| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শেয়ার করুন
Share Button
   ফিচার
  আমরা কি এই শিক্ষাব্যবস্থা চেয়েছিলাম?
  30, October, 2022, 3:12:40:PM

 

মাসুম হাসান 

 

বাংলাদেশের শিক্ষা, শিক্ষাব্যবস্থা এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিষয়ে গভীর অনুসন্ধান, উপলব্ধি এবং ব্যক্তিগত ও পেশাগত অভিজ্ঞতার আলোকে অনেক ধরণের ভাবনা মনে মালা গেথেছে৷ তারই প্রতিফলন এই লেখাটি যেখানে বিস্তারিত তত্ত্ব কথার নির্যাস প্রবচন আকারে প্রকাশিত হলো৷

 

 

১. এদেশের ছাত্রদের ‘স্কুলপালানো’ একটা কমন ব্যাপার। অপরাধ বিবেচিত হলেও ‘স্কুলপালানো’ আসলে ট্যালেন্টেড ছাত্রদের এক ধরণের প্রতিবাদ; আমাদের আকর্ষণহীন ব্যর্থ শিক্ষাব্যবস্থার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ। 

শিক্ষাপদ্ধতি ঠিক থাকলে এই ওয়াইল্ড ট্যালেন্টেড ছাত্রদের হয়ত আমরা ক্লাশরুমে ধরে রাখতে পারতাম৷ 

 

 

২. পৃথিবীর সর্বত্র ছাত্র-ছাত্রীরাই সম্ভবত সবচে’ বেশি প্রতিবাদ করে এবং প্রচলিত আচার-বিচার-সংস্কারকে চ্যালেঞ্জ করার শক্তি ও সাহস রাখে কেননা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তাদেরকে প্রায়শই বাস্তবতা বিবর্জিত পথে পরিচালিত করে৷ 

 

 

৩. সরকার নানা কায়দায় আসলে ছাত্রদের জোর করেই A+ ধরিয়ে দিচ্ছে। সম্ভবত এটা সুদীর্ঘ চক্রান্ত যাতে প্রতিভাবান, মেধাবী ও বুদ্ধিমান মানবসম্পদ এদেশে আর তৈরি না হয়!

কারণ, মেধাহীনরা খুব অনুগত, ভক্ত এবং মুরিদ টাইপ হয়; অথচ মেধাবীরা ঘটায় বিপ্লব যা ক্ষমতাসীনরা কখনওই চায় না।

আর তাই, শিক্ষাব্যবস্থাকে চিৎ-কাইত, ওলট-পালট, ওপর-নিচ করে, পালাক্রমে কিংবা উপর্যুপরি, নিয়মিত বলাৎকারেরই কাঙ্ক্ষিত ফসল এই A+পাওয়া অসহায় ছাত্রছাত্রীরা!

 

 

৪. এদেশে ছাত্রদের স্বপ্ন দেখানো হয় নির্মম মিথ্যা দিয়ে। “Aim in Life” বা “জীবনের লক্ষ্য” রচনা পড়তে গিয়ে ছাত্ররা নিজেদের স্বপ্নহীন যাত্রায় বুঝতে পারে বড় হয়ে সে ডাক্তার হবে, পাস করেই নিজ গ্রামে চলে যাবে, সেখানে দাতব্য চিকিৎসালয় গড়ে তুলবে এবং “ফ্রি ট্রিটমেন্ট” দিতে শুরু করবে৷ 

বিজ্ঞান বিভাগ ছাড়া ব্যবসায় শিক্ষা কিংবা মানবিক বিভাগের ছাত্ররাও ডাক্তার হওয়ার মতো দুঃস্বপ্ন দেখে! আমাদের ছেলেমেয়েদের এসব অস্পৃশ্য স্বপ্ন দেখিয়ে স্বপ্নভঙ্গের পথে তাদেরকে ছেড়ে দেয়া, যা অন্যায়, বন্ধ করা খুব জরুরি।

প্রকৃতপক্ষে, শিক্ষার্জন করে তরুণদের ১ম লক্ষ্য, হতে পারত “মহান কৃষক” হওয়ার স্বপ্ন৷ কিন্তু এমনটা ভাবা যেন আরেক দুঃস্বপ্ন৷ 

 

 

৫. জ্ঞান ও শিক্ষা কাউকে দেয়া যায় না যদি সে তা নিতে না জানে।

 

 

৬. বর্তমানে বাংলাদেশ সরকার ও প্রশাসন বুঝতে চাইলে রাজধানী পর্যন্ত যেতে হয় না। দেশের যেকোনো প্রান্তের একটি প্রাইমারি স্কুলে গেলেই আপনি পরিষ্কার বুঝতে পারবেন। কারণ, প্রতিটি শিক্ষাঙ্গন এখন এক একটা “মিনি পলিটিকাল গভর্নমেন্ট”! সরকার-প্রেতাত্না প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই আছর করে আছে!

 

 

৭. এখন শিক্ষকরা ক্লাশরুমে পড়ান না; কিছুক্ষণ পর ঐ ছাত্রদের অন্যত্র পড়াবেন বলে তাদেরকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করে তোলেন!

 

 

৮. বর্তমানে শিশুদের সঠিক বিকাশের ক্ষেত্রে একটি বড় অন্তরায় হলো তাদের “আম্মুরা”। আম্মুরা স্কুলগুলোর চারপাশে সারাদিন বসে থাকেন প্রতিটি বাচ্চাকে “ফার্স্ট” বানানোর জন্য! তারা অবিবেচকের মতো প্রতিযোগিতা, প্রতিদ্বন্দ্বিতা, ঈর্শা-হিংসা-বিদ্বেষ ইত্যাদি শেখাচ্ছেন অবুঝ শিশুদের।

 

 

৯. বর্তমান শিক্ষা, সমাজ ব্যবস্থা, মানুষের যাপিত জীবন এবং সর্বোপরি বাংলাদেশ নামক দেশটির কথা একবার ভাবুন দু’চোখ বুঁজে; একটি পুরোনো কথা মনে পড়বে আপনার—

“উপরে ফিটফাট, ভিতরে সদরঘাট”!

 

 

১০. প্রযুক্তিগত উন্নয়নের কল্যাণে এদেশের তরুণতরুণীরা অনেক অগ্রসর হয়েছে; তবে আরো এগুতে পারত যদি তাদের বাবা-মা এবং কম-জানা ও একগুঁয়ে শিক্ষকরা তাদেরকে বাঁধা দিয়ে পিছিয়ে না দিত।

 

 

১১. অকারণে রেগে যাওয়া এবং ব্যক্তিগত আক্রমণ এখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যর্থ প্রশাসকদের শেষ মারণাস্ত্র!

 

 

১২. বর্তমানে উচ্চপদস্থ শিক্ষিত ব্যক্তিরা সবচেয়ে বড় ক্রিমিনাল। তাঁরা(তারা) নিজ নিজ চেয়ারে বসে যদি শুধু লিগ্যাল কথাগুলো বলতেন আর নিজ দায়িত্বগুলো অবহেলা না করতেন, তাহলে এদেশের সাধারণ মানুষের জীবন অনিবার্যভাবে বদলে যেত।

 

 

১৩. এদেশের নেতৃস্থানীয় (রাজনীতিক নেতা নয়) লোকজনকে, যারা আমাদের ভাগ্য নিয়ন্ত্রণ করেন, হতে হবে অনেক বেশি সুশিক্ষিত ও নির্লোভ। তাদের একটি “হ্যা” অথবা “না” পুরো জাতির ভাগ্যে যে কত বড় পরিবর্তন আনতে সক্ষম তা তারা জানেন না।

 

 

১৪. এখন তথাকথিত শিক্ষিত প্রশাসকরা ক্ষমতাকে চিরস্থায়ী রূপ দিতে কপট থেকে কপটতর হচ্ছে। এদের চোখের ভেতর স্বপ্ন নেই কোনো; আছে বিদ্বেষ, অহমিকা, গোপন অসততা আর আত্ন-প্রেম।

 

 

১৫. এদেশে শিক্ষা, সমাজ ও সংস্কৃতি মানুষের মনোজগতকে অবরুদ্ধ করে রাখে৷ ফলে, কেউই সমাজে Alternative Reality বা বিকল্প বাস্তবতার অস্তিত্ব মেনে নিতে পারে না; 

বরং যেকোনো নতুন বা সমান্তরাল অস্তিত্বকে অস্বীকার করাটাই এখানকার সংস্কৃতি।

 

 

১৬. সম্ভবত, আমাদের শিক্ষাদর্শনই মানুষে মানুষে বৈষম্য ও দূরত্ব বাড়াতে সহায়তা করছে।

 

 

১৭. বাংলাদেশে আর্থনীতিক সমাজবাস্তবতা আর সাধারণ মানুষের উপার্জনগত বৈষম্য এতটা তীব্র যে, এখানে মানুষ শিক্ষিত হওয়ার জন্য শিক্ষাগ্রহণ করে না।

 

 

১৮. শিক্ষিত নারীদের মধ্যে ধূমপায়ীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। অনেক নারী দোকান থেকে নিজে সিগারেট কিনতে কিংবা জনসমক্ষে সিগারেট টানতে দ্বিধা করছে না।

এতে আমার কষ্ট লাগে কেননা তাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকিও বাড়ছে।

এতে আমার কষ্ট লাগে না; কেননা পুরুষের সাথে সম-অধিকার প্রতিষ্ঠায় নারীরা একধাপ এগিয়ে গেছে।

 

লেখক: বার্তা সম্পাদক, দৈনিক নতুন বাজার ৭১.কম

 



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 133        
   আপনার মতামত দিন
     ফিচার
আমরা কি এই শিক্ষাব্যবস্থা চেয়েছিলাম?
.............................................................................................
ইতিহাসে আজকের এই দিনে
.............................................................................................
লালমাটির ক্যাম্পাস বলে খ্যাত কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় /লালমাটির ক্যাম্পাস কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বলছি / আমার অস্তিত্ব, আমাদের কুবি ক্যাম্পাস
.............................................................................................
ভ্যালেন্টাইন্স ডে’তে প্রিয়জনকে দিন মনছোঁয়া উপহার
.............................................................................................
আলিঙ্গনের বিস্ময়কর ৮ উপকারিতা
.............................................................................................
ফের শুরু হচ্ছে ফুডপ্যান্ডা’র সেলিব্রিটি কুকিং শো ‘ফর দ্য লাভ অফ ফুড সিজন ২’
.............................................................................................
ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি’ বলায় ক্ষেপে গেলেন ইয়ামি
.............................................................................................
অতীতের ভুল থেকে বিএনপিকে শিক্ষা নিতে হবে
.............................................................................................
যে রহস্যময় বই আজও কেউ পড়তে পারেনি
.............................................................................................
চিকিৎসকের অবহেলায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের মৃত্যু
.............................................................................................
সিলেটের ওসমানীনগরে ভারতীয় নাসির বিড়িসহ আটক ২
.............................................................................................
মানবতার কল্যাণে বিজয়ের ইতিহাস স্মরণীয় হোক
.............................................................................................
অশ্লীলতাকে বর্জন করে যথার্থভাবে ইউটিউব চ্যানেল পরিচালিত হো
.............................................................................................
বিয়ের আগে এই বিষয়গুলো সঙ্গীকে না জানালেই বিপদ
.............................................................................................
যে সময়ে হাঁটলে বেশি উপকার পাবেন
.............................................................................................
ফ্রিজে রাখা খাবারের স্বাদ অটুট রাখবেন যেভাবে
.............................................................................................
মিনি সিঙ্গারা তৈরির রেসিপি
.............................................................................................
চিকেন খাবসা তৈরির রেসিপি জেনে নিন
.............................................................................................
হুমকির মুখে অতিথি পাখির ক্যাম্পাস
.............................................................................................
অসৎ নারী চেনার উপায় কী?
.............................................................................................
যেসব কারণে পরকীয়ায় নারীদের আগ্রহ বেশি!
.............................................................................................
সীমান্ত হত্যা-চোরা চালান ও অপরাধ দমনে ঠাকুরগাঁও সীমান্তে গড়ে ওঠেছে কৃষি খামার
.............................................................................................
সবুজ চা বিপ্লবে ঘুরে যাচ্ছে উত্তরাঞ্চলের তেঁতুলিয়া
.............................................................................................
পৃথিবীর খুব কাছে আসছে জমজ ধুমকেতু
.............................................................................................
মার্চ মানেই অগ্নিঝরা রক্তক্ষয়ী মাস
.............................................................................................
টানা তিনবছর হেটে দশ হাজার মাইল!
.............................................................................................
বেলুনে ওড়ানো চিঠি ১৪৬ বছর পর অস্ট্রেলিয়ায়!
.............................................................................................
দিনাজপুরে প্রকৃতির অপার সৌন্দর্যে ভরা খানসামা যার অন্যতম পুরাতন মুসলিম স্থাপত্য ‘আওকরা মসজিদ’
.............................................................................................
বৃক্ষমানবের আঙুলে অস্ত্রোপচার শনিবার
.............................................................................................
শাহরুখের গাড়িতে হিন্দু মৌলবাদীদে হামলা
.............................................................................................
দেশে বৈধ সিমের সংখ্যা ১৩ কোটি
.............................................................................................
সমুদ্রে মাছের চেয়েও বেশি প্লাস্টিক!
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এম.এ মান্নান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ খন্দকার আজমল হোসেন বাবু, সহ সম্পাদক: কাওসার আহমেদ, রাসেল মোল্লা। র্বাতা সম্পাদক: আবু ইউসুফ আলী মন্ডল, মাসুম হাসান৷ সহকারী-বার্তা সম্পাদক লাকী আক্তার । বার্তা বিভাগ ফোন০১৬১৮৮৬৮৬৮২

ঠিকানাঃ বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়- নারায়ণগঞ্জ, সম্পাদকীয় কার্যালয়- জাকের ভিলা, হাজী মিয়াজ উদ্দিন স্কয়ার মামুদপুর, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ। শাখা অফিস : নিজস্ব ভবন, সুলপান্দী, পোঃ বালিয়াপাড়া, আড়াইহাজার, নারায়ণগঞ্জ-১৪৬০, রেজিস্ট্রেশন নং 134 / নিবন্ধন নং 69 মোবাইল : 01731190131,E-mail- notunbazar2015@gmail.com, E-mail : mannannews0@gmail.com, web: notunbazar71.com, facebook- notunbazar / সম্পাদক dhaka club
    2015 @ All Right Reserved By notunbazar71.com

Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD