| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শিক্ষা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ঢাবির সেই ছাত্রীর আরেক মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

সম্প্রতি ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরসহ বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের ৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়েরের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সেই ছাত্রী এবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাকে নিয়ে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগে মামলা করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর শাহবাগ থানায় সাইবার বুলিংয়ের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলায় অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মামুনুর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন ওই ছাত্রী। আজ দুপুরের দিকে মামলাটি করা হয়।

মামলায় ওই ছাত্রী বলেন, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরসহ ছাত্র অধিকার পরিষদের ৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর থেকে ফেসবুকের বিভিন্ন আইডি এবং গ্রুপে আমার নামে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টিকারী মিথ্যা সংলাপ পাবলিক পোস্ট, কমেন্ট ও শেয়ারের মাধ্যমে প্রচার করে আমার ব্যক্তিগত ও সামাজিক মর্যাদাহানি করে আসছে। এই ঘটনায় আমি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হচ্ছি। এই ব্যাপারে অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণসহ শাস্তির দাবি জানান ওই ছাত্রী।

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী ধর্ষণের মামলা করার পর বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়কের দায়িত্ব থেকে হাসান আল মামুনকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তাকে সাময়িকভাবে অব্যাহতি দিয়ে ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করেছে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

বুধবার বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

তদন্ত কমিটিতে ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা, সংগঠনটির কেন্দ্রীয় পরিষদের দুজন যুগ্ম আহ্বায়ক তারেক রহমান ও রাফিয়া সুলতানাকে রাখা হয়েছে। তাদেরকে আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সুপারিশসহ ঘটনার বিস্তারিত তথ্য সংগঠনের নির্বাহী পরিষদের কাছে জমা দিতে বলা হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই ছাত্র অধিকার পরিষদ গণমানুষের যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত অধিকার আদায়ে সোচ্চার ভূমিকা পালন করে আসছে। নারীর প্রতি বৈষম্য ও নিপীড়ন দমন এবং নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় ছাত্র অধিকার সব সময়ই সোচ্চার ভূমিকা পালন করে আসছে। তাই সংগঠনের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সত্যতা নিরূপণে এবং সুষ্ঠু ন্যায়বিচারের স্বার্থে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গত রবি ও মঙ্গলবার রাজধানীর লালবাগ ও কোতোয়ালি থানায় ধর্ষণ, অপহরণ ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে চরিত্রহননের অভিযোগে নুরুল হক নুর ও তার ছয় সহযোগীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দুটি মামলা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের এক ছাত্রী।

প্রথম মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের স্নাতকোত্তর উত্তীর্ণ হাসান আল মামুনকে, যিনি শুরু থেকে ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর এই পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক। দ্বিতীয় মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে পরিষদের আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগকে।

বাদীর ভাষ্য, একই বিভাগে পড়া এবং ছাত্র অধিকার পরিষদের কাজে থাকার কারণে হাসান আল মামুনের সঙ্গে তার ‘প্রেমের সম্পর্ক’ গড়ে ওঠে। এর সুযোগ নিয়ে মামুন চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি তার লালবাগের বাসায় নিয়ে তাকে ‘ধর্ষণ’ করেন। এ অভিযোগেই তিনি লালবাগ থানার মামলাটি দায়ের করেন।

আর কোতোয়ালি থানার মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ধর্ষণের ওই ঘটনার পর ওই শিক্ষর্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে সোহাগ তাকে হাসপাতালে ভর্তি করান। সুস্থ হওয়ার পর মামুনকে বিয়ের জন্য চাপ দেন ওই তরুণী। তখন সোহাগ তাকে ‘সহযোগিতার আশ্বাস’ দেন এবং মামুনের সঙ্গে দেখা করানোর কথা বলে সদরঘাট হয়ে ‘লঞ্চে করে চাঁদপুরে’ নিয়ে যান।

কিন্তু চাঁদপুরে মামুনকে না পেয়ে ওই ছাত্রীর সন্দেহ হয়। সেখান থেকে ফেরার পথে লঞ্চে সোহাগ তাকে ‘ধর্ষণ করেন’ বলে অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়।

এজাহারে বলা হয়, এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ওই তরুণী নুরের সঙ্গে দেখা করেন। নুর তাকে প্রথমে ‘মীমাংসা’ করে দেওয়ার আশ্বাস দিলেও পরে ‘বাড়াবাড়ি করতে নিষেধ করে অপপ্রচার চালিয়ে সম্মানহানী করার’ হুমকি দেন।

এছাড়া নুরুল হক নুরসহ মামলার তালিকায় আছেন সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি নাজমুল হুদা ও কর্মী আবদুল্লাহ হিল বাকি।

ঢাবির সেই ছাত্রীর আরেক মামলা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

সম্প্রতি ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরসহ বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের ৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়েরের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সেই ছাত্রী এবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাকে নিয়ে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগে মামলা করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর শাহবাগ থানায় সাইবার বুলিংয়ের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলায় অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মামুনুর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন ওই ছাত্রী। আজ দুপুরের দিকে মামলাটি করা হয়।

মামলায় ওই ছাত্রী বলেন, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরসহ ছাত্র অধিকার পরিষদের ৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর থেকে ফেসবুকের বিভিন্ন আইডি এবং গ্রুপে আমার নামে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টিকারী মিথ্যা সংলাপ পাবলিক পোস্ট, কমেন্ট ও শেয়ারের মাধ্যমে প্রচার করে আমার ব্যক্তিগত ও সামাজিক মর্যাদাহানি করে আসছে। এই ঘটনায় আমি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হচ্ছি। এই ব্যাপারে অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণসহ শাস্তির দাবি জানান ওই ছাত্রী।

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী ধর্ষণের মামলা করার পর বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়কের দায়িত্ব থেকে হাসান আল মামুনকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তাকে সাময়িকভাবে অব্যাহতি দিয়ে ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করেছে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

বুধবার বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

তদন্ত কমিটিতে ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা, সংগঠনটির কেন্দ্রীয় পরিষদের দুজন যুগ্ম আহ্বায়ক তারেক রহমান ও রাফিয়া সুলতানাকে রাখা হয়েছে। তাদেরকে আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সুপারিশসহ ঘটনার বিস্তারিত তথ্য সংগঠনের নির্বাহী পরিষদের কাছে জমা দিতে বলা হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই ছাত্র অধিকার পরিষদ গণমানুষের যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত অধিকার আদায়ে সোচ্চার ভূমিকা পালন করে আসছে। নারীর প্রতি বৈষম্য ও নিপীড়ন দমন এবং নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় ছাত্র অধিকার সব সময়ই সোচ্চার ভূমিকা পালন করে আসছে। তাই সংগঠনের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সত্যতা নিরূপণে এবং সুষ্ঠু ন্যায়বিচারের স্বার্থে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গত রবি ও মঙ্গলবার রাজধানীর লালবাগ ও কোতোয়ালি থানায় ধর্ষণ, অপহরণ ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে চরিত্রহননের অভিযোগে নুরুল হক নুর ও তার ছয় সহযোগীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দুটি মামলা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের এক ছাত্রী।

প্রথম মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের স্নাতকোত্তর উত্তীর্ণ হাসান আল মামুনকে, যিনি শুরু থেকে ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর এই পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক। দ্বিতীয় মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে পরিষদের আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগকে।

বাদীর ভাষ্য, একই বিভাগে পড়া এবং ছাত্র অধিকার পরিষদের কাজে থাকার কারণে হাসান আল মামুনের সঙ্গে তার ‘প্রেমের সম্পর্ক’ গড়ে ওঠে। এর সুযোগ নিয়ে মামুন চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি তার লালবাগের বাসায় নিয়ে তাকে ‘ধর্ষণ’ করেন। এ অভিযোগেই তিনি লালবাগ থানার মামলাটি দায়ের করেন।

আর কোতোয়ালি থানার মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ধর্ষণের ওই ঘটনার পর ওই শিক্ষর্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে সোহাগ তাকে হাসপাতালে ভর্তি করান। সুস্থ হওয়ার পর মামুনকে বিয়ের জন্য চাপ দেন ওই তরুণী। তখন সোহাগ তাকে ‘সহযোগিতার আশ্বাস’ দেন এবং মামুনের সঙ্গে দেখা করানোর কথা বলে সদরঘাট হয়ে ‘লঞ্চে করে চাঁদপুরে’ নিয়ে যান।

কিন্তু চাঁদপুরে মামুনকে না পেয়ে ওই ছাত্রীর সন্দেহ হয়। সেখান থেকে ফেরার পথে লঞ্চে সোহাগ তাকে ‘ধর্ষণ করেন’ বলে অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়।

এজাহারে বলা হয়, এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ওই তরুণী নুরের সঙ্গে দেখা করেন। নুর তাকে প্রথমে ‘মীমাংসা’ করে দেওয়ার আশ্বাস দিলেও পরে ‘বাড়াবাড়ি করতে নিষেধ করে অপপ্রচার চালিয়ে সম্মানহানী করার’ হুমকি দেন।

এছাড়া নুরুল হক নুরসহ মামলার তালিকায় আছেন সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি নাজমুল হুদা ও কর্মী আবদুল্লাহ হিল বাকি।

প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার পূর্বপ্রস্তুতিতে ৯ নির্দেশনা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পুনরায় চালুর নির্দেশিকা অনুযায়ী বিদ্যালয় খোলার পূর্বপ্রস্তুতি নিতে পরিপত্র জারি করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় চালুর ক্ষেত্রে প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম গ্রহণ করতে স্কুলগুলোকে নয় দফা নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বুধবার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন স্বাক্ষরিত পরিপত্র জারি করা হয়।

এর আগে গত ৩ সেপ্টেম্বর পুনরায় বিদ্যালয় চালুর জন্য নির্দেশিকা প্রস্তুত করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই নির্দেশিকা মেনে প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার আগে যেসব পূর্বপ্রস্তুতি নেয়া দরকার তা নিতে নির্দেশ দেয়া হয়। স্থানীয়ভাবে প্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনা এবং বিদ্যালয় আঙ্গিনা ও আসবাবপত্র পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করারও নির্দেশ দেয়া হয়।

পরিপত্রে বলা হয়, কোভিড-১৯ মহামারি নিয়ন্ত্রণের জন্য বিশ্বব্যাপী বিদ্যালয়গুলোর ন্যায় বাংলাদেশেও প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে। এর ফলে শ্রেণি কার্যক্রমে ব্যাঘাতসহ শিশুর শিখন যোগ্যতার ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। বিশেষ করে প্রান্তিক শিক্ষার্থীরা যত বেশি সময় বিদ্যালয়ের বাইরে থাকবে, তাদের বিদ্যালয়ে ফেরার সম্ভাবনা ততই কমে যাবে। তাই জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে যথা-শিগগিরই বিদ্যালয় পুনরায় চালু করা অতীব জরুরি। বিদ্যালয় পুনরায় চালু করার পূর্বে পূর্ব প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা আবশ্যক। এ লক্ষ্যে গত ৩ সেপ্টেম্বর কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় পুনরায় চালুর বিষয়ে একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করা হয় এবং সেই অনুযায়ী কার্যক্রম গ্রহণ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি (পিইডিপি-৪) এর আওতায় বিদ্যালয় পর্যায়ে উন্নয়ন পরিকল্পনা (স্লিপ) প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন গাইডলাইনের আলোকে স্ব স্ব বিদ্যালয় নিজস্ব পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন অব্যাহত রয়েছে। বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে ওই গাইডলাইনের আলোকে বিদ্যালয় পুনরায় চালু করার পূর্বে পূর্বপ্রস্তুতিমূলক বিবিধ কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে। এ পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যালয়ে স্লিপ বরাদ্দ ফান্ড দিয়ে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কার্যক্রম গ্রহণ করা যাবে।

প্রতিষ্ঠানকে যা করতে হবে

ক. ক্লাসরুমসহ বিদ্যালয়ের পুরো আঙ্গিনা সর্বদা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা এবং জীবাণুমুক্ত করা;

খ. বিদ্যালয়ের সমস্ত আসবাবপত্র সার্বক্ষণিকভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা এবং জীবাণুমুক্ত করা;

গ. শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্র ইনফ্রারেড থার্মোমিটার স্থানীয়ভাবে ক্রয়;

ঘ. সাবান, ব্লিচিং পাউডার ইত্যাদি ক্রয়;

ঙ. ওয়াশব্লক ও টয়লেট সার্বক্ষণিক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা;

চ. মগ, জগ, বালতি ক্রয়;

ছ. অস্থায়ীভাবে হাত ধোয়ার স্থান নির্ধারণ করে হাত ধোয়ার পানি ও পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা;

জ. পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য শ্রমিকের যৌক্তিক সেবা ক্রয় (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে);

ঝ. কোভিড-১৯ মেয়াদকালে ইন্টারনেট ডাটা ক্রয় (এ খাতে বরাদ্দ না থাকলে)।

পরিপত্রে বলা হয়, বিদ্যালয়ে বরাদ্দ স্লিপ ফান্ড থেকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে স্থানীয়ভাবে সাশ্রয়ী মূল্যে সামগ্রী/সেবা ক্রয়/সংগ্রহ করা যাবে। কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় পুনরায় চালুর নির্দেশিকার আলোকে স্ব স্ব বিদ্যালয় স্থানীয়ভাবে প্ল্যান গ্রহণ করে তা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করবে। উপযুক্ত ব্যয়ের ক্ষেত্রে সরকারের প্রচলিত আর্থিক বিধি-বিধান অবশ্যই প্রতিপালন করতে হবে।

ভিপি নুরের বিরুদ্ধে ঢাবি ছাত্রির ধর্ষণ মামলা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের হয়েছে।

রোববার রাত সাড়ে ১২টায় রাজধানীর লালবাগ থানায় ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে মামলা করেছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী।

সোমবার দুপু‌রে লালবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কে এম আশরাফ উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ভিকটিমকে মেডিকেল পরীক্ষা করতে বলা হয়েছে। বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে তিনি ভর্তি রয়েছেন।

প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য আসছে সুখবর
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের চিকিৎসা সেবায় হাসপাতাল তৈরির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। চলতি সপ্তাহে একটি সভা করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে প্রধান করে ৩২ সদস্যের একটি মূল কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। এজন্য ‘প্রাথমিক শিক্ষা পরিবার হাসপাতাল’ নামকরণের প্রস্তাবও করা হয়েছে।

ডিপিই থেকে জানা গেছে, প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের ৪ লাখ ২০ হাজার শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন। তাদের ও পরিবারের সদস্যদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ঢাকার মধ্যে বা তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় একটি হাসপাতাল নির্মাণের নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিষয়টি মৌখিকভাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের সম্মতিতে এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেন, প্রাথমিকের বিশাল একটি পরিবার রয়েছে। তাদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে একটি হাসপাতাল হলে সকলে উপকৃত হবে। সেই চিন্তাভাবনা থেকে কর্মকর্তারা একটি প্রস্তাবনা তৈরি করেছেন। এ সংক্রান্ত একাধিক কমিটি গঠন করে তাদের হাসাপাতাল স্থাপন সংক্রান্ত প্রস্তাবনা দিতে বলা হয়েছে। প্রস্তাবনা পেলে পরবর্তী কার্যক্রম শুরু করা হবে বলে জানান তিনি।

ডিপিই’র সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আব্দুর রেজ্জাক সিদ্দিকী বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের সদস্যদের জন্য একটি হাসপাতাল তৈরির পরিকল্পনা শুরু করা হয়েছে। চলতি সপ্তাহে এ সংক্রান্ত একটি সভা করে ডিপিই’র মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহকে প্রধান করে ৩২ সদস্যদের একটি মূল কমিটি ও চারটি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, হাসপাতাল স্থাপনে অর্থ সংস্থান, জমি নির্বাচন, হাসপাতালের গঠন ও সেবা সংক্রান্ত বিষয়ে উপকমিটির সদস্যদের মূল কমিটিকে প্রস্তাব দিতে বলা হয়েছে। সেসব প্রস্তাব মূল কমিটির মাধ্যমে অনুমোদন করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হবে। সেখান থেকে অনুমোদন দেয়া হলে রাজধানীর কোনো স্থানে অথবা তার আশেপাশে একটি হাসপাতাল স্থাপনের কাজ শুরু করা হবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত ২৭ আগস্ট
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবারের (২৭ আগস্ট) মধ্যে এই সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

চলতি বছরের পহেলা এপ্রিল থেকে সারা দেশে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল এইচএসসি পরীক্ষা। অংশ নেয়ার কথা প্রায় ১৩ লাখ শিক্ষার্থীর। এদিকে আগামী পহেলা নভেম্বর থেকে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট বা জেএসসি পরীক্ষা। যেখানে প্রায় ২৭ লাখ পরীক্ষার্থী অংশ নেবে। কিন্তু করোনা মহামারিতে গত ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ভেঙে পড়েছে সব পরীক্ষার সময়সূচী। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, দু সপ্তাহের নোটিশে পরীক্ষা নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। ২৫ আগস্টের পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ফল প্রকাশ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রথম ধাপের ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে একাদশ শ্রেণির ভর্তির ফল প্রকাশ করা হয়েছে। প্রথম ধাপে কলেজে ভর্তি হতে সারাদেশে মোট ১৩ লাখ ৪২ হাজার ৬৯৩ জন আবেদন করেছিল। তাদের মধ্যে ভর্তির জন্য মনোনীত হয়েছে ১২ লাখ ৭৭ হাজার ৭২১ জন।

প্রকাশিত ফল অনুযায়ী, ঢাকা বোর্ডের আওতায় বিভিন্ন কলেজে দুই লাখ ৮৮ হাজার ২৯৮ জন রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের এসএমএসে ফল জানানো হবে। একইসাথে একটি সিকিউরিটি কোড পাঠানো হবে। এ কোডটি ভর্তি নিশ্চয়নের জন্য সংগ্রহ করতে হবে। এছাড়াও ভর্তির নির্ধারিত ওয়েবসাইটেও (http://www.xiclassadmission.gov.bd/) একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ফল জানা যাবে।

হচ্ছে না প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

হামারি করোনাভাইরাসের কারণে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী (ইইডি) পরীক্ষা এবার না নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ক্লাস মূল্যায়নের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করা হবে। এ বছর কেন্দ্রীয়ভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত না হওয়ায় বৃত্তি দেয়া হবে না, তবে উপবৃত্তি দেয়া হবে। এ সংক্রান্ত প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পাঠানো প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার দুপুরে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, `শিক্ষার্থীদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে চাই না। এজন্য এ বছর সমাপনী-ইবতেদায়ি পরীক্ষা বাতিল করতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি সারসংক্ষেপ পাঠাই। তাতে প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিয়েছেন। মঙ্গলবার সেটি আমাদের হাতে এসেছে।`

প্রতিমন্ত্রী বলেন, `চলতি বছর কেন্দ্রীয়ভাবে সমাপনী-ইবতেদায়ি পরীক্ষা নেয়া না হলেও শিক্ষার্থীদের ক্লাস মূল্যায়নের মাধ্যমে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে উন্নীত করা হবে।`

তবে স্কুল খোলা সম্ভব হলে পঞ্চম শ্রেণি ছাড়া অন্যান্য ক্লাসের পরীক্ষাগুলো নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়ার সচিব আকরাম আল হোসেন বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতির কারণে সমাপনী-ইবতেদায়ি পরীক্ষা বাতিলে গত ১৯ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি সারসংক্ষেপ পাঠানো হয়। এ নিয়ে সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউসের উপস্থিতিতে শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এর ভিত্তিতে একটি সারসংক্ষেপ তৈরি করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়।’

সচিব বলেন, ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কবে খোলা হবে সে বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। দীঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় প্রাথমিকের জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমিকে (নেপ) পাঠক্রমের সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করে প্রস্তাব দিতে বলা হয়। তারা সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বর বিদ্যালয় খোলা হলে কতটুকু পড়ানো হবে সে বিষয়ে প্রস্তাব পাঠায়।’

সচিব আরও বলেন, `যেহেতু সেপ্টেম্বরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না তাই মঙ্গলবার সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে একটি ভার্চুয়াল সভা করে পরবর্তী দুটি প্রস্তাব চূড়ান্ত করা হয়েছে।’

আকরাম আল হোসেন বলেন, ‘এ বছর কেন্দ্রীয়ভাবে সমাপনী-ইবতেদায়ি পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব না হওয়ায় পঞ্চম শ্রেণির বৃত্তি প্রদান করা হবে না, তবে নিয়মিত কার্যক্রম হিসেবে উপবৃত্তি প্রদান করা হবে। আগামী বছর পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব হলে আবারো বৃত্তি কার্যক্রম শুরু করা হবে।`

প্রসঙ্গত, দেশে প্রায় ৩০ লাখ শিক্ষার্থী চলতি বছরের ১৭ নভেম্বর থেকে পঞ্চম শ্রেণির সমাপনী-ইবতেদায়ি পরীক্ষায় বসার কথা ছিল। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রায় ছয় মাস ধরে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকায় অবশেষে এই পরীক্ষা বাতিল করা হলো।

মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি বিদ্যা নিকেতনে জাতীয় শোক দিবস পালিত
                                  

মোঃ মনির হোসেনঃ

নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলার পাঠানটুলিস্থ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি বিদ্যা নিকেতনে ১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। 

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। করোনা পরিস্থিতির কারনে স্বল্প পরিসরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষিকাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বাতিল হচ্ছে পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা
                                  
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা চলতি বছর থেকে আর থাকছে না। একই সঙ্গে বাতিল হতে যাচ্ছে মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী (ইইসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা। করোনা পরিস্থিতির কারণে এই দুই পরীক্ষা বাতিলের নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। গত সপ্তাহে এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউসের উপস্থিতিতে শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে উভয় মন্ত্রণালয়ে পৃথক দুটি সারসংক্ষেপ তৈরি হচ্ছে। আগামী রোববারের মধ্যে এটি অনুমোদনের জন্য পাঠানো হতে পারে। জানা গেছে, সমাপনী পরীক্ষা না হলেও এই দুই স্তরের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। এই ফলের ওপর ভিত্তি করে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের একটি অংশকে মেধাবৃত্তি দেওয়ার চিন্তা আছে। শিক্ষাবর্ষ দীর্ঘ না করে বছরের মধ্যেই ছাত্রছাত্রীদের শ্রেণিভিত্তিক লেখাপড়া শেষ করার চিন্তাভাবনা চলছে। সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বরের মধ্যে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া সম্ভব হলে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ডিসেম্বরে বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। আর ডিসেম্বরের মধ্যে তা সম্ভব না হলে শিক্ষার্থীদের পরবর্তী শ্রেণিতে ‘অটো-পাস’ দিয়ে তুলে দেওয়া হবে। এই উভয় ক্ষেত্রেই পাঠ্যবই বা সিলেবাসের যে অংশটুকু পড়ানো সম্ভব হবে না, তার অত্যাবশ্যকীয় পাঠ পরের শ্রেণিতে দেওয়া হবে। এজন্য জাতীয় পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) ‘কারিকুলাম ম্যাপিং’ করে দেবে। এ লক্ষ্যেই কাল বুধবার এনসিটিবিতে কারিকুলাম বিশেষজ্ঞদের বৈঠক শুরু হচ্ছে। এছাড়া কয়েকদিন ধরে এ নিয়ে ময়মনসিংহে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমিতে (নেপ) বিশেষজ্ঞদের বৈঠক চলছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষার সিনিয়র সচিব আকরাম-আল-হোসেন বলেন, শিক্ষার্থীদের আমরা ন্যূনতম ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে চাই না। পরিস্থিতি যখন স্বাভাবিক হবে তখনই তারা স্কুলে যাবে। যেহেতু কবে প্রতিষ্ঠান খোলা যাবে তা আমরা জানি না। তাই একাধিক বিকল্প হাতে রেখে শিক্ষা কার্যক্রম শুরুর পরিকল্পনা তৈরির কাজ চলছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন বলেন, করোনায় শিক্ষায় ক্ষতি পূরণে বিশেষ করে সামনে কোন মাসে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিলে কী ধরনের পদক্ষেপ নিতে হবে সে সংক্রান্ত একটা খসড়া প্রস্তাব আমরা পেয়েছি। মতামতকে আমরা গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। এ নিয়ে এনসিটিবি কাজ করবে। সূত্র : যুগান্তর
কাল থেকে শুরু একাদশে ভর্তি
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

রোববার (৯ আগস্ট) থেকে অনলাইনে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। এই ভর্তি কার্যক্রম চলবে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। পূর্বনির্ধারিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত ১০ মে থেকে একাদশে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরুর নির্দেশনা দিয়ে নীতিমালা জারি করা হয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাস সংক্রমণের জন্য তখন ভর্তি প্রক্রিয়া পিছিয়ে যায়। এর পর ৯ আগস্টকে চূড়ান্ত করে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরুর ঘোষণা দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির তথ্য মতে, শিক্ষার্থীদের http://www.xiclassadmission.gov.bd থেকে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। বিকাশ, নগদ, সোনালী ব্যাংক, টেলিটক এবং রকেটের মাধ্যমে টাকা পরিশোধ করা যাবে। জানা গেছে, একজন শিক্ষার্থীকে কমপক্ষে ৫টি আর সর্বোচ্চ ১০টি কলেজ পছন্দক্রম অনুসারে আবেদন করতে হবে। এর পর মেধা এবং পছন্দক্রম অনুসারে নির্দিষ্ট কলেজে ভর্তির জন্য মনোনীত করা হবে। একাদশে ভর্তির জন্য সব শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবক, সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে ভর্তি কার্যক্রম শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

 

যেভাবে আবেদন করতে হবে
এবার শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র অনলাইনে আবেদনের সুযোগ পাচ্ছেন। www.xiclassadmission.gov.bd এই ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন ফি ১৫০ টাকা। এই ফি শিক্ষার্থীকে তার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার রোল নম্বর, বোর্ড, পাসের সাল উল্লেখ করে আবেদন করতে হবে।

আবেদন ও ফল প্রকাশের সময়
একাদশ শ্রেণিতে এইচএসসি ও আলিম শিক্ষার্থীদের ভর্তির পুনঃনির্ধারিত সময়সূচি প্রকাশ করে শিক্ষা বোর্ডগুলো। সূচি অনুযায়ী, ভর্তির জন্য প্রথম দফায় অনলাইনে আবেদন নেওয়া হবে ৯ আগস্ট থেকে ২০ আগস্ট পর্যন্ত। তবে, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে অনলাইন সার্ভিস ও কল সেন্টার বন্ধ থাকবে। প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে ২৫ আগস্ট রাত ৮টায়।

শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে ২৬ আগস্ট থেকে ৩০ আগস্ট রাত ৮টার মধ্যে। শিক্ষার্থী সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে প্রথম পর্যায়ের সিলেকশন এবং আবেদন বাতিল হবে। দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদন গ্রহণ ৩১ আগস্ট থেকে চলবে ২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত। পছন্দক্রম অনুসারে প্রথম মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ হবে ৪ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। আর দ্বিতীয় পর্যায়ের আবদনের ফল প্রকাশ হবে একই দিন (৪ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টায়। দ্বিতীয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চায়ন ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৬ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত। শিক্ষার্থী সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে দ্বিতীয় পর্যায়ের সিলেকশন এবং আবেদন বাতিল হবে।

তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ চলবে ৭ ও ৮ সেপ্টেম্বর। পছন্দক্রম অনুযায়ী দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল এবং তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ হবে ১০ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। তৃতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে ১১ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টার মধ্যে। সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে আবেদন বাতিল বলে গণ্য হবে আর কলেজভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ হবে ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টায়। আর ভর্তি চলবে ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ভর্তি প্রক্রিয়ায় জটিলতা ও ব্যয় কমাতে এসএমএসের মাধ্যমে আবেদন প্রক্রিয়া বাতিল করা হয়েছে। শুধু অনলাইনে সর্বোচ্চ ১০টি প্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

কোটা প্রসঙ্গ
এ বছর একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিতে মুক্তিযোদ্ধা, প্রবাসী ও বিকেএসপি কোটা বহাল থাকছে। তবে অন্যান্য কোটা নিয়ে নীতিমালায় কোনো কিছু উল্লেখ করা হয়নি। একাদশে বিশেষ কোটা হিসেবে ৫ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা, দশমিক পাঁচ শতাংশ বিকেএসপি এবং দশমিক পাঁচ শতাংশ প্রবাসী কোটা বহাল রয়েছে। কিন্তু প্রবাসী সন্তানদের ভর্তির বিষয়ে সরাসরি বোর্ডে আবেদন করতে হবে।

ভর্তি ফি
এ বছর ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার এমপিওভুক্ত কলেজে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ হাজার টাকা। এছাড়া ঢাকার মধ্যে আংশিক এমপিওভুক্ত ও এমপিওবিহীন প্রতিষ্ঠানের বাংলা মাধ্যমে ভর্তির জন্য ৯ হাজার এবং ইংরেজি মাধ্যমের ভর্তি ফি ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের জন্য উন্নয়ন ফি ৩ হাজার টাকার বেশি করা যাবে না। এছাড়া মফস্বল ও পৌর এলাকার জন্য ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার টাকা, পৌর জেলা সদরে ২ হাজার টাকা, ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকায় ৩ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না। প্রতিটি খাতে অর্থ আদায়ের ক্ষেত্রে রসিদ প্রদানের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

উন্নয়নের ধারাবাহিতায় ইবির চার বছর
                                  

কুষ্টিয়া প্রতিনিধিঃ

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)। স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকারি এই বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার পর থেকে নানা কারণে তার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি। প্রতিষ্ঠালাভের পর অনেক উপাচার্যই বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার হাল ধরলেও দৃশ্যমান তেমন উন্নয়ন সাধিত হয়নি।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর থেকে এর অন্যতম একটি এজেন্ডা ছিল, এটিকে আধুনিক ও আন্তর্জাতিকমানের একটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলা। যাতে করে দেশীয় শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বিদেশি শিক্ষার্থীরাও এখানে পড়ালেখা ও গবেষণার সুযোগ পান। কিন্তু প্রশাসনিক দক্ষতা ও পারিপাশির্^ক পরিবেশের অভাবে তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি।

 

তবে অতিতের তুলনায় বর্তমান ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের চিত্র অনেকটা ভিন্ন। ২০১৬ সালে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিকীকরণের প্রত্যয়ে ১২তম উপাচার্য হিসেবে অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী দায়িত্বগ্রহণ করেন। এরপর থেকে একাডেমিক-প্রশাসনিক কার্যক্রমে অগ্রগতি ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন থেকে শুরু করে সর্বক্ষেত্রেই আমুল পরিবর্তন সাধিত হয়, যা আজ দৃশ্যমান।

দীর্ঘ ১৬ বছর পর ৪র্থ সমাবর্তন আয়োজন, ৫৯টি বিভাগ সম্বলিত অর্গানোগ্রাম পাশ, এশিয়া ও ইউরোপসহ বিশে^র বিভিন্ন দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষর, অবকাঠামোগত উন্নয়নে একনেক সভাকর্তৃক ৫৩৭ কোটি টাকার মেগা প্রকল্প পাশ (যেটি চলমান), গোটা ক্যাম্পাসকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা, সর্বক্ষেত্রে দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি প্রদর্শন বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

একনজরে বিগত চারবছরে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নয়নের কিছু চিত্র:

একাডেমিক উন্নয়ন:

দীর্ঘ ১৬ বছর পর ২০১৮ সালের ৭ জানুয়ারি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশের সর্ববৃহৎ সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়। নতুন তিনটি অনুষদ ও নয়টি বিভাগ খোলায় একাডেমিক কলেবর উত্তর উত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশ্বয়নের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে প্রতিটি বিভাগে সেমিস্টার পদ্ধতি চালু। অনলাইনে ফলাফল প্রস্তুত পদ্ধতি প্রচলন। দীর্ঘদিনের সেশনজট নিরসন। কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ডিজিটালাইজেশান করা। শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রমকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে ‘ভাইস চ্যান্সেলর’স গোল্ড মেডেল অ্যাওয়ার্ড’ প্রবর্তন।

উপাচার্যের উদ্যোগে বৈদেশিক অর্থায়নে ‘কেন্দ্রীয় গবেষণাগার’ প্রতিষ্ঠা। সকলের জন্য ইন্টারনেট সুবিধা প্রদানসহ সর্বক্ষেত্রে তথ্যপ্রযুক্তি সেবা নিশ্চিত করা। নিয়মিতভাবে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সেমিনারের আয়োজন ও বিশ্ববিদ্যালয় জার্নাল প্রকাশ। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমুর্তি উন্নয়ন ও আন্তর্জাতিকীকরণের লক্ষ্যে বিদেশি শিক্ষার্থী ভতির সুযোগ বৃদ্ধি। এছাড়া একাধিক বিশ্ববিদ্যালয় ও ইন্সটিটিউটের সঙ্গে একাডেমিক বিনিময় চুক্তির মাধ্যমে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিদেশে উচ্চ শিক্ষার নতুন নতুন ক্ষেত্র সৃষ্টি করা।

অবকাঠামোগত উন্নয়ন:

উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারীর যোগ্য নেতৃত্ব ও আন্তরিক প্রচেষ্টায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ইতিহাসে সর্ববৃহৎ ৫৩৭ কোটি ৭ লক্ষ টাকার মেগা প্রকল্প একনেক কর্তৃক অনুমোদন। ই-টেন্ডারিংয়ের মাধ্যমে স্বচ্ছতার সঙ্গে মেগা প্রকল্পভুক্ত ১৮টি ভবনের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় দেশরতœ শেখ হাসিনা হলের নতুন ব্লক নির্মাণ, শেখ রাসেল নামে নতুন হল, রবীন্দ্র-নজরুল কলাভবন, প্রভোস্ট ও হাউজ টিউটরদের জন্য পাঁচ তলা বিশিষ্ট আবাসিক ভবন, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের জন্য পাঁচ তলা বিশিষ্ট আবাসিক ভবন নির্মাণ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব অর্থায়নে ইন্সটিটিউট অব ইসলামিক এডুকেশন এন্ড রিসার্চের নতুন ভবনের নির্মাণ কাজ চলমান। নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ এর জন্য ২টি ৫০০ কেভিএ বৈদ্যুতিক সাবস্টেশন স্থাপন ও যাতায়াতের জন্য অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন সড়ক নির্মাণ কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। পরিবহন সঙ্কট দূরীকরণে পরিবহন-পুলে যুক্ত হয়েছে ৬টি এসি কোস্টার এবং অত্যাধুনিক ২টি হিনো বাসসহ ১৫টি যানবাহন। সুস্থ বিনোদনের লক্ষ্যে নান্দনিক ফোয়ারা, দৃষ্টিনন্দন লেক ও বোটানিক্যাল গার্ডেন নির্মাণ করা হয়েছে।

মহান মুক্তিযুদ্ধ, বাঙালি জাতীয়তাবাদ ও বাঙালি সংস্কৃতি উজ্জীবিতকরণের লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশদার মুখে স্থাপন করা হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মরণে নান্দনিক ম্যুরাল ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’। চিকিৎসাসেবা সম্প্রসারণে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে ‘ডেন্টাল ইউনিট’ চালু ও নতুন এ্যাম্বুলেন্স কেনা হয়েছে। এছাড়া উপাচার্যের পৃষ্ঠপোষকতায় বিশ্ববিদ্যালয় জিমনিশিয়ামে (ব্যামাগার) নতুন নতুন ইনস্ট্রুমেন্ট সরবরাহ করা হয়েছে। এর ফলে ক্রীড়াবিদরা শুধু স্বীয় বিশ্ববিদ্যালয়েই নয় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়েও কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখছেন।

প্রশাসনিক মানোন্নয়ন:

বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অফিসসমূহে ‘চেইন অব কমান্ড’ নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে শৃঙ্খলা ও কর্মপরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা অনুযায়ী, বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মঘণ্টা ৮টা থেকে ২টার পরিবর্তে ৯টা থেকে সাড়ে ৪ টা নির্ধারণ করা হয়েছে। পদোন্নতির ক্ষেত্রে ব্যক্তিপছন্দের পরিবর্তে মেধা, সততা ও যোগ্যতা প্রাধান্য পাওয়ায় অফিসসমূহ ফিরে পেয়েছে কর্মচাঞ্চল্য। উপাচার্যের আন্তরিক প্রচেষ্টায় পূর্বের প্রশাসন থেকে নিয়োগপ্রাপ্ত ১২৩ জনবলকে রাজস্ব বাজেটে অন্তভূর্ক্তি করা হয়েছে।

ইতিপূর্বে উত্থাপিত সকল অডিট আপত্তি বর্তমান প্রশাসন দক্ষতার সাথে নিরসন করেছে। এছাড়া সকলক্ষেত্রে সততা ও স্বচ্ছ জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে দীর্ঘদিনের বাজেট ঘাটতি কমেছে। সন্ত্রাস, মাদক ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অবলম্বনের মাধ্যমে শিক্ষাবান্ধব ক্যাম্পাস তৈরি হয়েছে। একাডেমিক ও আর্থিক দূর্নীতির ক্ষেত্রে মতাদর্শের ঊর্ধ্বে থেকে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে শাস্তি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের দীর্ঘদিনের নেতিবাচক ভাবমূর্তি ফিরে এসেছে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড যখন দূর্বার গতিতে এগিয়ে চলছিল, ঠিক তখনই আঘাত হানে বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস। ক্রমশ বেড়েই চলেছে এই ভাইরাসের প্রকোপ। তবে বর্তমান এই পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা পুষিয়ে নিতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) নির্দেশনায় অনলাইন ক্লাস শুরু করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়। যা সেশনজট নিরসনে যুগান্তকারী পদক্ষেপ। তবে এই পরিস্থিতির মধ্যে স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণে অনেকটা স্থবির হয়ে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান মেগা প্রকল্পভূক্ত উন্নয়ন কর্মকান্ড।

বর্তমান পরিস্থিতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নের বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী বলেন, ‘করোনাকালের এই তিন-চার মাস বাদ দিলেও গত তিন বছর ১১ মাসের দায়িত্বকালে আমি একটি সুন্দর টিম ওয়ার্কের মধ্যদিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক, প্রশাসনিক ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন একটি অভূতপূর্ব অবস্থায় নিয়ে আসতে পেরেছি। এর জন্য আমি মহামান্য চ্যান্সেলর, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, ইউজিসির চেয়ারম্যান, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারী সবার প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলছে মাদ্রাসার হিফজ বিভাগ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুব শিগগিরই দেশের হিফজ মাদ্রাসাগুলো খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর মৌখিক সম্মতিও পাওয়া গেছে।

আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের পক্ষ থেকে লিখিত প্রজ্ঞাপন জারির কথা রয়েছে। মঙ্গলবার রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ঈদুল ফিতরের পর থেকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে কওমি মাদ্রাসা খুলে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন আলেমরা। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় এতদিন সে অনুমতি পাওয়া যায় নি। ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির সুবিধার্থে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কওমি মাদ্রাসার অফিস খোলার অনুমতি দেয়া হয়েছিল।

সূত্র জানায়, গত কয়েকদিন আগে এ বিষয়ে জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের একটি প্রতিনিধি দল সাক্ষাত করেন। এ সময় আসন্ন কোরবানির ঈদের আগেই সীমিত পরিসরে হলেও কওমি মাদ্রাসা খোলার আবেদন জানান তারা।

জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের সহ-সভাপতি ড. মাওলানা মুশতাকের নেতৃত্বে ওই প্রতিনিধি দলে ছিলেন মাওলানা ইয়াহয়া মাহমুদ, বোর্ডের মহাসচিব মুফতি মোহাম্মদ আলী ও মাওলানা মুজিবুর রহমান।

এ বিষয়ে ড. মুশতাক আহমদ জানান, কওমি মাদ্রাসার নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হয় রমজান মাস থেকে। কিন্তু আমরা বিগত শিক্ষাবর্ষটিও শেষ করতে পারিনি। এছাড়া কোরবানির ঈদে মাদ্রাসা ছাত্ররা পশু জবাইসহ বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে থাকেন। আমরা বিষয়টি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে এখন শুধুমাত্র হিফজবিভাগগুলো খুলে দেয়ার মৌখিক অনুমতি দিয়েছেন। বিষয়টি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমাদেরকে নিশ্চিত করেছেন।

এসএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেয়া হয়। শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয় ৩ ফেব্রুয়ারি, শেষ হয় ২৭ ফেব্রুয়ারি।২৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চের মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের আওতায় এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয় ১৬ লাখ ৩৫ হাজার ২৪০ শিক্ষার্থী। যার মধ্যে আট লাখ ৪৩ হাজার ৩২২ ছাত্রী। ছাত্রের তুলনায় ৫১ হাজার ৪০৪ ছাত্রী বেশি।

মাদরাসা বোর্ডের দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেয় দুই লাখ ৮১ হাজার ২৫৪ জন। ছাত্রী অংশ নেয় এক লাখ ৪৭ হাজার ১১৬ জন। ছাত্রের তুলনায় ১২ হাজার ৯৭৮ জন বেশি। এছাড়া কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষায় এক লাখ ৩১ হাজার ২৮৫ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে।



আর কারিগরি বোর্ডের এসএসসির ফল পেতে SSC লিখে একটি স্পেস দিয়ে Tec লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০২০ লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠালে ফিরতি এসএমএসে ফল জানানো হবে।

মোবাইলে এসএমএসের পাশাপাশি নিজ নিজ শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকেও ফল জানা যাবে।

এছাড়া জেলা প্রশাসক (ডিসি) এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের (ইউএনও) ই-মেইলে কেন্দ্র ও প্রতিষ্ঠানের ফল পাওয়া যাবে। প্রয়োজনে ডিসি ও ইউএনও’র অফিস থেকে ফলাফলের হার্ডকপি সংগ্রহ করা যাবে বলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি জানিয়েছে।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। গত কয়েক বছর ধরে পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হলেও এবার করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে তা সম্ভব হয়নি।

২০ মে এসএসসি`র ফল প্রকাশ
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়লেও প্রকাশিত হবে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফল । ফল প্রকাশের সব প্রস্তুতি নিয়েছে শিক্ষা বোর্ডগুলো। অনলাইনেই ফল প্রকাশ করা হবে, যাতে শিক্ষার্থীরা ঘরে বসেই তাদের ফল পেতে পারে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় মে মাসের ২০ তারিখে ফল প্রকাশ করা হবে।

জানতে চাইলে আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, ‘এ মাসেই ফল প্রকাশ করবো, আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি।’ ছুটি বাড়লেও ফল প্রকাশ করা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ছুটি বাড়লেও অনলাইনে ফল প্রকাশ করা হবে। শিক্ষার্থীরা ঘরে বসেই ফল পাবে।’

 

এ বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয় ৩ ফেব্রুয়ারি। তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ হয় ২৭ ফেব্রুয়ারি। আর ব্যবহারিক পরীক্ষা ২৯ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হয় ৫ মার্চ। এবার মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন। এসএসসিতে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৪ লাখ ২২ হাজার ১৬৮ জন। এরমধ্যে অংশ নিয়েছে ১৪ লাখ ১৬ হাজার ৭২১ জন। করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ ছুটির কারণে নির্ধারিত সময়ে (পরীক্ষার পর ৬০ দিন) ফল প্রকাশ করা সম্ভব হয়নি।

টিভিতে প্রাথমিকের ক্লাস শুরু ৫ এপ্রিল
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

আগামী ৫ এপ্রিল টেলিভিশনে শুরু হবে প্রাথমিক স্তরের তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির পাঠদান। সংসদ বাংলাদেশ টিভির মাধ্যমে ওইদিন রেকর্ডিং ক্লাস সম্প্রচার করা হবে। তবে পরবর্তী সময়ে বিটিভিতেও এসব ক্লাস সম্প্রচারের চিন্তা সরকারের আছে বলে জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন। তিনি বলেন, আমরা প্রাক-প্রাথমিক থেকে দ্বিতীয় শ্রেণির শিশুদের ডিজিটাল পাঠদানের জন্যও কনটেন্ট প্রস্তুত করছি। টিভিতে এই পাঠদান কার্যক্রম স্থায়ী করার চিন্তা করছেন তারা। এ লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্প কাজ করছে।

জানা গেছে, প্রাথমিকের শিশুদের জন্য পাঠদানের লেকচার রাজধানীতে দুটি স্টুডিওতে রেকর্ডিং করা হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার এই রেকর্ডিং কার্যক্রম শুরু হবে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে রাজধানীর রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল ও কলেজে। আরেকটি ক্যামব্রিয়ান টেলিভিশনের স্টুডিওতে।

 

এদিকে, রাজধানীতে অনেক সরকারি স্টুডিও খালি পড়ে থাকলেও বেসরকারি স্টুডিওতে এই ক্লাস রেকর্ডিং করার উদ্যোগের সমালোচনা হয়েছে। এ ব্যাপারে সচিব বলেন, আর কোনো স্টুডিও পাওয়া যায়নি বলে আমরা ওই স্টুডিও বাছাই করেছি।

শাবিতে অনলাইনে ক্লাস নেবেন শিক্ষকরা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রকোপ মোকাবেলায় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম সচল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি)।

মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ হয়ে থাকলে বিশ্ববিদ্যালয় আগের মতো সেশনজট বাড়তে পারে। তাই ইউজিসির নির্দেশনা অনুসারে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ইতোমধ্যে এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকল অনুষদের ডিন ও বিভাগীয় প্রধানকে অবহিত করা হয়েছে।

অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রমের বিষয়টি সমন্বয় করছেন কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মুমিন ও সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. ফরহাদ রাব্বী।

আব্দুল্লাহ আল মুমিন বলেন, আমরা ক্লাস ও শিক্ষা কার্যক্রমের বিষয়গুলো নিয়ে এর আগে পরীক্ষামূলকভাবে কাজ করেছি। আমরা আশাবাদী বিষয়টি ভালো ভাবেই কাজ করবে।

শিক্ষকরা ক্লাস নেয়ার ক্ষেত্রে জুম, সিসকো ওয়েবেক্স, গুগল মিট ও বিভিন্ন উপকরণ শেয়ারের জন্য গুগল ক্লাসরুম পদ্ধতি পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবহার করে এ সম্ভাব্যতা নিশ্চিত করেছেন।


   Page 1 of 6
     শিক্ষা
ঢাবির সেই ছাত্রীর আরেক মামলা
.............................................................................................
প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার পূর্বপ্রস্তুতিতে ৯ নির্দেশনা
.............................................................................................
ভিপি নুরের বিরুদ্ধে ঢাবি ছাত্রির ধর্ষণ মামলা
.............................................................................................
প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য আসছে সুখবর
.............................................................................................
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত ২৭ আগস্ট
.............................................................................................
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ফল প্রকাশ
.............................................................................................
হচ্ছে না প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা
.............................................................................................
মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি বিদ্যা নিকেতনে জাতীয় শোক দিবস পালিত
.............................................................................................
বাতিল হচ্ছে পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা
.............................................................................................
কাল থেকে শুরু একাদশে ভর্তি
.............................................................................................
উন্নয়নের ধারাবাহিতায় ইবির চার বছর
.............................................................................................
স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলছে মাদ্রাসার হিফজ বিভাগ
.............................................................................................
এসএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ
.............................................................................................
২০ মে এসএসসি`র ফল প্রকাশ
.............................................................................................
টিভিতে প্রাথমিকের ক্লাস শুরু ৫ এপ্রিল
.............................................................................................
শাবিতে অনলাইনে ক্লাস নেবেন শিক্ষকরা
.............................................................................................
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়লে বিকল্প ব্যবস্থা
.............................................................................................
৯ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ
.............................................................................................
করোনা: এইচএসসি`র প্রবেশপত্র বিতরণ স্থগিত
.............................................................................................
প্রাথমিকসহ সকল শিক্ষকদের রোজার ছুটি কমছে!
.............................................................................................
প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে মুজিববর্ষের সব অনুষ্ঠান স্থগিত
.............................................................................................
এইচএসসি পরীক্ষা বন্ধে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি
.............................................................................................
করোনাঃ কাল থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ
.............................................................................................
করোনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের দাবি জোরদার হচ্ছে
.............................................................................................
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন শুরু ১০ মে
.............................................................................................
করোনা: শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত বিকালে
.............................................................................................
প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে নতুন নিয়ম
.............................................................................................
৭৬০ দিন অনুপস্থিত থেকেও তিনি উপাচার্য
.............................................................................................
যশোরে ছাত্রাবাস থেকে বিদেশি শটগান, বোমা উদ্ধার
.............................................................................................
ঢাবির পাঁচ শিক্ষক চাকরিচ্যুত
.............................................................................................
ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
.............................................................................................
প্রাথমিকে নিয়োগ পাচ্ছেন আরও ১৮ হাজার শিক্ষক
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জ গালর্স স্কুলে অনিয়ম
.............................................................................................
চবিতে ছাত্রলীগের আটক ২০
.............................................................................................
অতিরিক্ত বই বা নোট পড়ানো বন্ধের নির্দেশ
.............................................................................................
২২১ শিক্ষককে এমপিওভুক্তির সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আশপাশে বিড়ি-সিগারেট বিক্রি নিষিদ্ধ
.............................................................................................
ইবিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১০
.............................................................................................
প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের রদবদল
.............................................................................................
রাতে হলের সামনে অবস্থান জাবি ছাত্রীদের
.............................................................................................
আজকের জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা স্থগিত
.............................................................................................
ইবি ছাত্রলীগ সম্পাদক রাকিব গ্রেফতার
.............................................................................................
জাবিতে হামলার প্রতিবাদে ছাত্রদলের বিক্ষোভ
.............................................................................................
বন্ধের নির্দেশ না মেনে আন্দোলনে জাবি শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
জাবিতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ছাত্রলীগও হলে
.............................................................................................
কুবি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা, আহত ৩
.............................................................................................
উত্তাল পাবনা প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
.............................................................................................
ঢাবির মুহসীন হল থেকে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার
.............................................................................................
ঢাবিতে ৩৪ ছাত্রলীগ নেতার অবৈধ ভর্তি নিয়ে হট্রগোল
.............................................................................................
মধ্যরাতে ছাত্রীদের আন্দোলন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এম.এ মান্নান
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ হাজী মোবারক হোসেন।। সহ-সম্পাদক : কাউসার আহম্মেদ।
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ খন্দকার আজমল হোসেন বাবু।

ঠিকানাঃ বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়- নারায়ণগঞ্জ, সম্পাদকীয় কার্যালয়- জাকের ভিলা, হাজী মিয়াজ উদ্দিন স্কয়ার মামুদপুর, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ। শাখা অফিস : নিজস্ব ভবন, সুলপান্দী, পোঃ বালিয়াপাড়া, আড়াইহাজার, নারায়ণগঞ্জ-১৪৬০, মোবাইল : 01731190131, 01930226862, E-mail : mannannews0@gmail.com, mannan2015news@gmail.com, web: notunbazar71.com, facebook- mannan dhaka club
    2015 @ All Right Reserved By notunbazar71.com

Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop