উন্মুক্ত লটারিতে ধান ক্রয়ে লটারি অনুষ্টিত। গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টায় ফুলবাড়ী উপজেলা চত্তরে কৃষকদের কাছ থেকে উন্মুক্ত লটারিতে ধান ক্রয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্বে করেন এবং সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ মঈন উদ্দিন। ধান ক্রয় লটারি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রিয়াজ উদ্দীন। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ফুলবাড়ী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোছাঃ হাসিনা ভূইয়া, ফুলবাড়ী উপজেলা আনসার ও ভিডিপি অফিসার মোঃ হাসানুল মবিন, উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মোঃ শফিউল ইসলাম, উপজেলা কৃষি অফিসের উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ অফিসার মোঃ আতিকুল ইসলাম, ফুলবাড়ী উপজেলা খাদ্য গুদামের খাদ্য পরিদর্শক শ্রী অনিমেশ কুমার সরকার, উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক মোঃ নাসি আল আকতার, মাদিলা হাট খাদ্য গুদামের উপ-খাদ্য পরিদর্শক মোঃ মাহাবুব আলম ইমরান। চলতি আমন ধান ২০২১এর আওতায় সরাসরি প্রকৃত কৃষকদের নিকট হতে ধান সংগ্রহ উপলক্ষে আগৃহী কৃষকদের তালিকা অনুযায়ী লটারির মাধ্যমে ধান ক্রয় করা হবে। এবার ৬৫০ জন কৃষকের নিকট থেকে ধান সংগ্রহ করা হবে। তবে ৫০০জন কৃষকের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করা হবে এর মধ্যে ৭টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা মোট ১ হাজার মোট্রিকটন ধান সংগ্রহ করা হবে। তবে সরকারি ধানের মূল্য হবে ২৭ টাকা এবং চাউল ৪০ টাকা দরে ক্রয় করা হবে। এ সময় প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ ও উপজেলা খাদ্য অফিসের সকল কর্মকর্তা কর্মচারী ও কৃষকগণ লটারি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। পরিশেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রিয়াজ উদ্দীন লটারির টোকন তুলে উদ্বোধন করেন। আয়োজনে ছিলেন উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা খাদ্য অফিস।

মুক্তিযোদ্ধারা যে দলেরই হোক তারা সম্মান পাবেন
                                  

মুক্তিযোদ্ধারা যে দলেরই হোক না কেন তারা যথার্থ সম্মান পাবেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একটি সময় মুক্তিযোদ্ধারা পরিচয় দিতে ভয় পেতেন। সেই মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান নিশ্চিত করেছে আওয়ামী লীগ সরকার।

সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে রোববার সকালে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে যুক্ত হয়ে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধে সশস্ত্র বাহিনীর যোগদান বাংলাদেশের বিজয় ত্বরান্বিত করেছে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় অর্জিত স্বাধীনতা কখনো ব্যর্থ হতে পারে না বলে মন্তব্য করে তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা কেউ বাধাগ্রস্ত করতে পারবে না। পৃথিবীর কোথাও মুক্তিযুদ্ধের বিজয়গাঁথাকে বিকৃৃত করা না হলেও বাংলাদেশে তা হয়েছিল জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৫ই আগস্টের হত্যাকাণ্ডের পর ঘাতকচক্র স্বাধীনতার চেতনাকে নস্যাৎ করতে চেয়েছিল।

এর আগে, বীরশ্রেষ্ঠসহ খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীদের হাতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে সম্মানী চেক ও উপহার তুলে দেন।

এছাড়া সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর আট জন সদস্যকে ২০২০-২১ সালের শান্তিকালীন পদক দেয়া হয়।

এর আগে, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী সকালে ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।

এসময় সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন।

পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শিখা অনির্বাণের পরিদর্শন বইয়ে সাক্ষর করেন। এর আগে, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে শিখা অনির্বাণে স্বাগত জানান তিন বাহিনীর প্রধান ও সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার।
এরপর সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল মোহাম্মদ শাহীন ইকবাল এবং বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান নিজ নিজ বাহিনীর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানান। এরপর তিন বাহিনীর প্রধানরা সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করেন।দেশের সব সেনানিবাস, নৌ ও বিমান বাহিনী ঘাঁটির মসজিদে ফজরের নামাজ শেষে বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় দিনের কর্মসূচি।

সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলাদা বাণী দিয়েছেন।

উন্নয়নের জন্য দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা অপরিহার্য: রাষ্ট্রপতি
                                  

রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ বলেছেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা অপরিহার্য।

রোববার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলায় জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

সন্ধ্যায় মিঠামইনে রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় জনকল্যাণে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি ও জনগণের সম্মিলিত উদ্যোগের উপর জোর দেন রাষ্ট্রপতি।

তিনি বলেন, নতুন প্রজন্ম যাতে উন্নত জীবনযাপন করতে পারে সেজন্য উন্নয়নকে ব্যাহত করে এমন কাজ থেকে সবাইকে দূরে থাকতে হবে ।

মতবিনিময়কালে রাষ্ট্রপতি যোগাযোগ, শিক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে হাওর এলাকার উন্নয়ন তুলে ধরেন।
ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম সড়ককে ঘিরে যে পর্যটন সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে সেই  সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে সবাইকে অতিমুনাফার মনোভাব পরিহার করে সেবার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ।

শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া শেষে শুধু চাকরির পেছনে না ঘুরে নিজেদের স্বাবলম্বী ও আত্মনির্ভরশীল  করে গড়ে তোলার উপর জোর দেন রাষ্ট্রপতি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক এবং রাষ্ট্রপতির সচিবগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

সিসিইউতে খালেদা জিয়া
                                  

সিসিইউতে (করোনারি কেয়ার ইউনিট) রাখা হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে। শনিবার রাতে তাঁকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউতে নেওয়া হয়। বিএনপির একটি সূত্র কালের কণ্ঠকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে। 

বিএনপির ওই সূত্র জানায়, রাত সোয়া ১২টার দিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম হাসপাতালে যান। এর এক ঘণ্টার মধ্যে ডাক্তার এফ এম সিদ্দিকী, ডাক্তার সামসুল আরেফিন, খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক মামুন হাসপাতালে যান। রাত দেড়টার দিকে মির্জা আব্বাসও সেখানে যান। এর আগে থেকেই ডাক্তার এ জেড এম জাহিদ হোসেন ও খালেদা জিয়ার পুত্রবধূ সৈয়দা শর্মিলা রহমান সিঁথি সেখানে ছিলেন। পরে রাত আড়াইটার দিকে খালেদা জিয়াকে এন্ডোসকপির জন্য হাসপাতালটির ৮ তলায় নেওয়া হয়। পরে পরীক্ষা শেষে তাঁকে ৪ তলার সিসিইউতে রাখা হয়েছে।

এর আগে চিকিৎসার ফলোআপের জন্য গতকাল শনিবার বিকেলে তাকে গুলশানের বাসভবন ফিরোজা থেকে এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে তাকে হাসপাতালটির ব্লক ‘বি’-এর সাত হাজার ২০৫ নম্বর কেবিনে ভর্তি করা হয়।

এর আগে জ্বরে আক্রান্ত হলে, গত ১২ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় তাকে বাসায় নিয়ে আসা হয়। তার আগে করোনায় আক্রান্ত হলে, ২৭ এপ্রিল তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ১৯ জুন রাতে গুলশানের বাসভবনে ফেরেন খালেদা জিয়া।

ফ্রান্সের সঙ্গে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা সম্মতিপত্র সই
                                  

ব্যবসা, বিনিয়োগ ও প্রতিরক্ষা সহযোগিতা আরও জোরদারে রাজি হয়েছে বাংলাদেশ ও ফ্রান্স। এই উদ্দেশ্য পূরণে উভয়পক্ষ প্রতিরক্ষা সহযোগিতার ক্ষেত্রে একটি লেটার অব ইনটেন্ট সই করেছে।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্যারিসে এলিসি প্রাসাদে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বৈঠকের পর প্রতিরক্ষা সহযোগিতার সম্মতিপত্রে সই করেছে।

 

বৈঠকের পরে এক যৌথ ঘোষণায় বলা হয়, দুই দেশের অংশীদারিত্বে প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বিষয় আরও দৃঢ় করতে উভয় পক্ষ আগ্রহী।

সূত্রে জানা গেছে, দুই দেশ প্রতিরক্ষা সহযোগিতার যে সম্মতিপত্র সই করেছে, তাতে বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীর দক্ষতা বাড়ানোর জন্য আধুনিক প্রশিক্ষণের পাশাপাশি প্রযুক্তি বিনিময়ের মতো বিষয়গুলো যুক্ত থাকছে।

যৌথ ঘোষণায় দুই দেশ তাদের এই সম্পর্কের একটি কৌশলগত দিক নির্দেশনা দেওয়ার লক্ষ্যে সহযোগিতার সব বিষয়ে নিয়মিতভাবে রাজনৈতিক আলোচনা আয়োজনের ওপর জোর দিয়েছে। 

দুই পক্ষ রাজনীতি, কূটনীতি, প্রতিরক্ষা, নিরাপত্তা, বাণিজ্য, বিনিয়োগ, টেকসই উন্নয়ন, জলবায়ু পরিবর্তন, শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিনিময়সহ নানা ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়ানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে। 

এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ও ফ্রান্স সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ফোরামে সহযোগিতায় জোর দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট (বিজি-২১০৬) মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল ১১টা ২০ মিনিটে চার্লস দ্যা গল বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

প্রেস সচিব জানান, বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে ফ্রান্সে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত খন্দকার মোহাম্মদ তালহা ও স্থানীয় প্রশাসনের প্রধান স্বাগত জানিয়েছেন। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সরকারি বাসভবন এলিসি প্যালেসে পৌঁছালে তাকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান প্রেসিডেন্ট।

ইহসানুল করিম জানান, প্রধানমন্ত্রীকে সেখানে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয় এবং প্রেসিডেন্টের গার্ড রেজিমেন্ট তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করে। 

পদ্মা সেতুর পিচ ঢালাইয়ের কাজ শুরু
                                  

পদ্মা সেতুর সড়ক পথের কার্পেটিং (বিটুমিনাস ওয়ার্ক) শুরু হয়েছে। বুধবার সকাল ৯টা ৪০ মিনিট থেকে এ কাজ শুরু হয় বলে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবু নাসের টিপু জানিয়েছেন।

তিনি জানান, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সকাল থেকেই এ কাজ মনিটর করছেন। এর মাধ্যমে পদ্মা সেতুতে লক্ষ্য অর্জনের মুকুটে আরেকটি পালক যোগ হয়েছে।

 

মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্যমতে, ইতোমধ্যে মূল সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে ৯৫ শতাংশ। প্রায় ৮৯ শতাংশ প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি হয়েছে। আর নদী শাসন কাজের অগ্রগতি হয়েছে ৮৬ শতাংশ। মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তে সংযোগ সড়কের কাজ শতভাগ শেষ হয়েছে। 

আগামী বছরের জুন মাসের আগেই পদ্মা সেতু যানবাহন চলাচলের জন্য সম্পূর্ণ উপযোগী হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। 

পদ্মা সেতুপথের কার্পেটিং বা পিচ ঢালাইয়ের কাজ  ৪০ নম্বর খুঁটির কাছে শুরু হয়। চার লেনের সেতুটির মাঝখানে ডিভাইডার দেওয়া আছে। তাই পশ্চিম প্রান্তে এ কার্পেটিং শুরু হচ্ছে। 

এর আগে পরীক্ষামূলকভাবে সেতুর ৪০ নম্বর খুঁটির কাছে ৬০ মিটার অংশে কার্পেটিং হয়েছিল। এরপর থেকেই মুন্সীগঞ্জের দিকে কার্পেটিং এগোতে থাকবে। এই কাজকে ঘিরে গেল ২০ অক্টোবর পানিপ্রতিরোধী প্রলেপ (ওয়াটারপ্রুফ লেয়ার) দেওয়া হয়েছে।


   Page 1 of 92
     জাতীয়
শিশুদের শ্রম থেকে সরিয়ে এনে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবেে, স্পিকার
.............................................................................................
করোনা টিকার বুস্টার ডোজ নিলেন কে এম খালিদ
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি হলে বিএনপিই দায়ী থাকবে , হাসান মাহমুদ
.............................................................................................
ঢাকা প্রেসক্লাবের দ্বি বার্ষিক নির্বাচনে বিজয়ীদের চূড়ান্ত তালিকা
.............................................................................................
ওমিক্রন মোকাবিলায় আমরা প্রস্তুত আছি’স্বাস্থ্য অধিদপ্তর
.............................................................................................
শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়তে সম্পদ ব্যবহার করুন : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
বিজয়ের মাস শুরু আজ থেকে
.............................................................................................
বীর মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে ১০ শতাংশ কোটা বাতিল
.............................................................................................
হাফ ভাড়ার সিদ্ধান্তের বিষয়ে যা বললেন সেতুমন্ত্রী
.............................................................................................
এলডিসি উত্তোরণের চূড়ান্ত সুপারিশ বাংলাদেশের জন্য মাইলফলক: অর্থমন্ত্রী
.............................................................................................
ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদ চত্তরে কৃষকদের কাছ থেকে উন্মুক্ত লটারিতে ধান ক্রয়ে লটারি অনুষ্টিত॥
.............................................................................................
মুক্তিযোদ্ধারা যে দলেরই হোক তারা সম্মান পাবেন
.............................................................................................
উন্নয়নের জন্য দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা অপরিহার্য: রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
সিসিইউতে খালেদা জিয়া
.............................................................................................
ফ্রান্সের সঙ্গে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা সম্মতিপত্র সই
.............................................................................................
পদ্মা সেতুর পিচ ঢালাইয়ের কাজ শুরু
.............................................................................................
রাজধানীতে সিটিং ও গেইট লক সার্ভিস থাকবে না: মালিক সমিতি
.............................................................................................
নিজের গান সুরক্ষায় মামলার আবেদন জেমসের
.............................................................................................
লেডি বাইকারকে খুঁজছে পুলিশ, মাদকসহ গ্রেফতার প্রেমিক
.............................................................................................
৭ দিনের সফরে কিশোরগঞ্জ যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
ঢাকায় বাসে অতিরিক্ত ভাড়া, চলছে বাকযুদ্ধ
.............................................................................................
ডেমরায় বাসচাপায় স্কুলশিক্ষকের মৃত্যু
.............................................................................................
বাস-ট্রাক-লঞ্চ মালিকদের সঙ্গে বসছে সরকার
.............................................................................................
অতিরিক্ত ভাড়া নিলে কঠোর ব্যবস্থা: কাদের
.............................................................................................
কারখানার চাল ভেঙে নিচে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু
.............................................................................................
বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে আসছে হরতাল
.............................................................................................
লঞ্চের ভাড়া বেড়েছে ৩৫ শতাংশ, ধর্মঘট প্রত্যাহার
.............................................................................................
লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা
.............................................................................................
পরিবহন ধর্মঘট ইস্যুতে সভা স্থগিত
.............................................................................................
বসুন্ধরার এমডিকে হত্যাচেষ্টা: সিলেটের ব্যবসায়ী নেতাদের নিন্দা
.............................................................................................
যশোরে ২১ রুটে বাস বন্ধ, ট্রেনে উপচে পড়া ভিড়
.............................................................................................
বাড়ানোর পরও ডিজেলের দাম প্রতিবেশী দেশের চেয়ে কম
.............................................................................................
পরিবহন ধর্মঘট চলবে রোববার পর্যন্ত
.............................................................................................
বিএমইটিতে ‘বঙ্গবন্ধু ওয়াল অব ফেইম’
.............................................................................................
সকাল ৬টা থেকে সারা দেশে পণ্য পরিবহন-বাস বন্ধ
.............................................................................................
ঘোষণা ছাড়াই তেলের দাম বাড়ানো আত্মঘাতী: রাঙ্গা
.............................................................................................
টোল বাড়ল বঙ্গবন্ধু সেতুর
.............................................................................................
চলন্ত বাসে অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে ২ যুবক
.............................................................................................
গাজীপুরে কেমিক্যাল কারখানায় আগুন
.............................................................................................
লন্ডন পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
মাগুরায় নির্বাচনী আচরণবিধি বিষয়ে সমন্বয় সভা
.............................................................................................
জেল হত্যা: ইতিহাসের আরেক কালো অধ্যায়
.............................................................................................
বরিস জনসন-প্রিন্স চার্লসের সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক
.............................................................................................
প্রবাসীদের দেশে বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
ব্যস্ত চামড়া শিল্পের শ্রমিকরা
.............................................................................................
রাজধানীর যেসব মার্কেট বন্ধ মঙ্গলবার
.............................................................................................
বৈশ্বিক অভিযোজনে অর্থায়ন-রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাব
.............................................................................................
চবির ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় ৭১ শতাংশই ফেল
.............................................................................................
হাফিজুর রহমানকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা দেওয়ার দাবি
.............................................................................................
ফ্রান্সের তিন স্থানে গার্ড অব অনার পাবেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এম.এ মান্নান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ খন্দকার আজমল হোসেন বাবু, সহ সম্পাদক কাওসার আহমেদ র্বাতা সম্পাদক আবু ইউসুফ আলী মন্ডল, সহকারী বার্তা সম্পাদক শারমিন আক্তার । বার্তা বিভাগ ফোন০১৬১৮৮৬৮৬৮২

ঠিকানাঃ বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়- নারায়ণগঞ্জ, সম্পাদকীয় কার্যালয়- জাকের ভিলা, হাজী মিয়াজ উদ্দিন স্কয়ার মামুদপুর, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ। শাখা অফিস : নিজস্ব ভবন, সুলপান্দী, পোঃ বালিয়াপাড়া, আড়াইহাজার, নারায়ণগঞ্জ-১৪৬০, রেজিস্ট্রেশন নং 134 / নিবন্ধন নং 69 মোবাইল : 01731190131, 01930226862, E-mail : mannannews0@gmail.com, web: notunbazar71.com, facebook- notunbazar / সম্পাদক dhaka club
    2015 @ All Right Reserved By notunbazar71.com

Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop